সরকারকে ঘাড় ধরে নামাতে দেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ : মির্জা আব্বাস

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেছেন, এই সরকার দৈত্য সরকার। সিন্দাবাদের গল্পে যেমন এক বৃদ্ধের বেশ ধরে খাল পার হওয়ার জন্য সিন্দাবাদের ঘাড়ে ওঠেছিল এক দৈত্য। খাল পার হওয়ার পর সেই বৃদ্ধ আর সিন্দাবাদের ঘাড় থেকে নামে না। অনেক কষ্ট করে সেই বৃদ্ধকে ঘাড় থেকে নামিয়েছিল। এই সরকারকে ঘাড় ধরে নামাতে দেশের মানুষ আজ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে।

 

আজ (২৬ নভেম্বর) বিকেলে কুমিল্লা টাউন হল মাঠে কুমিল্লা বিভাগীয় গণসমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা আব্বাস আরও বলেন, সরকার বিএনপির সমাবেশের পাল্টা সমাবেশ করছে বিভিন্ন স্থানে। তারা তাদের অবস্থান জানাতে চায়। আমি বলবো আজকে কুমিল্লার সমাবেশে যে মানুষ হয়েছে, আপনাদের সবগুলো সমাবেশ মিলিয়ে এতো মানুষ হয়নি।

 

তিনি বলেন, সরকার দুর্ভিক্ষের ভয় দেখাচ্ছে জনগণকে। সরকার কী করেছে? দেশের অর্থনীতিকে লুটপাট করে সব বিদেশে পাচার করে এখন দুর্ভিক্ষের ভয় দেখায়। সরকার যদি জনবান্ধব হতো তাহলে দুর্ভিক্ষের ভয় না দেখিয়ে দেশের মানুষের পাশে থাকতো। সরকার মানুষকে ভয় দেখায়, কারণ যা খাওয়ার খাওয়া শেষ, আর কিছু বাকি রাখেনি।

 

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, এই সরকারের সময় শেষ, আগামী দিনের বাংলাদেশ বেগম খালেদা জিয়ার বাংলাদেশ, তারেক রহমানের বাংলাদেশ। আজকের এই সমাবেশে আমি আপনাদেরকে আশ্বাস দিতে পারি, আগামী দিনে আমরা ক্ষমতায় এলে কুমিল্লা বিভাগ কুমিল্লা নামেই করব। সরকার কুমিল্লাকে অপমান করছে। একটি উপজেলার নামে একটি বিভাগের নাম হতে পারে না।

তিনি আরও বলেন, আমাদের আন্দোলন এই সরকারকে বিতাড়িত করার আন্দোলন। সেই আন্দেলন ডিসেম্বরের ১০ তারিখের পরে শুরু হবে।

 

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু বলেন, এই সরকার উন্নয়নের কিছুই করতে পারেনি। উল্টো উন্নয়নের নাম করে দেশের অর্থ লুটপাটের মহোৎসবে মেতেছে। গত ১০ বছরে এই সরকার দেশের জনগণের সাড়ে ১৪ লাখ কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে।

 

বুলু বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন দেশে ১৭টি গ্যাসকূপ খনন করেছিল। এই খন্দকার মোশাররফ হোসেন স্যারেরা করেছিলেন। আওয়ামী লীগ কী করেছে? এরা কি একটাও গ্যাসকূপ খনন করেছিল? করে নাই। উল্টো বিদেশ থেকে গ্যাস আমদানি করেছে যেন কমিশনের টাকা আত্মসাৎ করতে পারে।

 

১০ ডিসেম্বর ঢাকার সম্মেলন নিয়ে নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বুলু বলেন, আপনারা সবাই আগামী ১০ ডিসেম্বর ঢাকার সম্মেলনকে সফল করতে ঢাকায় যাবেন, পল্টনেই হবে ঢাকার সমাবেশ। সরকার যতই বাধা দিক। এই দেশকে বাঁচাতে হবে। আপনারা বিএনপির কর্মী, আপনারা দেশপ্রেমিক, দেশের মানুষকে সরকারের কালো হাত থেকে বাঁচাতে ঢাকার সমাবেশে যাবেন।

 

গণসমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।  কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক হাজী আমিনুর রশিদ ইয়াসিনের সভাপতিত্বে গণসমাবেশে আরও বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য , নজরুল ইসলাম খান, সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা প্রমুখ।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» তন্দুরি পেঁয়াজের স্যালাড তৈরির রেসিপি

» আইনজীবী সহকারীরা বিচার ব্যবস্থার অপরিহার্য অংশ: স্পিকার

» জনবান্ধব রাজস্ব প্রশাসন গড়ে তুলতে কাজ করছে সরকার : প্রধানমন্ত্রী

» রংপুরের বোলিং তোপে অল্পেই থামল ঢাকা

» ভালো কাজ করলে মানুষ মনে রাখে: তোফায়েল আহমেদ

» দেশের শাসন ব্যবস্থা ও গণতন্ত্র বিএনপি ধ্বংস করেছিল, আওয়ামী লীগ নয় : নাছিম

» স্মার্ট শিক্ষার্থীরাই স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলবে: মেয়র আতিক

» শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে : প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য

» বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে পর্নোগ্রাফি মামলায় ব্যবসায়ী গ্রেফতার

» মহান ভাষা দিবস উপলক্ষে “বন্ধুমহল একাতা সংঘ” শর্টপিছ টুর্নামেন্টের উদ্ভোধন

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

সরকারকে ঘাড় ধরে নামাতে দেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ : মির্জা আব্বাস

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস বলেছেন, এই সরকার দৈত্য সরকার। সিন্দাবাদের গল্পে যেমন এক বৃদ্ধের বেশ ধরে খাল পার হওয়ার জন্য সিন্দাবাদের ঘাড়ে ওঠেছিল এক দৈত্য। খাল পার হওয়ার পর সেই বৃদ্ধ আর সিন্দাবাদের ঘাড় থেকে নামে না। অনেক কষ্ট করে সেই বৃদ্ধকে ঘাড় থেকে নামিয়েছিল। এই সরকারকে ঘাড় ধরে নামাতে দেশের মানুষ আজ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে।

 

আজ (২৬ নভেম্বর) বিকেলে কুমিল্লা টাউন হল মাঠে কুমিল্লা বিভাগীয় গণসমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা আব্বাস আরও বলেন, সরকার বিএনপির সমাবেশের পাল্টা সমাবেশ করছে বিভিন্ন স্থানে। তারা তাদের অবস্থান জানাতে চায়। আমি বলবো আজকে কুমিল্লার সমাবেশে যে মানুষ হয়েছে, আপনাদের সবগুলো সমাবেশ মিলিয়ে এতো মানুষ হয়নি।

 

তিনি বলেন, সরকার দুর্ভিক্ষের ভয় দেখাচ্ছে জনগণকে। সরকার কী করেছে? দেশের অর্থনীতিকে লুটপাট করে সব বিদেশে পাচার করে এখন দুর্ভিক্ষের ভয় দেখায়। সরকার যদি জনবান্ধব হতো তাহলে দুর্ভিক্ষের ভয় না দেখিয়ে দেশের মানুষের পাশে থাকতো। সরকার মানুষকে ভয় দেখায়, কারণ যা খাওয়ার খাওয়া শেষ, আর কিছু বাকি রাখেনি।

 

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, এই সরকারের সময় শেষ, আগামী দিনের বাংলাদেশ বেগম খালেদা জিয়ার বাংলাদেশ, তারেক রহমানের বাংলাদেশ। আজকের এই সমাবেশে আমি আপনাদেরকে আশ্বাস দিতে পারি, আগামী দিনে আমরা ক্ষমতায় এলে কুমিল্লা বিভাগ কুমিল্লা নামেই করব। সরকার কুমিল্লাকে অপমান করছে। একটি উপজেলার নামে একটি বিভাগের নাম হতে পারে না।

তিনি আরও বলেন, আমাদের আন্দোলন এই সরকারকে বিতাড়িত করার আন্দোলন। সেই আন্দেলন ডিসেম্বরের ১০ তারিখের পরে শুরু হবে।

 

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু বলেন, এই সরকার উন্নয়নের কিছুই করতে পারেনি। উল্টো উন্নয়নের নাম করে দেশের অর্থ লুটপাটের মহোৎসবে মেতেছে। গত ১০ বছরে এই সরকার দেশের জনগণের সাড়ে ১৪ লাখ কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছে।

 

বুলু বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন দেশে ১৭টি গ্যাসকূপ খনন করেছিল। এই খন্দকার মোশাররফ হোসেন স্যারেরা করেছিলেন। আওয়ামী লীগ কী করেছে? এরা কি একটাও গ্যাসকূপ খনন করেছিল? করে নাই। উল্টো বিদেশ থেকে গ্যাস আমদানি করেছে যেন কমিশনের টাকা আত্মসাৎ করতে পারে।

 

১০ ডিসেম্বর ঢাকার সম্মেলন নিয়ে নেতাকর্মীদের উদ্দেশে বুলু বলেন, আপনারা সবাই আগামী ১০ ডিসেম্বর ঢাকার সম্মেলনকে সফল করতে ঢাকায় যাবেন, পল্টনেই হবে ঢাকার সমাবেশ। সরকার যতই বাধা দিক। এই দেশকে বাঁচাতে হবে। আপনারা বিএনপির কর্মী, আপনারা দেশপ্রেমিক, দেশের মানুষকে সরকারের কালো হাত থেকে বাঁচাতে ঢাকার সমাবেশে যাবেন।

 

গণসমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।  কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক হাজী আমিনুর রশিদ ইয়াসিনের সভাপতিত্বে গণসমাবেশে আরও বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য , নজরুল ইসলাম খান, সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা প্রমুখ।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com