রজবের ইবাদতেই কাটবে গুনাহের আসক্তি!

এমন অনেক মানুষ আছে, যারা গুনাহের কাজে আসক্ত, আবার অনেকেই নিজেদের মধ্যে ভালো অভ্যাস গড়ে তুলতে চান কিন্তু মনেপ্রাণে চাওয়া সত্ত্বেও গুনাহের কাজ থেকে বেরিয়ে আসা বা ভালো অভ্যাস গড়ে তোলা সম্ভব হয় না। তাদের জন্য সুবর্ণ সুযোগ রজব মাস। এই রজব মাসের আমল-ইবাদতের চর্চাই গুনাহের আসক্তি থেকে মুক্তি দিতে পারে; ভালো অভ্যাস গড়ে তোলার উপায় হতে পারে। কিন্তু কীভাবে?

 

রজব মাসে আমল ইবাদতের চর্চায় ভালো অভ্যাস গঠন এবং গুনাহের কাজের আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়া যায় বলে উল্লেখ করেছেন ইসলামিক গবেষক ও উলামায়ে কেরাম। কারণ-

‘আশহুরে হুরুমের (৪ মাস : রজব, জিলকদ, জিলহজ এবং মহররম) বৈশিষ্ট্য হলো- এসব মাসের (ভালো হওয়ার প্রচেষ্টা) ইবাদতের প্রতি যত্নবান হলে, (বছরের) বাকি মাসগুলোতে ইবাদতের (ভালো কাজের) তাওফিক হয়। আর আশহুরে হুরুমে (মাসগুলোতে) কষ্ট করে গুনাহ থেকে বিরত থাকতে পারলে, অন্যান্য মাসেও গুনাহ পরিহার করা সহজ হয়।’ (আহকামুল কোরআন, মারেফুল কোরআন)

আশহুরে হুরুম অর্থাৎ সম্মানিত মাস চারটি। এ চার মাসের একটি হলো- রজব মাস। এ মাসের ভালো কাজের প্রচেষ্টায় মন্দ কাজ থেকে মুক্ত হওয়া অনেকাংশেই সহজ। কেননা এ মাসে মন্দ কাজ পরিহার করা মহান আল্লাহর নির্দেশ।

 

মনে রাখতে হবে
গুনাহে আসক্ত ব্যক্তির গুনাহ ত্যাগ করা কিংবা বদ অভ্যাসে নিয়োজিত ব্যক্তির ভালো অভ্যাস গড়া; হুট করে একদিনেই সম্ভব নয়; আর তা একদিনে আয়ত্ব করাও সম্ভব নয়। এর জন্য গুনাহ ছাড়ার এবং ভালো অভ্যাস গড়ার চর্চার বিকল্প নেই। কারণ ঈমান ধরে রাখার কিংবা ঈমান বৃদ্ধির জন্যও চর্চার প্রয়োজন। তাই আশহুরে হুরুমের এ মর্যাদার মাসে সে প্রচেষ্টা শুরু করাই ঈমানের একান্ত দাবি।

 

নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বিশ্বমানবতার জন্য রমজানের দুই মাস আগে থেকেই এ চর্চার উপর গুরুত্বারোপ করেছেন। আল্লাহর কাছে সাহায্য চেয়েছেন। যেন রমজান আসার আগেই রজব ও শাবান মাসে নিজেদের আমল-ইবাদতের মাধ্যমে রহমত বরকত মাগফেরাত ও নাজাত পাওয়ার প্রস্তুতি নেওয়া যায়।

এ কারণেই ইসলামি গবেষক ও উলামায়ে কেরামগণ বলেন-
ভালো ফসলের জন্য যেমন প্রথমে ভালোভাবে জমি প্রস্তুত করতে হয়। তারপর সেই জমি যত্ন সহকারে চাষ করতে হয়; তাতে সুন্দর ও উত্তম বীজ বপন করতে হয়। তারপরই কৃষকের যত্নের ফলে উত্তম ফসল ফলানোর প্রথম ধাপ সম্পন্ন হয়। ঠিক রজব মাসও তেমন। এ মাসে যারা নিজেদের পরিচর্যা করবে; তারাই ভালো ও উত্তম প্রাপ্তি পাবে আল্লাহর কাছে। মুমিনের জন্য এ সময়টি হলো- রজব মাস।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে রজব মাসে নিজেদের বদ অভ্যাগ ত্যাগ করার তাওফিক দান করুন। গুনাহের আসক্তি থেকে বের হয়ে আসার তাওফিক দান করুন। নিজেদের ঈমান বৃদ্ধির চর্চা করার তাওফিক দান করুন। আমিন।সূএ:জাগোনিউজ২৪.কম

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» ১৫ টাকায় ম্যাগনেট মামার খিচুড়ি

» একাত্তর ছেড়ে ডিবিসিতে যোগ দিলেন নাজনীন মুন্নী

» উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দুর্বৃত্তের গুলিতে শিশু নিহত

» প্রশ্নফাঁস চেষ্টাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে :

» থানাকে জনগণের ভরসাস্থল করতে চাই: আইজিপি

» করোনা আক্রান্ত মেয়র আতিক

» চুমু নিয়ে রাশমিকার তিক্ত অভিজ্ঞতা

» আপিল বিভাগে জানা যাবে শিশুটির বাবা কে?

» সমুদ্রবন্দরে তিন নম্বর সতর্ক সংকেত, নদীবন্দরে ১

» মোবাইল ছিনিয়ে পালানোর সময় ছিনতাইকারী আটক

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

রজবের ইবাদতেই কাটবে গুনাহের আসক্তি!

এমন অনেক মানুষ আছে, যারা গুনাহের কাজে আসক্ত, আবার অনেকেই নিজেদের মধ্যে ভালো অভ্যাস গড়ে তুলতে চান কিন্তু মনেপ্রাণে চাওয়া সত্ত্বেও গুনাহের কাজ থেকে বেরিয়ে আসা বা ভালো অভ্যাস গড়ে তোলা সম্ভব হয় না। তাদের জন্য সুবর্ণ সুযোগ রজব মাস। এই রজব মাসের আমল-ইবাদতের চর্চাই গুনাহের আসক্তি থেকে মুক্তি দিতে পারে; ভালো অভ্যাস গড়ে তোলার উপায় হতে পারে। কিন্তু কীভাবে?

 

রজব মাসে আমল ইবাদতের চর্চায় ভালো অভ্যাস গঠন এবং গুনাহের কাজের আসক্তি থেকে মুক্তি পাওয়া যায় বলে উল্লেখ করেছেন ইসলামিক গবেষক ও উলামায়ে কেরাম। কারণ-

‘আশহুরে হুরুমের (৪ মাস : রজব, জিলকদ, জিলহজ এবং মহররম) বৈশিষ্ট্য হলো- এসব মাসের (ভালো হওয়ার প্রচেষ্টা) ইবাদতের প্রতি যত্নবান হলে, (বছরের) বাকি মাসগুলোতে ইবাদতের (ভালো কাজের) তাওফিক হয়। আর আশহুরে হুরুমে (মাসগুলোতে) কষ্ট করে গুনাহ থেকে বিরত থাকতে পারলে, অন্যান্য মাসেও গুনাহ পরিহার করা সহজ হয়।’ (আহকামুল কোরআন, মারেফুল কোরআন)

আশহুরে হুরুম অর্থাৎ সম্মানিত মাস চারটি। এ চার মাসের একটি হলো- রজব মাস। এ মাসের ভালো কাজের প্রচেষ্টায় মন্দ কাজ থেকে মুক্ত হওয়া অনেকাংশেই সহজ। কেননা এ মাসে মন্দ কাজ পরিহার করা মহান আল্লাহর নির্দেশ।

 

মনে রাখতে হবে
গুনাহে আসক্ত ব্যক্তির গুনাহ ত্যাগ করা কিংবা বদ অভ্যাসে নিয়োজিত ব্যক্তির ভালো অভ্যাস গড়া; হুট করে একদিনেই সম্ভব নয়; আর তা একদিনে আয়ত্ব করাও সম্ভব নয়। এর জন্য গুনাহ ছাড়ার এবং ভালো অভ্যাস গড়ার চর্চার বিকল্প নেই। কারণ ঈমান ধরে রাখার কিংবা ঈমান বৃদ্ধির জন্যও চর্চার প্রয়োজন। তাই আশহুরে হুরুমের এ মর্যাদার মাসে সে প্রচেষ্টা শুরু করাই ঈমানের একান্ত দাবি।

 

নবিজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বিশ্বমানবতার জন্য রমজানের দুই মাস আগে থেকেই এ চর্চার উপর গুরুত্বারোপ করেছেন। আল্লাহর কাছে সাহায্য চেয়েছেন। যেন রমজান আসার আগেই রজব ও শাবান মাসে নিজেদের আমল-ইবাদতের মাধ্যমে রহমত বরকত মাগফেরাত ও নাজাত পাওয়ার প্রস্তুতি নেওয়া যায়।

এ কারণেই ইসলামি গবেষক ও উলামায়ে কেরামগণ বলেন-
ভালো ফসলের জন্য যেমন প্রথমে ভালোভাবে জমি প্রস্তুত করতে হয়। তারপর সেই জমি যত্ন সহকারে চাষ করতে হয়; তাতে সুন্দর ও উত্তম বীজ বপন করতে হয়। তারপরই কৃষকের যত্নের ফলে উত্তম ফসল ফলানোর প্রথম ধাপ সম্পন্ন হয়। ঠিক রজব মাসও তেমন। এ মাসে যারা নিজেদের পরিচর্যা করবে; তারাই ভালো ও উত্তম প্রাপ্তি পাবে আল্লাহর কাছে। মুমিনের জন্য এ সময়টি হলো- রজব মাস।

আল্লাহ তাআলা মুসলিম উম্মাহকে রজব মাসে নিজেদের বদ অভ্যাগ ত্যাগ করার তাওফিক দান করুন। গুনাহের আসক্তি থেকে বের হয়ে আসার তাওফিক দান করুন। নিজেদের ঈমান বৃদ্ধির চর্চা করার তাওফিক দান করুন। আমিন।সূএ:জাগোনিউজ২৪.কম

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com