যে কারণে গরমের দিনে ঠান্ডা পানি খাবেন না

গরম পড়তেই ফের ফ্রিজে ঠান্ডা পানি রাখার অভ্যাস শুরু হয়ে গিয়েছে বাড়িতে বাড়িতে। রোদ থেকে ফিরে ঠান্ডা পানিতে গলা না ভেজালে যেন আর চলছেই না। কিন্তু শরীরের জন্য মোটেই উপকারী নয় এই ঠান্ডা পানি। হঠাৎ রোদের থেকে বাড়িতে ফিরে ঠান্ডা কিছু খেলে আরাম লাগে ঠিকই কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন এই ঠান্ডা পানি শরীরের জন্য কিন্তু আদৌ উপকারী নয়। বরং আসতে পারে একাধিক স্বাস্থ্য সমস্যা।

 

আর তাই রোদের থেকে ফিরেই কিন্তু ফ্রিজ খুলে সঙ্গে সঙ্গে ঠান্ডা পানি খাবেন না। বরং ফ্যানের তলায় ঘাম শুকিয়ে শরীরের তাপমাত্রা সাধারণ ঘরের তাপমাত্রায় এলে তারপরই পানি খান। বিশেষজ্ঞদের মতে, অতিরিক্ত ঠান্ডা পানি খেলে তার মারাত্মক প্রভাব পড়ে দাঁতের ভেগাস নার্ভের উপর। এই ভেগাস স্নায়ু হল আমাদের স্নায়ুতন্ত্রের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। এবং এর সঙ্গে যোগ রয়েছে হৃৎপিন্ডের। তাই বেশি ঠান্ডা পানি খেলে ভেগাস স্নায়ু উদ্দীপিত হয়ে ওঠে। যার ফলে হৃদগতি অনেকটাই কমে যেতে পারে। যে কারণে সানস্ট্রোকের সম্ভাবনা থেকে যায়।

 

এছাড়াও অতিরিক্ত ঠান্ডা পানি খেলে রক্তনালী সংকুচিত হয়ে পড়ে। ফলে শরীরের বিভিন্ন অংশে রক্ত সঞ্চালনও কিন্তু বন্ধ হয়ে যেতে পারে। আর এই সমস্যা এড়াতেই ঠান্ডা পানি খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। গরম থেকে এসে হঠাৎ করে ঠান্ডা পানি খেলে সর্দি-কফির সমস্যা বাড়ে। অতিরুক্ত শ্লেষ্মা জমতে পারে। শ্বাসনালীতে এই শ্লেষ্মা যদি দিনের পর দিন জমে তাহলে সেখান থেকে কঠিন সংক্রমণের সম্ভাবনা থেকে যায়।

 

কোনও খাবার খাওয়ার পরও কিন্তু ঠান্ডা পানি বা আইসক্রিম, কোল্ড ড্রিংকস খাবেন না। এতে খাবার হজম হতে বেশি সময় লাগে। কারণ শরীর হঠাৎ ঠান্ডা হয়ে গেলে হজমে সাহায্যকারী উৎসেচক ঠিকমতো কাজ করে না। ফলে তখন হজম প্রক্রিয়া শুধু যে ধীর হয়ে যায় তাই নয়, থেকে যায় বদহজমের সম্ভাবনাও।

 

আর তাই ব্যায়ামের ঠিক পরে বা খুব রোদ-গরম থেকে আসলে ফ্রিজ খুলে ঠান্ডা পানি একদমই খাবেন না। এতে হৃদরোগের সম্ভাবনা যেমন বেড়ে যায় তেমনই শরীরের আভ্যন্তরীণও ক্ষতি হয়। আর নিয়মিত ভাবে ঠান্ডা পানি খাওয়ার অভ্যাস আমাদের ওজন বাড়িয়ে দেয়। রোদের দিনে চেষ্টা করুন বাড়িতেই বিভিন্ন শরবত বানিয়ে খেতে। আম পোড়ার শরবত, বেলের পানা, লস্যি, ঘোল এসব কিন্তু শরীরের জন্য খুবই ভাল।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» নাশকতার মামলায় র‌্যাবের অভিযানে গ্রেফতার ২২৮

» নাশকতাকারী যেই হোক, কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

» মৃত্যুযন্ত্রণা সম্পর্কে কোরআন-হাদিসে যা বলা হয়েছে

» চট্টগ্রামে ২৪ ঘণ্টায় গ্রেপ্তার ৩৫ ‌

» নাইকো দুর্নীতি মামলায় পরবর্তী সাক্ষ্য ২০ আগস্ট

» বিতর্ক আর শঙ্কা নিয়ে শুরু হচ্ছে প্যারিস অলিম্পিক

» নাশকতাকারীরা যেন ঢাকা না ছাড়তে পারে সেই পরিকল্পনা করছে ডিএমপি : বিপ্লব কুমার

» দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে: নৌবাহিনী প্রধান

» হামলার নীলনকশা আগেই প্রস্তুত করে রেখেছিল বিএনপি: কাদের

» সহিংস আন্দোলনের জন্য অহিংস আন্দোলনকে ব্যবহার করেছে বিএনপি-জামায়াত: জয়

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

যে কারণে গরমের দিনে ঠান্ডা পানি খাবেন না

গরম পড়তেই ফের ফ্রিজে ঠান্ডা পানি রাখার অভ্যাস শুরু হয়ে গিয়েছে বাড়িতে বাড়িতে। রোদ থেকে ফিরে ঠান্ডা পানিতে গলা না ভেজালে যেন আর চলছেই না। কিন্তু শরীরের জন্য মোটেই উপকারী নয় এই ঠান্ডা পানি। হঠাৎ রোদের থেকে বাড়িতে ফিরে ঠান্ডা কিছু খেলে আরাম লাগে ঠিকই কিন্তু বিশেষজ্ঞরা বলছেন এই ঠান্ডা পানি শরীরের জন্য কিন্তু আদৌ উপকারী নয়। বরং আসতে পারে একাধিক স্বাস্থ্য সমস্যা।

 

আর তাই রোদের থেকে ফিরেই কিন্তু ফ্রিজ খুলে সঙ্গে সঙ্গে ঠান্ডা পানি খাবেন না। বরং ফ্যানের তলায় ঘাম শুকিয়ে শরীরের তাপমাত্রা সাধারণ ঘরের তাপমাত্রায় এলে তারপরই পানি খান। বিশেষজ্ঞদের মতে, অতিরিক্ত ঠান্ডা পানি খেলে তার মারাত্মক প্রভাব পড়ে দাঁতের ভেগাস নার্ভের উপর। এই ভেগাস স্নায়ু হল আমাদের স্নায়ুতন্ত্রের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ। এবং এর সঙ্গে যোগ রয়েছে হৃৎপিন্ডের। তাই বেশি ঠান্ডা পানি খেলে ভেগাস স্নায়ু উদ্দীপিত হয়ে ওঠে। যার ফলে হৃদগতি অনেকটাই কমে যেতে পারে। যে কারণে সানস্ট্রোকের সম্ভাবনা থেকে যায়।

 

এছাড়াও অতিরিক্ত ঠান্ডা পানি খেলে রক্তনালী সংকুচিত হয়ে পড়ে। ফলে শরীরের বিভিন্ন অংশে রক্ত সঞ্চালনও কিন্তু বন্ধ হয়ে যেতে পারে। আর এই সমস্যা এড়াতেই ঠান্ডা পানি খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। গরম থেকে এসে হঠাৎ করে ঠান্ডা পানি খেলে সর্দি-কফির সমস্যা বাড়ে। অতিরুক্ত শ্লেষ্মা জমতে পারে। শ্বাসনালীতে এই শ্লেষ্মা যদি দিনের পর দিন জমে তাহলে সেখান থেকে কঠিন সংক্রমণের সম্ভাবনা থেকে যায়।

 

কোনও খাবার খাওয়ার পরও কিন্তু ঠান্ডা পানি বা আইসক্রিম, কোল্ড ড্রিংকস খাবেন না। এতে খাবার হজম হতে বেশি সময় লাগে। কারণ শরীর হঠাৎ ঠান্ডা হয়ে গেলে হজমে সাহায্যকারী উৎসেচক ঠিকমতো কাজ করে না। ফলে তখন হজম প্রক্রিয়া শুধু যে ধীর হয়ে যায় তাই নয়, থেকে যায় বদহজমের সম্ভাবনাও।

 

আর তাই ব্যায়ামের ঠিক পরে বা খুব রোদ-গরম থেকে আসলে ফ্রিজ খুলে ঠান্ডা পানি একদমই খাবেন না। এতে হৃদরোগের সম্ভাবনা যেমন বেড়ে যায় তেমনই শরীরের আভ্যন্তরীণও ক্ষতি হয়। আর নিয়মিত ভাবে ঠান্ডা পানি খাওয়ার অভ্যাস আমাদের ওজন বাড়িয়ে দেয়। রোদের দিনে চেষ্টা করুন বাড়িতেই বিভিন্ন শরবত বানিয়ে খেতে। আম পোড়ার শরবত, বেলের পানা, লস্যি, ঘোল এসব কিন্তু শরীরের জন্য খুবই ভাল।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com