ভালোভাবে বিদায় নিতে চাইলে দুর্নীতি বন্ধ করুন: মির্জা ফখরুল

ভালোভাবে বিদায় নিতে চাইলে সরকারকে দুর্নীতি বন্ধ করতে বলেছেন বিএনপির  মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া যদি বাইরে এসে গাড়ির ভেতরে বসে অন্তত হাত দেখান তাহলে এদেশের মানুষকে কেউ আটকে রাখতে পারবে না।

 

শুক্রবার তীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনুকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে ও মুক্তির দাবিতে এক বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে ক্ষমতায় টিকে আছে। বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের আটক করে রাখার কৌশল নিয়েছে। খালেদা জিয়াকে ভয় পায় বলে তাকে মুক্তি দিচ্ছে না। বাংলাদেশের মানুষ জেগে উঠেছে, গ্রেপ্তার নির্যাতন করে আর শেষ রক্ষা হবে না।

 

সরকারের উদ্দেশে তিনি বলেন, ভালোভাবে বিদায় নিতে চাইলে দুর্নীতি বন্ধ করুন, নয়তো জনগণ জবাব দেবে। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে ক্ষমতা হস্তান্তর না করলে সরকারের রক্ষা হবে না।

 

বিএনপির এই মহাসচিব বলেন, রফিকুল আলম মজনুকে কেন গ্রেফতার করেছে। কারণ, তিনি জনপ্রিয় নেতা। সে বাইরে থাকলে আরও বেশি সংগঠন করবে। আন্দোলনকে বেগবান করবে। খালেদা জিয়া একটা হেমিলনের বংশীবাদক। তিনি তার সারাটা জীবন গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছেন।

 

তিনি দুইবার জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তাই তাকে সরকার মারাত্মকভাবে ভয় পায়। তিনি যদি বাইরে আসেন ও গাড়ির ভেতর বসে অন্তত হাত দেখান, তাহলে এদেশের মানুষকে কেউ আটকে রাখতে পারবে না। সাহস থাকলে তাকে ছেড়ে দেন, বাইরে আসতে দেন।

নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের প্রস্তুতির আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারকে পরাজিত করতে হবে। জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। সরকারকে একটা নিরপেক্ষ-নির্দলীয় নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে। সেটা একমাত্র তাদের রক্ষার উপায়। এছাড়া তাদের কোনো রক্ষা পায় নাই।

 

মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করে ক্ষমতায় এসেছে। আপনাদের নিশ্চয়ই মনে আছে, হিজাব পরে ও হাতে তজবি নিয়ে জনগণের সামনে গিয়ে বলেছিলেন অতীতে যদি কোনো ভুল ত্রুটি করে থাকি তাহলে মাফ করে দিয়েন। আমাদের একবার ভোট দেন। তখন মানুষ ভোট দিয়েছিল। তখন আরও বলেছিল ১০ টাকা কেজি চাল খাওয়াবে, বিনা পয়সায় সার দেবে ও ঘরে ঘরে চাকরি দেবে।

 

‘এখন কি তার একটাও তারা পালন করেছে, করেনি। উপরন্তু এখন ৭০ টাকা চালের দাম, সারের দাম ১০০ গুণ বেশি, চাকরি পেতে হলে আওয়ামী লীগের শিষ্য ছাড়া তো চাকরি পাওয়া যায় না, উপরন্তু ২০ লাখ টাকা ঘুস দিতে হয় কমপক্ষে। এই সরকার জনগণের বিরুদ্ধে।

 

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির, কৃষক দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, ঢাকা উত্তর বিএনপির সদস্যসচিব আমিনুল হক, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ইশরাক হোসেন প্রমুখ বক্তব্য দেন।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» অনুমতি ছাড়া বিশ্বকাপের লোগো ব্যবহার করলেই বিপদ

» ধারালো অস্ত্র নিয়ে শহর দাপিয়ে বেড়াচ্ছে বানর

» ৬০ কিলোমিটার বেগে ঝড়ের আভাস, নদীবন্দরে সতর্কতা

» দূরদর্শী নেত্রী শেখ হাসিনার জন্য দেশ এগিয়ে যাচ্ছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

» মানবিক রাষ্ট্র গড়তে এগিয়ে আসুন, সাংবাদিকদের প্রতি তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী

» নতুন সব ব্র্যান্ডের সাথে এবারে শপিংয়ের মজা আরো জমবে দারাজে

» টাঙ্গাইলের মধুপুরে আইন শৃঙ্খলা কমিটির আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

» নেত্রকোনায় বন্যাদুর্গত মানুষের পাশে হুয়াওয়ে

» ভিসা ‘এক্সিলেন্স ইন ফিনটেক’ পুরস্কার পেল নগদ

» নগরীর নয়াপাড়া মোড়ে আলহাজ্ব আজমেরী ওসমান’র জন্মবার্ষিকী পালন

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

ভালোভাবে বিদায় নিতে চাইলে দুর্নীতি বন্ধ করুন: মির্জা ফখরুল

ভালোভাবে বিদায় নিতে চাইলে সরকারকে দুর্নীতি বন্ধ করতে বলেছেন বিএনপির  মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, খালেদা জিয়া যদি বাইরে এসে গাড়ির ভেতরে বসে অন্তত হাত দেখান তাহলে এদেশের মানুষকে কেউ আটকে রাখতে পারবে না।

 

শুক্রবার তীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনুকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে ও মুক্তির দাবিতে এক বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে ক্ষমতায় টিকে আছে। বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের আটক করে রাখার কৌশল নিয়েছে। খালেদা জিয়াকে ভয় পায় বলে তাকে মুক্তি দিচ্ছে না। বাংলাদেশের মানুষ জেগে উঠেছে, গ্রেপ্তার নির্যাতন করে আর শেষ রক্ষা হবে না।

 

সরকারের উদ্দেশে তিনি বলেন, ভালোভাবে বিদায় নিতে চাইলে দুর্নীতি বন্ধ করুন, নয়তো জনগণ জবাব দেবে। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে ক্ষমতা হস্তান্তর না করলে সরকারের রক্ষা হবে না।

 

বিএনপির এই মহাসচিব বলেন, রফিকুল আলম মজনুকে কেন গ্রেফতার করেছে। কারণ, তিনি জনপ্রিয় নেতা। সে বাইরে থাকলে আরও বেশি সংগঠন করবে। আন্দোলনকে বেগবান করবে। খালেদা জিয়া একটা হেমিলনের বংশীবাদক। তিনি তার সারাটা জীবন গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছেন।

 

তিনি দুইবার জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তাই তাকে সরকার মারাত্মকভাবে ভয় পায়। তিনি যদি বাইরে আসেন ও গাড়ির ভেতর বসে অন্তত হাত দেখান, তাহলে এদেশের মানুষকে কেউ আটকে রাখতে পারবে না। সাহস থাকলে তাকে ছেড়ে দেন, বাইরে আসতে দেন।

নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের প্রস্তুতির আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারকে পরাজিত করতে হবে। জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। সরকারকে একটা নিরপেক্ষ-নির্দলীয় নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে। সেটা একমাত্র তাদের রক্ষার উপায়। এছাড়া তাদের কোনো রক্ষা পায় নাই।

 

মির্জা ফখরুল বলেন, আওয়ামী লীগ জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করে ক্ষমতায় এসেছে। আপনাদের নিশ্চয়ই মনে আছে, হিজাব পরে ও হাতে তজবি নিয়ে জনগণের সামনে গিয়ে বলেছিলেন অতীতে যদি কোনো ভুল ত্রুটি করে থাকি তাহলে মাফ করে দিয়েন। আমাদের একবার ভোট দেন। তখন মানুষ ভোট দিয়েছিল। তখন আরও বলেছিল ১০ টাকা কেজি চাল খাওয়াবে, বিনা পয়সায় সার দেবে ও ঘরে ঘরে চাকরি দেবে।

 

‘এখন কি তার একটাও তারা পালন করেছে, করেনি। উপরন্তু এখন ৭০ টাকা চালের দাম, সারের দাম ১০০ গুণ বেশি, চাকরি পেতে হলে আওয়ামী লীগের শিষ্য ছাড়া তো চাকরি পাওয়া যায় না, উপরন্তু ২০ লাখ টাকা ঘুস দিতে হয় কমপক্ষে। এই সরকার জনগণের বিরুদ্ধে।

 

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আব্দুস সালামের সভাপতিত্বে সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির, কৃষক দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, ঢাকা উত্তর বিএনপির সদস্যসচিব আমিনুল হক, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ইশরাক হোসেন প্রমুখ বক্তব্য দেন।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com