১৪ তলার এই ভবনে বাস করে পুরো শহরের মানুষ

ছবি সংগৃহীত

 

একটি ভবন, তার মধ্যেই আস্ত এক শহরের। যে শহরের মানুষের বাস, বাজার, স্কুল, হাসপাতাল, গির্জা সবই এই ভবনে। ১৪ তলা এই বিল্ডিংয়ের অবস্থান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্য আলাস্কায় অবস্থিত। একে বেগিচ টাওয়ারও বলা হয়।

 

বিশ্বজুড়ে কয়েক হাজার শহর রয়েছে। প্রায় সব শহর দেখতে একই রকম। বাড়ি-ঘর, স্কুল, কলেজ, হাসপাতাল, ধর্মীয় উপাসনালয় এসব কিছুই থাকে একটি শহরে। তবে এমন শহরের কথা আগে শুনেছেন কি? যে শহর অবস্থিত একটি বিল্ডিংয়ের মধ্যেই। যেখানে আধুনিক থেকে অত্যাধুনিক সব ধরনের সুবিধাই আছে। সেটাও আবার ওই বিল্ডিংয়ের মধ্যেই।

 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আলাস্কার হুইটিয়ার শহরটি বড় অদ্ভুদ। এই শহরের সমগ্র জনসংখ্যা একটি একক ভবনে বসবাস করেন। ভবনের ভেতরে রয়েছে নাগরিকদের সবধরনের সুযোগ সুবিধা এবং পরিষেবা। স্কুল থেকে থানা, মেয়রের কার্যালয় সবই রয়েছে এই একটি ভবনে। যাতে সেখান বসবাসকারী ব্যক্তিরা কোনো সমস্যায় পড়লে সেখানে তাদের অভিযোগ জানাতে পারেন। আশ্চর্যের বিষয় হল, এই একটি ভবনেই পুরো শহর বসবাস করে। এখানে লন্ড্রি এবং জেনারেল স্টোরের সুবিধাও রয়েছে। সেখানকার মালিক এবং কর্মচারী সবাই এই ভবনে।

ভবন বা টাওয়ার হওয়ার কারণে একে বলা হয় ভার্টিক্যাল টাউন। এই ভবনে প্রায় দুই শতাধিক পরিবার বসবাস করে। তবে অতীতে এটি কোনো শহর ছিল না। ঠান্ডা যুদ্ধের সময় এই টাওয়ারটি ছিল একটি সেনা ব্যারাক। সেই যুদ্ধের অনেক রহস্য এখনো এই ভবনে তালাবদ্ধ এমনটা দাবি করেন অনেকে। ঠান্ডা যুদ্ধ শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এবং সেনাবাহিনী ফিরে আসার সঙ্গে সঙ্গেই জনগণ এটিকে তাদের বাসভবনে পরিণত করে।

১৪ তলার এই ভবনে বাস করে পুরো শহরের মানুষ

তবে পাঠকের মনে প্রশ্ন আসতেই পারে, কেন শহরের সব মানুষ এই এক ভবনেই বাস করেন। আসলে আলাস্কার আবহাওয়া সারা বছরই খারাপ থাকে। কঠিন আবহাওয়ার হাত থেকে বাঁচতে এই বেগিচ টাওয়ারে মানুষ বসবাস করে। প্রচণ্ড ঠান্ডায় বাইরে কোথাও থাকা খুবই কঠিন।

বিজ্ঞাপন

১৪ তলার এই ভবনে বাস করে পুরো শহরের মানুষ

হুইটিয়ারের আবহাওয়ার অবস্থা এতোই খারাপ থেকে যে শীতকালে এর তাপমাত্রা নেমে আসে -২১ ºসি। ঘণ্টায় ৯৬ কিলোমিটার বেগে বাতাস ও ৬ মিটার তুষারপাত হয়। এ কারণে এই ভবন ছেড়ে লোকজন অন্য কোথাও যান না। এ কারণেই এখানে প্রয়োজনীয় প্রতিটি জিনিসপত্র তৈরি করা হয়েছে।

১৪ তলার এই ভবনে বাস করে পুরো শহরের মানুষ

৫০ জন শিশুর জন্য, ভবনটির ভূগর্ভস্থ টানেলের মাধ্যমে একটি স্কুল তৈরি করা হয়েছে। করিডোর এবং লিফটের মাধ্যমে পুরো বিল্ডিংকে সংযুক্ত করা হয়েছে। ভবনের ভেতরেই আছে হাসপাতাল।   সূএ : জাগোনিউজ২৪.কম

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» এক ডিভাইসে ২টি হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট চালাবেন

» কেন প্রভাসে মুগ্ধ দীপিকা?

» ভারতের বিপক্ষে যে একাদশ নিয়ে মাঠে নামছে বাংলাদেশ

» পূর্ব বিরোধের জেরে কুপিয়ে যুবককে হত্যা

» ট্রাক খাদে পড়ে একজন নিহত, আহত ৪

» দিল্লির রাষ্ট্রপতি ভবনে শেখ হাসিনাকে লাল গালিচা সংবর্ধনা

» আজ শনিবার রাজধানীর যেসব এলাকা-মার্কেট বন্ধ

» আগামী পাঁচ দিনের মধ্যে সারা দেশে বৃষ্টির প্রবণতা বাড়তে পারে

» প্রিয়াঙ্কার গায়ে রক্তের দাগ, কী হয়েছে নায়িকার?

» কাঁচা মরিচের কেজি ৪০০, আলু-পেঁয়াজ-মুরগিতেও অস্বস্তি

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

১৪ তলার এই ভবনে বাস করে পুরো শহরের মানুষ

ছবি সংগৃহীত

 

একটি ভবন, তার মধ্যেই আস্ত এক শহরের। যে শহরের মানুষের বাস, বাজার, স্কুল, হাসপাতাল, গির্জা সবই এই ভবনে। ১৪ তলা এই বিল্ডিংয়ের অবস্থান মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্য আলাস্কায় অবস্থিত। একে বেগিচ টাওয়ারও বলা হয়।

 

বিশ্বজুড়ে কয়েক হাজার শহর রয়েছে। প্রায় সব শহর দেখতে একই রকম। বাড়ি-ঘর, স্কুল, কলেজ, হাসপাতাল, ধর্মীয় উপাসনালয় এসব কিছুই থাকে একটি শহরে। তবে এমন শহরের কথা আগে শুনেছেন কি? যে শহর অবস্থিত একটি বিল্ডিংয়ের মধ্যেই। যেখানে আধুনিক থেকে অত্যাধুনিক সব ধরনের সুবিধাই আছে। সেটাও আবার ওই বিল্ডিংয়ের মধ্যেই।

 

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আলাস্কার হুইটিয়ার শহরটি বড় অদ্ভুদ। এই শহরের সমগ্র জনসংখ্যা একটি একক ভবনে বসবাস করেন। ভবনের ভেতরে রয়েছে নাগরিকদের সবধরনের সুযোগ সুবিধা এবং পরিষেবা। স্কুল থেকে থানা, মেয়রের কার্যালয় সবই রয়েছে এই একটি ভবনে। যাতে সেখান বসবাসকারী ব্যক্তিরা কোনো সমস্যায় পড়লে সেখানে তাদের অভিযোগ জানাতে পারেন। আশ্চর্যের বিষয় হল, এই একটি ভবনেই পুরো শহর বসবাস করে। এখানে লন্ড্রি এবং জেনারেল স্টোরের সুবিধাও রয়েছে। সেখানকার মালিক এবং কর্মচারী সবাই এই ভবনে।

ভবন বা টাওয়ার হওয়ার কারণে একে বলা হয় ভার্টিক্যাল টাউন। এই ভবনে প্রায় দুই শতাধিক পরিবার বসবাস করে। তবে অতীতে এটি কোনো শহর ছিল না। ঠান্ডা যুদ্ধের সময় এই টাওয়ারটি ছিল একটি সেনা ব্যারাক। সেই যুদ্ধের অনেক রহস্য এখনো এই ভবনে তালাবদ্ধ এমনটা দাবি করেন অনেকে। ঠান্ডা যুদ্ধ শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এবং সেনাবাহিনী ফিরে আসার সঙ্গে সঙ্গেই জনগণ এটিকে তাদের বাসভবনে পরিণত করে।

১৪ তলার এই ভবনে বাস করে পুরো শহরের মানুষ

তবে পাঠকের মনে প্রশ্ন আসতেই পারে, কেন শহরের সব মানুষ এই এক ভবনেই বাস করেন। আসলে আলাস্কার আবহাওয়া সারা বছরই খারাপ থাকে। কঠিন আবহাওয়ার হাত থেকে বাঁচতে এই বেগিচ টাওয়ারে মানুষ বসবাস করে। প্রচণ্ড ঠান্ডায় বাইরে কোথাও থাকা খুবই কঠিন।

বিজ্ঞাপন

১৪ তলার এই ভবনে বাস করে পুরো শহরের মানুষ

হুইটিয়ারের আবহাওয়ার অবস্থা এতোই খারাপ থেকে যে শীতকালে এর তাপমাত্রা নেমে আসে -২১ ºসি। ঘণ্টায় ৯৬ কিলোমিটার বেগে বাতাস ও ৬ মিটার তুষারপাত হয়। এ কারণে এই ভবন ছেড়ে লোকজন অন্য কোথাও যান না। এ কারণেই এখানে প্রয়োজনীয় প্রতিটি জিনিসপত্র তৈরি করা হয়েছে।

১৪ তলার এই ভবনে বাস করে পুরো শহরের মানুষ

৫০ জন শিশুর জন্য, ভবনটির ভূগর্ভস্থ টানেলের মাধ্যমে একটি স্কুল তৈরি করা হয়েছে। করিডোর এবং লিফটের মাধ্যমে পুরো বিল্ডিংকে সংযুক্ত করা হয়েছে। ভবনের ভেতরেই আছে হাসপাতাল।   সূএ : জাগোনিউজ২৪.কম

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com