‘হাতজোড় করছি আমাকে ফিরিয়ে দেবেন না’ মানবিক পোস্ট দিয়ে অন্যরকম প্রতারণা

হাতজোড় করছি আমাকে ফিরিয়ে দেবেন না। যদি বিশ্বাস করেন মানুষ মানুষের জন্য তবে আজকের ভিডিওটি আপনার জন্য। আমি এক অসহায় মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। একজন সর্বহারা অসুস্থ মানুষ। পরিবারসহ বেঁচে থাকার কোনো পথই নেই। সাহায্য করতে না পারেন অন্তত ভিডিওটি শেয়ার করুন। সবাইকে দেখার সুযোগ দিন যাতে সবাই সাহায্য করতে পারে। সত্যতা যাচাই করার জন্য যোগাযোগ করুন বগুড়া জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. রফিক ও উপ-পরিচালক ডা. সাজেদুর রহমানের সঙ্গে।

 

তারা আমাকে দেখেছেন। সবকিছু জানেন এবং অবগত আছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন এক মানবিক পোস্ট দিয়ে একটি চক্র দীর্ঘদিন ধরে মানুষের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। একইভাবে এক শিশুর চিকিৎসার খরচ চেয়ে সাহায্যের আবেদনের একটি পোস্ট- বাংলাদেশ পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) সভানেত্রীর নজরে আসে। তিনি ওই শিশুর বাবাকে সাহায্য করার আহ্বান জানান। শিশুর বাবাকে চিকিৎসাপত্রসহ এসে সাহায্য নেয়ার কথা বলেন। কিন্তু শিশুটির বাবা নানা টালবাহানা দেখিয়ে সাহায্য নিতে আসেননি। এর কিছুদিন পরে একই রকম আরেকটি পোস্ট দেখতে পান পুনাক সভানেত্রী। এটি দেখেই তার মনে খটকা লাগে। বিষয়টি তিনি ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটকে (সিটিটিসি) জানান। পরে সিটিটিসি’র সাইবার টিম বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করে। এক পর্যায়ে তারা একটি চক্রের সন্ধান পান।

 

গত সোমবার ধারাবাহিক অভিযান চালিয়ে রংপুর ও রাজধানীর মিরপুর থেকে চক্রের ৪ সদস্যকে গ্রেপ্তার করে সিটিটিসি’র সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- রেজাউল ইসলাম, হাফিজুল ইসলাম, মেহেদী হাসান ওরফে আকাশ ও তানভীর আহম্মেদ। এ সময় তাদের কাছ থেকে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ২৭টি ফেসবুক আইডি, ১০টি মোবাইল, বিভিন্ন মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট সংবলিত ১৫টি সিমকার্ড ও প্রতারণালব্ধ ২ লাখ টাকা জব্দ করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার রমনা মডেল থানার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে পাঠানো হয়। পরে আদালত শুনানি শেষে রাজধানীর মিরপুর থেকে গ্রেপ্তার তানভীর আহম্মেদকে ৩ দিন ও রংপুর থেকে গ্রেপ্তার অন্য ৩ জনের ২ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

 

সূত্র বলছে, চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে ফেসবুকে বিভিন্ন মানবিক পোস্ট ব্যবহার করে প্রতারণা করে আসছিল। এজন্য তারা বিভিন্ন নামে ফেসবুকে ভুয়া একাউন্ট ও গ্রুপ খোলে। পরে সেখানে অসহায়দের মানবিক পোস্টগুলো নিয়ে হুবহু পোস্ট করতো। শুধু সাহায্য পাঠানোর নাম্বারগুলোর জায়গায় নিজেদের বিকাশ, নগদ ও রকেট অ্যাকাউন্ট নাম্বার দিতো। এভাবে তারা প্রতি মাসে ২০-২৫ জন সাহায্যকারীকে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে হাতিয়ে নিতো মোটা অঙ্কের টাকা। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সাহায্যকারী বুঝতেই পারেন না, তিনি প্রতারিত হচ্ছেন। দুস্থ মানুষের কাছে তার সহযোগিতার টাকা পৌঁছাচ্ছে না।

 

সিটিটিসি সূত্র বলছে, গ্রেপ্তারকৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, ফেসবুকে মো. জুয়েল রানা ও বৈদ্যুতিক প্রকৌশলী বিশ্বাস নামে ভুয়া আইডি খোলে ‘আমরা পুরান ঢাকাবাসী’, ‘নক্সে বন্দি হাসানুর রহমান হোসাইন সাইবার টিম’, ‘হেল্প মি (আমাকে সহায়তা করুন)’ নামে গ্রুপ খোলে। গ্রুপ ৩টির মধ্যে ‘আমরা পুরান ঢাকাবাসী’ গ্রুপে ১২ হাজার, ‘নক্সে বন্দি হাসানুর রহমান হোসাইন সাইবার টিমে’ ৭৫ হাজার ও ‘হেল্প মি (আমাকে সহায়তা করুন)’ গ্রুপে ১১ হাজার সদস্য রয়েছে। ফেসবুক থেকে মানবিক পোস্ট সংগ্রহ করে নিজেদের মোবাইল ব্যাংকিং নম্বরজুড়ে দিয়ে এই গ্রুপগুলোতে পোস্ট করা হতো। এ চক্রে মারুফা আক্তার মীম ওরফে রেশমী নামে এক তরুণীও রয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত মেহেদী হাসান জানিয়েছে, গ্রেপ্তারকৃত হাফিজুল ও পলাতক থাকা রেশমীর কাছ থেকে সে এই প্রতারণা শিখেছে।

 

সিটিটিসি’র সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগের সহকারী পুলিশ কমিশনার ধ্রুব জ্যোতির্ময় গোপ  বলেন, চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে এ ধরনের প্রতারণা করে আসছিল। অসহায় মানুষের ছদ্মবেশে তারা ফেসবুকে মানবিক পোস্ট করে সাহায্যকারীকে ঠকিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়েছে। তাদের সঙ্গে আর কাদের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে সে বিষয়ে রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। চক্রের পলাতক সদস্য রেশমীকে গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সূএ: মানবজমিন

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» বিশেষ অভিযান চালিয়ে মাদকবিরোধী অভিযানে বিক্রি ও সেবনের অপরাধে ৮ জন গ্রেপ্তার

» পুলিশের তৎপরতায় ঈদে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি : ডিএমপি কমিশনার

» সংসদের দ্বিতীয় অধিবেশন বসছে ২ মে

» সরকারের নির্দেশনা উপেক্ষা করে উদীচীর অনুষ্ঠান হঠকারী ও দুঃখজনক : তথ্য প্রতিমন্ত্রী

» পাঁচবিবিতে ট্রেনের ধাক্কায় যুবকের মৃত্যু

» ব্র্যাক ব্যাংকে তিন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সিনিয়র এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে পদোন্নতি

» ইসলামপুরে মরহুম হাবিবর রহমান খান শর্টপিচ ক্রিকেট ফাইনাল অনুষ্ঠিত

» উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়ে ঈদ করেছে সবাই : আহসানুল ইসলাম টিটু

» রাজধানীর হাতিরঝিল থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার

» সদরঘাটের ঘটনায় দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা : খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

‘হাতজোড় করছি আমাকে ফিরিয়ে দেবেন না’ মানবিক পোস্ট দিয়ে অন্যরকম প্রতারণা

হাতজোড় করছি আমাকে ফিরিয়ে দেবেন না। যদি বিশ্বাস করেন মানুষ মানুষের জন্য তবে আজকের ভিডিওটি আপনার জন্য। আমি এক অসহায় মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। একজন সর্বহারা অসুস্থ মানুষ। পরিবারসহ বেঁচে থাকার কোনো পথই নেই। সাহায্য করতে না পারেন অন্তত ভিডিওটি শেয়ার করুন। সবাইকে দেখার সুযোগ দিন যাতে সবাই সাহায্য করতে পারে। সত্যতা যাচাই করার জন্য যোগাযোগ করুন বগুড়া জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. রফিক ও উপ-পরিচালক ডা. সাজেদুর রহমানের সঙ্গে।

 

তারা আমাকে দেখেছেন। সবকিছু জানেন এবং অবগত আছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এমন এক মানবিক পোস্ট দিয়ে একটি চক্র দীর্ঘদিন ধরে মানুষের কাছ থেকে লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। একইভাবে এক শিশুর চিকিৎসার খরচ চেয়ে সাহায্যের আবেদনের একটি পোস্ট- বাংলাদেশ পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতি (পুনাক) সভানেত্রীর নজরে আসে। তিনি ওই শিশুর বাবাকে সাহায্য করার আহ্বান জানান। শিশুর বাবাকে চিকিৎসাপত্রসহ এসে সাহায্য নেয়ার কথা বলেন। কিন্তু শিশুটির বাবা নানা টালবাহানা দেখিয়ে সাহায্য নিতে আসেননি। এর কিছুদিন পরে একই রকম আরেকটি পোস্ট দেখতে পান পুনাক সভানেত্রী। এটি দেখেই তার মনে খটকা লাগে। বিষয়টি তিনি ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটকে (সিটিটিসি) জানান। পরে সিটিটিসি’র সাইবার টিম বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করে। এক পর্যায়ে তারা একটি চক্রের সন্ধান পান।

 

গত সোমবার ধারাবাহিক অভিযান চালিয়ে রংপুর ও রাজধানীর মিরপুর থেকে চক্রের ৪ সদস্যকে গ্রেপ্তার করে সিটিটিসি’র সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- রেজাউল ইসলাম, হাফিজুল ইসলাম, মেহেদী হাসান ওরফে আকাশ ও তানভীর আহম্মেদ। এ সময় তাদের কাছ থেকে প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ২৭টি ফেসবুক আইডি, ১০টি মোবাইল, বিভিন্ন মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট সংবলিত ১৫টি সিমকার্ড ও প্রতারণালব্ধ ২ লাখ টাকা জব্দ করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার রমনা মডেল থানার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করে আদালতে পাঠানো হয়। পরে আদালত শুনানি শেষে রাজধানীর মিরপুর থেকে গ্রেপ্তার তানভীর আহম্মেদকে ৩ দিন ও রংপুর থেকে গ্রেপ্তার অন্য ৩ জনের ২ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

 

সূত্র বলছে, চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে ফেসবুকে বিভিন্ন মানবিক পোস্ট ব্যবহার করে প্রতারণা করে আসছিল। এজন্য তারা বিভিন্ন নামে ফেসবুকে ভুয়া একাউন্ট ও গ্রুপ খোলে। পরে সেখানে অসহায়দের মানবিক পোস্টগুলো নিয়ে হুবহু পোস্ট করতো। শুধু সাহায্য পাঠানোর নাম্বারগুলোর জায়গায় নিজেদের বিকাশ, নগদ ও রকেট অ্যাকাউন্ট নাম্বার দিতো। এভাবে তারা প্রতি মাসে ২০-২৫ জন সাহায্যকারীকে প্রতারণার ফাঁদে ফেলে হাতিয়ে নিতো মোটা অঙ্কের টাকা। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সাহায্যকারী বুঝতেই পারেন না, তিনি প্রতারিত হচ্ছেন। দুস্থ মানুষের কাছে তার সহযোগিতার টাকা পৌঁছাচ্ছে না।

 

সিটিটিসি সূত্র বলছে, গ্রেপ্তারকৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, ফেসবুকে মো. জুয়েল রানা ও বৈদ্যুতিক প্রকৌশলী বিশ্বাস নামে ভুয়া আইডি খোলে ‘আমরা পুরান ঢাকাবাসী’, ‘নক্সে বন্দি হাসানুর রহমান হোসাইন সাইবার টিম’, ‘হেল্প মি (আমাকে সহায়তা করুন)’ নামে গ্রুপ খোলে। গ্রুপ ৩টির মধ্যে ‘আমরা পুরান ঢাকাবাসী’ গ্রুপে ১২ হাজার, ‘নক্সে বন্দি হাসানুর রহমান হোসাইন সাইবার টিমে’ ৭৫ হাজার ও ‘হেল্প মি (আমাকে সহায়তা করুন)’ গ্রুপে ১১ হাজার সদস্য রয়েছে। ফেসবুক থেকে মানবিক পোস্ট সংগ্রহ করে নিজেদের মোবাইল ব্যাংকিং নম্বরজুড়ে দিয়ে এই গ্রুপগুলোতে পোস্ট করা হতো। এ চক্রে মারুফা আক্তার মীম ওরফে রেশমী নামে এক তরুণীও রয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত মেহেদী হাসান জানিয়েছে, গ্রেপ্তারকৃত হাফিজুল ও পলাতক থাকা রেশমীর কাছ থেকে সে এই প্রতারণা শিখেছে।

 

সিটিটিসি’র সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগের সহকারী পুলিশ কমিশনার ধ্রুব জ্যোতির্ময় গোপ  বলেন, চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে এ ধরনের প্রতারণা করে আসছিল। অসহায় মানুষের ছদ্মবেশে তারা ফেসবুকে মানবিক পোস্ট করে সাহায্যকারীকে ঠকিয়ে লাখ লাখ টাকা হাতিয়েছে। তাদের সঙ্গে আর কাদের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে সে বিষয়ে রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। চক্রের পলাতক সদস্য রেশমীকে গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। সূএ: মানবজমিন

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com