সোনারগাঁও দেশি-বিদেশি দর্শনার্থীদের কাছে একটি আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্রে পরিণত হবে ——প্রতিমন্ত্রী কে. এম. খালিদ

মোঃশফিকুল ইসলাম আরজু : সোনারগাঁওয়ে মাসব্যাপী লোককারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শুভ উদ্বোধন করেন- সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে. এম. খালিদ।

 

মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারী) বেলা বিকালে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন প্রাঙ্গণে আনুষ্ঠানিকভাবে শুভ উদ্বোধন হয়। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় সচিব মোঃ আবুল মনসুর’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ মঞ্জুরুল হাফিজ, নারায়ণগঞ্জ-৩ এর সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল কায়সার, নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ বিল্লাল হোসেন, সোনারগাঁও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সামসুল ইসলাম ভূঁইয়া, সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌহিদ এলাহী ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার সোনারগাঁও উপজেলা কমান্ড ওসমান গণি।স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের পরিচালক ড. আহমেদ উল্লাহ। প্রতিমন্ত্রী কে. এম. খালিদ এমপি উদ্বোধনকালে বলেন- এই লোকজ উৎসব আমাদের সংস্কৃতির অংশ। সংস্কৃতিকে তুলে ধরে এই মেলা। বাঙালির ইতিহাস ও ঐতিহ্য ফুটে উঠে মেলায়। ১৪৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের জাদুঘর ভবনসহ অন্যান্য ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ ও সংস্কার কাজ’ শীর্ষক প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে।

 

এ প্রকল্পের আওতায় জাদুঘর ভবন সম্প্রসারণের মাধ্যমে আরো অধিকসংখ্যক ঐতিহ্যবাহী লোককারুশিল্পের নিদর্শন প্রদর্শন করা সম্ভব হবে। ভৌত অবকাঠামো সম্প্রসারণের মাধ্যমে সুবিধা বৃদ্ধি করে অধিকসংখ্যক দর্শনার্থীর ফাউন্ডেশন পরিদর্শন নিশ্চিত করা যাবে।বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পে অডিটোরিয়াম ভবন নির্মাণ, লোকজ রেঁস্তোরা নির্মাণ, লোকজ ঘাট নির্মাণ, বৈদ্যুতিকরণ, মেলার ময়দান উন্নয়ন, লেক পুনঃখনন, লেকের পাড় রক্ষা ও সেতু নির্মাণ করা হবে। ইতোমধ্যে এসব অবকাঠামোর কাজ এগিয়ে চলছে।বহু প্রতীক্ষিত সোনারগাঁওয়ের পানাম সিটির একটি ভবনের রেস্টোরেশন কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। তিনি আরো বলেন, অন্যান্য ভবনসমূহের রেস্টোরেশন কাজ অচিরেই শুরু করতে পারবো বলে আমার বিশ্বাস। চলমান উন্নয়ন কাজ শেষ হলে সোনারগাঁও দেশি-বিদেশি দর্শনার্থীদের কাছে একটি আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্রে পরিণত হবে। সোনারগাঁও এর ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে সেই সাথে দেশ সহ বিশ্বে প্রচার তুলে ধরতে মাস ব্যাপী এ মেলার আয়োজন করা হয়। বিশ্বে পর্যটন নগরী হিসেবে তুলে ধরতে নতুন বাজেট বরাদ্দ করে নবরুপে নান্দনিক সৌন্দর্যে সোনারগাঁও এর লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনকে সাজানো হবে বলে উপস্থিত অতিথিগণ সকলেই বক্তব্যে তুলে ধরেন। এবারের মেলার আকর্ষণ গ্রামীণ লোকজ সংস্কৃতির অন্যতম মাধ্যম ‘ভালোবাসার তামা-কাঁসা-পিতল শিল্পের’ বিশেষ প্রদর্শনী। ফাউন্ডেশন সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশের পল্লী অঞ্চল থেকে ৬০ জন কারুশিল্পী মেলায় প্রদর্শনীতে অংশ নিচ্ছেন। তাদের জন্য ৩০টি স্টল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ঝিনাইদহ ও মাগুরার শোলা শিল্প, রাজশাহীর শখের হাঁড়ি, চট্রগ্রামের নকশিপাখা, রংপুরের শতরঞ্জি, সোনারগাঁও এর হাতি ঘোড়া পুতুল ও কাঠের কারুশিল্প, নকশিকাঁথা, নকশি হাতপাখা, মুন্সিগঞ্জের শীতলপাটি, মানিকগঞ্জের তামা-কাঁসা পিতলের কারুশিল্প, রাঙামাটি ও বান্দরবান জেলার ক্ষুদ্র-নৃ-গোষ্ঠীর কারুপণ্য, কিশোরগঞ্জের টেরা কোটা শিল্প, সোনারগাঁও এর পাটের কারুশিল্প, নাটোরের শোলার মুখোশ শিল্প, মুন্সিগঞ্জের পট চিত্র, ঢাকার কাগজের হস্তশিল্প সহ বেশ কিছু স্টল থাকছে মেলায়।

 

এছাড়াও লোককারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসবে প্রতিদিনই থাকছে- দর্শনার্থীদেও জন্য মঞ্চে বাউলগান, পালাগান, কবিগান, ভাওয়াইয়া ও ভাটিয়ালী গান, জারি-সারি ও হাছন রাজার গান, লালন সংগীত, মাইজভান্ডারী, মুর্শিদী গান, ক্ষুদ্র-নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পিঠা প্রদর্শনী ইত্যাদি।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» ১৫ টাকায় ম্যাগনেট মামার খিচুড়ি

» একাত্তর ছেড়ে ডিবিসিতে যোগ দিলেন নাজনীন মুন্নী

» উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে দুর্বৃত্তের গুলিতে শিশু নিহত

» প্রশ্নফাঁস চেষ্টাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে :

» থানাকে জনগণের ভরসাস্থল করতে চাই: আইজিপি

» করোনা আক্রান্ত মেয়র আতিক

» চুমু নিয়ে রাশমিকার তিক্ত অভিজ্ঞতা

» আপিল বিভাগে জানা যাবে শিশুটির বাবা কে?

» সমুদ্রবন্দরে তিন নম্বর সতর্ক সংকেত, নদীবন্দরে ১

» মোবাইল ছিনিয়ে পালানোর সময় ছিনতাইকারী আটক

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

সোনারগাঁও দেশি-বিদেশি দর্শনার্থীদের কাছে একটি আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্রে পরিণত হবে ——প্রতিমন্ত্রী কে. এম. খালিদ

মোঃশফিকুল ইসলাম আরজু : সোনারগাঁওয়ে মাসব্যাপী লোককারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে শুভ উদ্বোধন করেন- সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে. এম. খালিদ।

 

মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারী) বেলা বিকালে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন প্রাঙ্গণে আনুষ্ঠানিকভাবে শুভ উদ্বোধন হয়। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় সচিব মোঃ আবুল মনসুর’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোঃ মঞ্জুরুল হাফিজ, নারায়ণগঞ্জ-৩ এর সাবেক সংসদ সদস্য আব্দুল্লাহ আল কায়সার, নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ বিল্লাল হোসেন, সোনারগাঁও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সামসুল ইসলাম ভূঁইয়া, সোনারগাঁও উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌহিদ এলাহী ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার সোনারগাঁও উপজেলা কমান্ড ওসমান গণি।স্বাগত বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের পরিচালক ড. আহমেদ উল্লাহ। প্রতিমন্ত্রী কে. এম. খালিদ এমপি উদ্বোধনকালে বলেন- এই লোকজ উৎসব আমাদের সংস্কৃতির অংশ। সংস্কৃতিকে তুলে ধরে এই মেলা। বাঙালির ইতিহাস ও ঐতিহ্য ফুটে উঠে মেলায়। ১৪৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ‘বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের জাদুঘর ভবনসহ অন্যান্য ভৌত অবকাঠামো নির্মাণ ও সংস্কার কাজ’ শীর্ষক প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে।

 

এ প্রকল্পের আওতায় জাদুঘর ভবন সম্প্রসারণের মাধ্যমে আরো অধিকসংখ্যক ঐতিহ্যবাহী লোককারুশিল্পের নিদর্শন প্রদর্শন করা সম্ভব হবে। ভৌত অবকাঠামো সম্প্রসারণের মাধ্যমে সুবিধা বৃদ্ধি করে অধিকসংখ্যক দর্শনার্থীর ফাউন্ডেশন পরিদর্শন নিশ্চিত করা যাবে।বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পে অডিটোরিয়াম ভবন নির্মাণ, লোকজ রেঁস্তোরা নির্মাণ, লোকজ ঘাট নির্মাণ, বৈদ্যুতিকরণ, মেলার ময়দান উন্নয়ন, লেক পুনঃখনন, লেকের পাড় রক্ষা ও সেতু নির্মাণ করা হবে। ইতোমধ্যে এসব অবকাঠামোর কাজ এগিয়ে চলছে।বহু প্রতীক্ষিত সোনারগাঁওয়ের পানাম সিটির একটি ভবনের রেস্টোরেশন কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। তিনি আরো বলেন, অন্যান্য ভবনসমূহের রেস্টোরেশন কাজ অচিরেই শুরু করতে পারবো বলে আমার বিশ্বাস। চলমান উন্নয়ন কাজ শেষ হলে সোনারগাঁও দেশি-বিদেশি দর্শনার্থীদের কাছে একটি আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্রে পরিণত হবে। সোনারগাঁও এর ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে সেই সাথে দেশ সহ বিশ্বে প্রচার তুলে ধরতে মাস ব্যাপী এ মেলার আয়োজন করা হয়। বিশ্বে পর্যটন নগরী হিসেবে তুলে ধরতে নতুন বাজেট বরাদ্দ করে নবরুপে নান্দনিক সৌন্দর্যে সোনারগাঁও এর লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনকে সাজানো হবে বলে উপস্থিত অতিথিগণ সকলেই বক্তব্যে তুলে ধরেন। এবারের মেলার আকর্ষণ গ্রামীণ লোকজ সংস্কৃতির অন্যতম মাধ্যম ‘ভালোবাসার তামা-কাঁসা-পিতল শিল্পের’ বিশেষ প্রদর্শনী। ফাউন্ডেশন সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশের পল্লী অঞ্চল থেকে ৬০ জন কারুশিল্পী মেলায় প্রদর্শনীতে অংশ নিচ্ছেন। তাদের জন্য ৩০টি স্টল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ঝিনাইদহ ও মাগুরার শোলা শিল্প, রাজশাহীর শখের হাঁড়ি, চট্রগ্রামের নকশিপাখা, রংপুরের শতরঞ্জি, সোনারগাঁও এর হাতি ঘোড়া পুতুল ও কাঠের কারুশিল্প, নকশিকাঁথা, নকশি হাতপাখা, মুন্সিগঞ্জের শীতলপাটি, মানিকগঞ্জের তামা-কাঁসা পিতলের কারুশিল্প, রাঙামাটি ও বান্দরবান জেলার ক্ষুদ্র-নৃ-গোষ্ঠীর কারুপণ্য, কিশোরগঞ্জের টেরা কোটা শিল্প, সোনারগাঁও এর পাটের কারুশিল্প, নাটোরের শোলার মুখোশ শিল্প, মুন্সিগঞ্জের পট চিত্র, ঢাকার কাগজের হস্তশিল্প সহ বেশ কিছু স্টল থাকছে মেলায়।

 

এছাড়াও লোককারুশিল্প মেলা ও লোকজ উৎসবে প্রতিদিনই থাকছে- দর্শনার্থীদেও জন্য মঞ্চে বাউলগান, পালাগান, কবিগান, ভাওয়াইয়া ও ভাটিয়ালী গান, জারি-সারি ও হাছন রাজার গান, লালন সংগীত, মাইজভান্ডারী, মুর্শিদী গান, ক্ষুদ্র-নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও পিঠা প্রদর্শনী ইত্যাদি।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com