বিস্ময়কর তুষার চাঁদ আসলে কী?

পূর্ণিমার চাঁদ সবাইকে রোমাঞ্চিত করে। কবি সাহিত্যিকরা তো বটেই সাধারণ মানুষও পূর্ণিমার সৌন্দর্য উপভোগ করেন ঘটা করে। জানেন কি, আজ আকাশের দিকে তাকালেই সাক্ষী হবেন এই ঐতিহাসিক সময়ের। দেখা মিলবে বিরল তুষার চাঁদ বা স্নো মুনের।

 

মার্কিন স্পেস এজেন্সি নাসা জানায়, বুধবার (১৬ ফেব্রুয়ারি-১৭ ফেব্রুয়ারি) থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত রাতের আকাশে স্নো মুন দেখা যাবে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন বুধবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

এদিন শুধু স্নো মুনই নয়, আকাশের উত্তর গোলার্ধে হারবিঙ্গার অব স্প্রিং নামে একটি উজ্জ্বল নক্ষত্রেরও দেখা মিলবে বলে জানিয়েছে নাসা। প্রতি বছর এই সময়টাতে অর্থাৎ ফেব্রুয়ারিতে দৃশ্যমান এই পূর্ণিমার চাঁদ। যেটি স্নো মুন নামে পরিচিত। অনেকে একে স্টর্ম মুনও বলে থাকেন।

 

মূলত বছরের এই সময়টাতে পৃথিবীর অনেক জায়গায় প্রবল তুষারপাত হয় বলে এই নামকরণ করা হয়েছে। এছাড়া বছরের এই সময় তুষার ও ঝড়ো আবহাওয়ায় শিকারে যান অনেকে। এজন্য এই চাঁদকে হাঙ্গার মুন এবং ফেব্রুয়ারি মুনও বলা হয়।

 

এই চাঁদের আরেকটি নাম ক্যান্ডেল মুন। প্রাচীন ইউরোপে এই নামে ডাকা হতো ফেব্রুয়ারির পূর্ণিমাকে। কারণ ২ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হওয়া খ্রিস্টান উৎসব ক্যান্ডেল মাসের সময়ে এই পূর্ণিমার চাঁদ আকাশে দেখা যায়।

 

ফেব্রুয়ারির এই পূর্ণিমা বৌদ্ধ ধর্মেও গুরুত্ব বহন করে। এই সময়ই বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা মাঘী পূর্ণিমা পালন করে। এই মাঘী পূর্ণিমাতেই বুদ্ধ ও তার প্রথম ১২৫০ অনুসারী ঐতিহাসিক সমাবেশে মিলিত হয়েছিল।

জানেন কি? চাঁদের এই ধরনের নাম দেওয়ার চল শুরু হয় ১৯৩০ সালে। তখন নেটিভ আমেরিকান নামগুলো মায়েন ফার্মার্স অ্যালমানাতে প্রকাশিত হয়েছিল।

 

ফাল্গুনের শুরুতেই এমন একটি ঐতিহাসিক পূর্ণিমা উপভোগ করুন প্রিয়জনের সঙ্গে। চলে যেতে পারেন সমুদ্রের ধারে কিংবা পাহাড়ের চূড়ায়।

 

আমাদের দেশে তো তুষারের মধ্যে বসে পূর্ণিমা উপভোগ করার সুযোগ নেই। তাই বিকল্প ব্যবস্থা। চাইলে খোলা মাঠে ক্যাম্প করে থাকতে পারেন আজকের রাতটা। সঙ্গী হোক প্রিয় মানুষ কিংবা বন্ধুরা। সাক্ষী থাকুক তুষার চাঁদ আপনাদের এই সুন্দর মুহূর্তের।

বিস্ময়কর তুষার চাঁদ আসলে কী?

তবে যারা আজকের চাঁদটি উপভোগ করার সুযোগ পাবেন না তাদের হতাশ হওয়ার কিছু নেই। এ বছর অর্থাৎ ২০২২ সালে আরও ১০টি পূর্ণিমা দেখা যাবে। যার মধ্যে দুইবার আকাশে দেখা মিলবে সুপারমুনের। ফার্মার্স অ্যালমানাক অনুযায়ী ২০২২ সালে আরও যেসব পূর্ণিমা দেখা যাবে তার তালিকা ও সময় জেনে নিন-

> মার্চ মাসের ১৮ তারিখ দেখা যাবে ওয়ার্ম মুন।
> এপ্রিলের ১৬ তারিখ পিঙ্ক মুন।
> মে মাসের ১৬ তারিখ আসছে ফ্লাওয়ার মুন।
> এর ঠিক পরের মাস অর্থাৎ জুনের ১৪ তারিখ দেখা মিলবে স্ট্রবেরি মুনের।
> জুলাই মাসের ১৩ তারিখ দেখা যাবে ব্লাক মুন।
> আগস্টের ১১ তারিখ স্টারজন মুনের দেখা পাবেন।
> সেপ্টেম্বর মাসের ১০ তারিখে হার্ভেস্ট মুন।
> অক্টোবরের ৯ তারিখ হান্টার মুন।
> পরের মাস অর্থাৎ নভেম্বরের ৮ তারিখ বিভার মুন। এবং
> বছরের শেষ মাস ডিসেম্বরের ৭ তারিখ দেখা মিলবে কোল্ড মুন।

তবে এই মাসে স্কাইগ্যাজাররা পূর্ণিমা ছাড়া আরও কিছুর সাক্ষী হতে পারেন। এই মাসে সৌরজগতের সবচেয়ে ভেতরের গ্রহ বুধ শুধুমাত্র সূর্যোদয় বা সূর্যাস্তের সময় দেখা যায়। বড় টেলিস্কোপে অর্ধ আলোকিত বুধ দেখার সৌভাগ্য অর্জন করতে পারেন।

 

আর্থস্কাই অনুসারে, ক্ষুদ্রতম গ্রহটির এই আভাসের কারণ হচ্ছে বছরে প্রায় ছয় বার বুধ পৃথিবীর দৃষ্টিকোণ থেকে সূর্যের একপাশে ঘুরতে থাকে। বুধ যখন সূর্য থেকে সবার চেয়ে দূরে থাকে, তখন এটি অনেকবেশি আলোকিত হয়ে যায়।  সূত্র: লাইভসায়েন্স

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» ।। আজ তুমি আমি ভিন্ন গ্রহের বাসিন্দা এক।।।

» পঙ্কজ উদাস আর নেই

» স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এগিয়ে চলছে বাংলাদেশ-ধর্মমন্ত্রী

» দেশের ‘সবচেয়ে দ্রুতগতির মোবাইল নেটওয়ার্ক’-এর স্বীকৃতি পেয়েছে বাংলালিংক

» মঙ্গলবার গ্যাস থাকবে না রাজধানীর যেসব এলাকায়

» মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি গ্রেফতার

» বাইডেনকে হারাতে পারবেন না ট্রাম্প, বললেন নিকি হ্যালি

» বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যুবককে হত্যার অভিযোগ

» গণধর্ষণ মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি ২১ বছর পর গ্রেফতার

» কারাগারে নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত কয়েদির মৃত্যু

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

বিস্ময়কর তুষার চাঁদ আসলে কী?

পূর্ণিমার চাঁদ সবাইকে রোমাঞ্চিত করে। কবি সাহিত্যিকরা তো বটেই সাধারণ মানুষও পূর্ণিমার সৌন্দর্য উপভোগ করেন ঘটা করে। জানেন কি, আজ আকাশের দিকে তাকালেই সাক্ষী হবেন এই ঐতিহাসিক সময়ের। দেখা মিলবে বিরল তুষার চাঁদ বা স্নো মুনের।

 

মার্কিন স্পেস এজেন্সি নাসা জানায়, বুধবার (১৬ ফেব্রুয়ারি-১৭ ফেব্রুয়ারি) থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত রাতের আকাশে স্নো মুন দেখা যাবে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন বুধবার এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে।

এদিন শুধু স্নো মুনই নয়, আকাশের উত্তর গোলার্ধে হারবিঙ্গার অব স্প্রিং নামে একটি উজ্জ্বল নক্ষত্রেরও দেখা মিলবে বলে জানিয়েছে নাসা। প্রতি বছর এই সময়টাতে অর্থাৎ ফেব্রুয়ারিতে দৃশ্যমান এই পূর্ণিমার চাঁদ। যেটি স্নো মুন নামে পরিচিত। অনেকে একে স্টর্ম মুনও বলে থাকেন।

 

মূলত বছরের এই সময়টাতে পৃথিবীর অনেক জায়গায় প্রবল তুষারপাত হয় বলে এই নামকরণ করা হয়েছে। এছাড়া বছরের এই সময় তুষার ও ঝড়ো আবহাওয়ায় শিকারে যান অনেকে। এজন্য এই চাঁদকে হাঙ্গার মুন এবং ফেব্রুয়ারি মুনও বলা হয়।

 

এই চাঁদের আরেকটি নাম ক্যান্ডেল মুন। প্রাচীন ইউরোপে এই নামে ডাকা হতো ফেব্রুয়ারির পূর্ণিমাকে। কারণ ২ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হওয়া খ্রিস্টান উৎসব ক্যান্ডেল মাসের সময়ে এই পূর্ণিমার চাঁদ আকাশে দেখা যায়।

 

ফেব্রুয়ারির এই পূর্ণিমা বৌদ্ধ ধর্মেও গুরুত্ব বহন করে। এই সময়ই বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা মাঘী পূর্ণিমা পালন করে। এই মাঘী পূর্ণিমাতেই বুদ্ধ ও তার প্রথম ১২৫০ অনুসারী ঐতিহাসিক সমাবেশে মিলিত হয়েছিল।

জানেন কি? চাঁদের এই ধরনের নাম দেওয়ার চল শুরু হয় ১৯৩০ সালে। তখন নেটিভ আমেরিকান নামগুলো মায়েন ফার্মার্স অ্যালমানাতে প্রকাশিত হয়েছিল।

 

ফাল্গুনের শুরুতেই এমন একটি ঐতিহাসিক পূর্ণিমা উপভোগ করুন প্রিয়জনের সঙ্গে। চলে যেতে পারেন সমুদ্রের ধারে কিংবা পাহাড়ের চূড়ায়।

 

আমাদের দেশে তো তুষারের মধ্যে বসে পূর্ণিমা উপভোগ করার সুযোগ নেই। তাই বিকল্প ব্যবস্থা। চাইলে খোলা মাঠে ক্যাম্প করে থাকতে পারেন আজকের রাতটা। সঙ্গী হোক প্রিয় মানুষ কিংবা বন্ধুরা। সাক্ষী থাকুক তুষার চাঁদ আপনাদের এই সুন্দর মুহূর্তের।

বিস্ময়কর তুষার চাঁদ আসলে কী?

তবে যারা আজকের চাঁদটি উপভোগ করার সুযোগ পাবেন না তাদের হতাশ হওয়ার কিছু নেই। এ বছর অর্থাৎ ২০২২ সালে আরও ১০টি পূর্ণিমা দেখা যাবে। যার মধ্যে দুইবার আকাশে দেখা মিলবে সুপারমুনের। ফার্মার্স অ্যালমানাক অনুযায়ী ২০২২ সালে আরও যেসব পূর্ণিমা দেখা যাবে তার তালিকা ও সময় জেনে নিন-

> মার্চ মাসের ১৮ তারিখ দেখা যাবে ওয়ার্ম মুন।
> এপ্রিলের ১৬ তারিখ পিঙ্ক মুন।
> মে মাসের ১৬ তারিখ আসছে ফ্লাওয়ার মুন।
> এর ঠিক পরের মাস অর্থাৎ জুনের ১৪ তারিখ দেখা মিলবে স্ট্রবেরি মুনের।
> জুলাই মাসের ১৩ তারিখ দেখা যাবে ব্লাক মুন।
> আগস্টের ১১ তারিখ স্টারজন মুনের দেখা পাবেন।
> সেপ্টেম্বর মাসের ১০ তারিখে হার্ভেস্ট মুন।
> অক্টোবরের ৯ তারিখ হান্টার মুন।
> পরের মাস অর্থাৎ নভেম্বরের ৮ তারিখ বিভার মুন। এবং
> বছরের শেষ মাস ডিসেম্বরের ৭ তারিখ দেখা মিলবে কোল্ড মুন।

তবে এই মাসে স্কাইগ্যাজাররা পূর্ণিমা ছাড়া আরও কিছুর সাক্ষী হতে পারেন। এই মাসে সৌরজগতের সবচেয়ে ভেতরের গ্রহ বুধ শুধুমাত্র সূর্যোদয় বা সূর্যাস্তের সময় দেখা যায়। বড় টেলিস্কোপে অর্ধ আলোকিত বুধ দেখার সৌভাগ্য অর্জন করতে পারেন।

 

আর্থস্কাই অনুসারে, ক্ষুদ্রতম গ্রহটির এই আভাসের কারণ হচ্ছে বছরে প্রায় ছয় বার বুধ পৃথিবীর দৃষ্টিকোণ থেকে সূর্যের একপাশে ঘুরতে থাকে। বুধ যখন সূর্য থেকে সবার চেয়ে দূরে থাকে, তখন এটি অনেকবেশি আলোকিত হয়ে যায়।  সূত্র: লাইভসায়েন্স

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com