ন্যাপের সঙ্গে যুগপৎ আন্দোলনে একমত বিএনপি

সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে দেশে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে রাজপথে যুগপৎ আন্দোলন গড়ে তোলার বিষয়ে ন্যাপ ভাসানী’র সঙ্গে ঐক্যমতে পৌঁছেছে বিএনপি।

 

রোববার রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-ভাসানীর সঙ্গে সংলাপ শেষে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের এ কথা জানান। এর আগে সন্ধ্যা ৭টায় শুরু হওয়া দুই দলের সংলাপ চলে প্রায় এক ঘণ্টা।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বর্তমান আওয়ামী দুঃশাসনের বিরুদ্ধে সব রাজনৈতিক দলকে উদ্বুদ্ধ করার প্রচেষ্টায় আমরা রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপের কর্মসূচি নিয়েছি। এরই অংশ হিসেবে আজ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-ন্যাপ ভাসানীর সঙ্গে সংলাপ হয়েছে।

 

তিনি বলেন, সংলাপ অত্যন্ত ফলপ্রসূ হয়েছে। জোর করে ক্ষমতা দখলকারী, রাষ্ট্রের সব প্রতিষ্ঠান ধ্বংসকারী বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠার বিষয়ে আমরা একমত হয়েছি।

 

আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে ফখরুল বলেন, জনগণের প্রতিফলন ঘটিয়ে একটি সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতা হস্তান্তরের সব পথ তারা সম্পূর্ণভাবে রুদ্ধ করে দিয়েছে। সে কারণে গণঅভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে এ সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে হবে। সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। এটিই জাতির সামনে আজ বড় প্রয়োজন।

 

তিনি বলেন, গণতন্ত্রের নেত্রী খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজা দিয়ে কারান্তরীণ করে রাখা হয়েছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না। তার মুক্তি নিশ্চিত করতে হবে। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে মিথ্যে মামলায় সাজা দিয়ে নির্বাসিত করে রাখা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে এবং দেশের প্রায় ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে যে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে তা প্রত্যাহার এবং একইসঙ্গে বর্তমান সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করতে হবে। সংসদ বিলুপ্ত করে নতুন নির্বাচন কমিশনের মধ্য দিয়ে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আন্দোলনে অংশগ্রহণকারীদের নিয়ে নির্বাচন পরবর্তী সময়ে একটি জাতীয় সরকার গঠনের প্রস্তাব আমরা দিয়েছি। আমরা আলোচনা করেছি এবং আলোচনায় একমত হয়েছি যে, এ বিষয়ে গণআন্দোলন গড়ে তুলে সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করতে হবে। আমরা যুগপৎ আন্দোলনের ব্যাপারে একমত হয়েছি। আমরা যার যার অবস্থান থেকে আন্দোলন শুরু করবো। আন্দোলনের ধারা অনুযায়ী পরবর্তী সময়ের করণীয় ঠিক করা হবে।

 

এসময় ন্যাপ ভাসানীর সভাপতি অ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলাম বলেন, বিএনপি হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় দল। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ৭৫ শতাংশ আসন পাবে বিএনপি। কিন্তু বর্তমান কর্তৃত্ববাদী সরকার ফ্যাসিবাদী সরকার ভোট ডাকাতির মাধ্যমে জোর করে ক্ষমতায় বসে আছে।

 

সংলাপে বিএনপি মহাসচিবের সঙ্গে ছিলেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

 

ন্যাপ ভাসানী চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. আজহারুল ইসলামের নেতৃত্বে দলটির ১০ সদস্যের প্রতিনিধি দলে ছিলেন- ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ইঞ্জিনিয়ার রফিকুল ইসলাম মিন্টু, প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. নুরুল আমিন, ভাইস-চেয়ারম্যান গাজী আমিন উল্লাহ, উপদেষ্টা মো. আলতাফ হোসেন, অতিরিক্ত মহাসচিব অ্যাডভোকেট মো. আকমল হোসেন, ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক ন্যাপ ভাসানী মো. আজমল হোসেন, সভাপতি যুব ন্যাপ মো. শাহিন আলম, সাধারণ সম্পাদক যুব ন্যাপ মো. আয়নাল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক যুব ন্যাপ মো. সাকিব মিয়া, সাধারণ সম্পাদক বিপ্লবী ছাত্র ইউনিয়ন ন্যাপ মো. লুৎফর রহমান।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» রোজার আগেই ভার‌ত থে‌কে দে‌শে পেঁয়াজ ঢুক‌বে : ড. হাছান মাহমুদ

» ‘ভূমি জোনিং ও সুরক্ষা আইন, ২০২৪’-এর খসড়া মতামতের জন্য উন্মুক্ত

» আগামীর বাসযোগ্য বিশ্বমানের সুবিধা সংবলিত বাংলাদেশ গড়তে চান শেখ হাসিনা – ধর্মমন্ত্রী

» এসএমই লিডার্স কনফারেন্স ২০২৪ আয়োজন করেছে ব্র্যাক ব্যাংক

» ঢাবি ‘গ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত, প্রতি আসনে লড়েছে ৩৬ জন

» ‘স্বাস্থ্যসেবা সহজলভ্য করতে সরকার নিরন্তর প্রয়াস চালাচ্ছে’

» আমরা লোভ লালসা থেকে দূরে থাকতে পারি না: জি এম কাদের

» কেন্দ্রীয় কারাগারে হাজতির মৃত্যু

» ঢাকায় আসছেন বিশ্বব্যাংকের এমডি

» বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে বালকের মৃত্যু

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

ন্যাপের সঙ্গে যুগপৎ আন্দোলনে একমত বিএনপি

সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে দেশে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে রাজপথে যুগপৎ আন্দোলন গড়ে তোলার বিষয়ে ন্যাপ ভাসানী’র সঙ্গে ঐক্যমতে পৌঁছেছে বিএনপি।

 

রোববার রাতে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-ভাসানীর সঙ্গে সংলাপ শেষে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের এ কথা জানান। এর আগে সন্ধ্যা ৭টায় শুরু হওয়া দুই দলের সংলাপ চলে প্রায় এক ঘণ্টা।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বর্তমান আওয়ামী দুঃশাসনের বিরুদ্ধে সব রাজনৈতিক দলকে উদ্বুদ্ধ করার প্রচেষ্টায় আমরা রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপের কর্মসূচি নিয়েছি। এরই অংশ হিসেবে আজ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-ন্যাপ ভাসানীর সঙ্গে সংলাপ হয়েছে।

 

তিনি বলেন, সংলাপ অত্যন্ত ফলপ্রসূ হয়েছে। জোর করে ক্ষমতা দখলকারী, রাষ্ট্রের সব প্রতিষ্ঠান ধ্বংসকারী বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারকে ক্ষমতা থেকে সরিয়ে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠার বিষয়ে আমরা একমত হয়েছি।

 

আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে ফখরুল বলেন, জনগণের প্রতিফলন ঘটিয়ে একটি সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতা হস্তান্তরের সব পথ তারা সম্পূর্ণভাবে রুদ্ধ করে দিয়েছে। সে কারণে গণঅভ্যুত্থানের মধ্য দিয়ে এ সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করতে হবে। সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। এটিই জাতির সামনে আজ বড় প্রয়োজন।

 

তিনি বলেন, গণতন্ত্রের নেত্রী খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে সাজা দিয়ে কারান্তরীণ করে রাখা হয়েছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না। তার মুক্তি নিশ্চিত করতে হবে। দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে মিথ্যে মামলায় সাজা দিয়ে নির্বাসিত করে রাখা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে এবং দেশের প্রায় ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে যে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে তা প্রত্যাহার এবং একইসঙ্গে বর্তমান সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করতে হবে। সংসদ বিলুপ্ত করে নতুন নির্বাচন কমিশনের মধ্য দিয়ে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের ব্যবস্থা করতে হবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আন্দোলনে অংশগ্রহণকারীদের নিয়ে নির্বাচন পরবর্তী সময়ে একটি জাতীয় সরকার গঠনের প্রস্তাব আমরা দিয়েছি। আমরা আলোচনা করেছি এবং আলোচনায় একমত হয়েছি যে, এ বিষয়ে গণআন্দোলন গড়ে তুলে সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করতে হবে। আমরা যুগপৎ আন্দোলনের ব্যাপারে একমত হয়েছি। আমরা যার যার অবস্থান থেকে আন্দোলন শুরু করবো। আন্দোলনের ধারা অনুযায়ী পরবর্তী সময়ের করণীয় ঠিক করা হবে।

 

এসময় ন্যাপ ভাসানীর সভাপতি অ্যাডভোকেট আজহারুল ইসলাম বলেন, বিএনপি হচ্ছে বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় দল। সুষ্ঠু নির্বাচন হলে ৭৫ শতাংশ আসন পাবে বিএনপি। কিন্তু বর্তমান কর্তৃত্ববাদী সরকার ফ্যাসিবাদী সরকার ভোট ডাকাতির মাধ্যমে জোর করে ক্ষমতায় বসে আছে।

 

সংলাপে বিএনপি মহাসচিবের সঙ্গে ছিলেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

 

ন্যাপ ভাসানী চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মো. আজহারুল ইসলামের নেতৃত্বে দলটির ১০ সদস্যের প্রতিনিধি দলে ছিলেন- ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ইঞ্জিনিয়ার রফিকুল ইসলাম মিন্টু, প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. নুরুল আমিন, ভাইস-চেয়ারম্যান গাজী আমিন উল্লাহ, উপদেষ্টা মো. আলতাফ হোসেন, অতিরিক্ত মহাসচিব অ্যাডভোকেট মো. আকমল হোসেন, ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক ন্যাপ ভাসানী মো. আজমল হোসেন, সভাপতি যুব ন্যাপ মো. শাহিন আলম, সাধারণ সম্পাদক যুব ন্যাপ মো. আয়নাল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক যুব ন্যাপ মো. সাকিব মিয়া, সাধারণ সম্পাদক বিপ্লবী ছাত্র ইউনিয়ন ন্যাপ মো. লুৎফর রহমান।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com