টঙ্গীতে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে আহত ১৩

গাজীপুরের টঙ্গীতে পোশাক কারখানার শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৩০ রাউন্ড শর্টগানের গুলি, ১০ রাউন্ড সাউন্ড গ্রেনেড ও ৬ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এতে পুলিশসহ ১০ থেকে ১৫ জন শ্রমিক আহত হয়েছেন বলে জানা যায়।

 

মঙ্গলবার  বিসিক এলাকায় সকাল সাড়ে ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত কয়েক দফায় শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ ঘটে। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা চারটি পোশাক কারখানায় ভাঙচুর চালায়। পরবর্তীতে ৩টি পোশাক কারখানায় ছুটি ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ।

 

আহত শ্রমিকরা হলেন- কামাল (২৩), নুর মোহাম্মদ (২৫), জিয়া (২৫), মনিরুল (২৪), মুক্তি আক্তার (৩২), তাসলিমা (২৬), শাহিনুর আক্তার (১৮), সাফিনা আক্তার (১৮)।

 

টিভলি অ্যাপারেলস লিমিটেডের শ্রমিক সারোয়ার উদ্দিন ও খায়রুল হক বলেন, শনিবার (২৯ জানুয়ারি) কারখানার ফিনিশিং সেকশনের কাজ করা রিপা আক্তারকে লাঞ্ছিত করেন কারখানার উৎপাদন ব্যবস্থাপক লুৎফর রহমান। এ সময় লুৎফর শ্রমিক রিপাকে ধাক্কা দিয়ে কারখানা থেকে বের করে দেওয়ার হুমকি দেন। এঘটনায় ওইদিনই বিচারের দাবিতে শ্রমিকরা উৎপাদন কাজ বন্ধ করে কর্মবিরতি পালন করে। পরবর্তীতে শ্রমিকরা মালিক পক্ষের নিকট ১২টি দাবি জানায়।

 

দু্ই দিন পার হবার পরেও কারখানা কর্তৃপক্ষ কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় সোমবার (৩১ জানুয়ারি) শ্রমিকরা উৎপাদন কাজে যোগ দেয় না। পরে মালিকপক্ষ মঙ্গলবার সকালে অনির্দিষ্টকালের জন্য কারখানাটি বন্ধ ঘোষণা করে ফ্যাক্টরির সামনে নোটিশ টাঙ্গিয়ে দেয়। এতে শ্রমিকরা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। এসময় পুলিশ বাঁধা দিলে শ্রমিকরা পুলিশের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ গ্যাসগান ও শর্টগানের গুলি নিক্ষেপ করে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

 

টিভলি অ্যাপারেলস লিমিটেডের কর্মকর্তারা জানান, শ্রমিকরা উৎপাদন ব্যবস্থাপকের অপসারণ চেয়েছিল। আমরা তা মেনে নিয়েছি। কিন্তু বহিরাগত কিছু শ্রমিক নেতা সাধারণ শ্রমিকদের উস্কানি দিয়ে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে। তাই বিষয়টি সমাধান না হওয়া পর্যন্ত কারখানা বন্ধ রাখা হয়েছে। বিজিএমইএর সঙ্গে আলোচনা করে দ্রুত সমাধানের চেষ্টা চলছে।

 

জিএমপি উপ-কমিশনার (অপরাধ দক্ষিণ) মোহাম্মদ ইলতুৎমিশ জানান, ‘টিভলি অ্যাপারেলসের শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে অন্য কারখানাগুলোতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। এতে পুলিশ বাঁধা দিলে পুলিশের ওপরও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে তারা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শিল্প পুলিশ ও মেট্রোপলিটন পুলিশ টিয়ারসেল ও সাউন্ড গ্রেনেড ছোড়ে। এ ঘটনায় পুলিশের পাঁচ সদস্য আহত হয়েছে।’

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» এক টুকরো মেঘ,

» ঘূর্ণিঝড় রেমালে ১৯ উপজেলার ভোট স্থগিত : ইসি সচিব

» স্থলভাগে এসে দুর্বল রেমাল, উঠিয়ে নেওয়া হল ১০ নম্বর বিপৎসংকেত

» ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়াতে জনপ্রতিনিধিদের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

» বন্দুকসহ একজন গ্রেফতার

» নারীকে জোরপূর্বক গণধর্ষণ মামলায় পলাতক প্রধান আসামি গ্রেফতার

» নির্মাণাধীন ভবনের দেয়াল ধসে যুবক নিহত

» দুর্যোগে সহযোগিতার নামে ফটোসেশন করে বিএনপি: কাদের

» মেট্রোরেল চলাচল স্বাভাবিক

» বিশেষ অভিযান চালিয়ে মাদকবিরোধী অভিযানে বিক্রি ও সেবনের অপরাধে ৩২জন গ্রেপ্তার

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

টঙ্গীতে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষে আহত ১৩

গাজীপুরের টঙ্গীতে পোশাক কারখানার শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৩০ রাউন্ড শর্টগানের গুলি, ১০ রাউন্ড সাউন্ড গ্রেনেড ও ৬ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এতে পুলিশসহ ১০ থেকে ১৫ জন শ্রমিক আহত হয়েছেন বলে জানা যায়।

 

মঙ্গলবার  বিসিক এলাকায় সকাল সাড়ে ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত কয়েক দফায় শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ ঘটে। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা চারটি পোশাক কারখানায় ভাঙচুর চালায়। পরবর্তীতে ৩টি পোশাক কারখানায় ছুটি ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ।

 

আহত শ্রমিকরা হলেন- কামাল (২৩), নুর মোহাম্মদ (২৫), জিয়া (২৫), মনিরুল (২৪), মুক্তি আক্তার (৩২), তাসলিমা (২৬), শাহিনুর আক্তার (১৮), সাফিনা আক্তার (১৮)।

 

টিভলি অ্যাপারেলস লিমিটেডের শ্রমিক সারোয়ার উদ্দিন ও খায়রুল হক বলেন, শনিবার (২৯ জানুয়ারি) কারখানার ফিনিশিং সেকশনের কাজ করা রিপা আক্তারকে লাঞ্ছিত করেন কারখানার উৎপাদন ব্যবস্থাপক লুৎফর রহমান। এ সময় লুৎফর শ্রমিক রিপাকে ধাক্কা দিয়ে কারখানা থেকে বের করে দেওয়ার হুমকি দেন। এঘটনায় ওইদিনই বিচারের দাবিতে শ্রমিকরা উৎপাদন কাজ বন্ধ করে কর্মবিরতি পালন করে। পরবর্তীতে শ্রমিকরা মালিক পক্ষের নিকট ১২টি দাবি জানায়।

 

দু্ই দিন পার হবার পরেও কারখানা কর্তৃপক্ষ কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় সোমবার (৩১ জানুয়ারি) শ্রমিকরা উৎপাদন কাজে যোগ দেয় না। পরে মালিকপক্ষ মঙ্গলবার সকালে অনির্দিষ্টকালের জন্য কারখানাটি বন্ধ ঘোষণা করে ফ্যাক্টরির সামনে নোটিশ টাঙ্গিয়ে দেয়। এতে শ্রমিকরা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। এসময় পুলিশ বাঁধা দিলে শ্রমিকরা পুলিশের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ গ্যাসগান ও শর্টগানের গুলি নিক্ষেপ করে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

 

টিভলি অ্যাপারেলস লিমিটেডের কর্মকর্তারা জানান, শ্রমিকরা উৎপাদন ব্যবস্থাপকের অপসারণ চেয়েছিল। আমরা তা মেনে নিয়েছি। কিন্তু বহিরাগত কিছু শ্রমিক নেতা সাধারণ শ্রমিকদের উস্কানি দিয়ে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে। তাই বিষয়টি সমাধান না হওয়া পর্যন্ত কারখানা বন্ধ রাখা হয়েছে। বিজিএমইএর সঙ্গে আলোচনা করে দ্রুত সমাধানের চেষ্টা চলছে।

 

জিএমপি উপ-কমিশনার (অপরাধ দক্ষিণ) মোহাম্মদ ইলতুৎমিশ জানান, ‘টিভলি অ্যাপারেলসের শ্রমিকরা উত্তেজিত হয়ে অন্য কারখানাগুলোতে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করে। এতে পুলিশ বাঁধা দিলে পুলিশের ওপরও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে তারা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে শিল্প পুলিশ ও মেট্রোপলিটন পুলিশ টিয়ারসেল ও সাউন্ড গ্রেনেড ছোড়ে। এ ঘটনায় পুলিশের পাঁচ সদস্য আহত হয়েছে।’

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com