জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে এবার বাড়বে জিপিএ

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে শিক্ষার্থীদের ভর্তি নিতে জিপিএ বাড়ছে।

 

বর্তমানে মানবিক শাখা থেকে এসএসএসিতে জিপিএ ২.৫০ পয়েন্ট এইচএসসিতে চতুর্থ বিষয়সহ ২.৫০ পয়েন্ট ও বিজ্ঞান এবং ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে এসএসএসিতে জিপিএ ৩.০০ পয়েন্ট এইচএসসিতে চতুর্থ বিষয়সহ ২.৫০ পয়েন্ট প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা স্নাতক ১ম বর্ষে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারে।

 

চট্রগ্রাম সরকারি কলেজের সহযোগী অধ্যাপক মুহাম্মদ ইউনুস হাসান বলেন, আমাদের দেশের পরীক্ষা পদ্ধতিতে সব সময় মেধার সঠিক মূল্যায়ন সম্ভব হয় না। অনেক মেধাবী শিক্ষার্থী বিভিন্ন কারণে বোর্ড পরীক্ষায় ভালো করতে পারে না। ভর্তির সময় পরীক্ষা নিলে তারা নিজেদেরকে আবার যাচাই করা সুযোগ পায়। এদিক থেকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়েও ভর্তি পরীক্ষা নেওয়াটা যৌক্তিক বলে মনে করি।

 

ফেনী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক বিমল কান্তি পালও ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার পক্ষে। তিনি বলেন, পরীক্ষার মাধ্যমে যাচাই করে শিক্ষার্থী ভর্তি করলে স্নাতকে ফলাফল ভালো হয়। এতে করে কলেজের সুনাম যেমন বৃদ্ধি পায় তেমনি বিশ্ববিদ্যালয়ের মানও বাড়ে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় আবার ভর্তি পরীক্ষা চালু করার সিদ্ধান্তটি বিবেচনা করতে পারে। তবে জিপিএর ভিত্তিতে যে ভালো শিক্ষার্থী ভর্তি হয়না এমনটাও না।

 

তবে এবার জিপিএ পদ্ধতিতে পরিবর্তন আসতে পারে। ২০২১-২২ শিক্ষা বর্ষে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ১ম বর্ষ ভর্তি আবেদনের ক্ষেত্রে নূন্যতম জিপিএ পয়েন্ট বাড়ানোর চিন্তা করছে বিশ্ববিদ্যালয়।

 

এ বিষয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মশিউর রহমান বলেন, এবারও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা হবে না। তবে ভর্তিতে নূন্যতম জিপিএ যেটা লাগবে সেটা হয়তো বাড়ানোর চিন্তা আছে। এর মাধ্যমে কোয়ালিটিফুল শিক্ষার্থী পাবো বলে আমরা আশা করছি।

তিনি আরও বলেন, এখন যে সিস্টেমে ভর্তি নেয়া হয় সেটা নিয়ে কোন প্রশ্ন উঠেনি। শুধু গুণগত মানের শিক্ষার্থীর কথা বলা হয়েছে। সেটা আমরা জিপিএ বাড়ালে পেয়ে যাবো। তবে সিদ্ধান্তের ব্যাপারে আমি এককভাবে বলতে পারছি না। ভর্তি কমিটির মিটিং হলে, সবার সাথে আলোচনা করে যদি মনে হয় বাড়ানো দরকার তাহলে আমরা নূন্যতম জিপিএ বাড়াবো।

তবে কোন বিভাগে কত পয়েন্ট বাড়ানো হবে সে বিষয়ে কিছু জানানি উপাচার্য। ভর্তি কমিটির সভায় এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

তথ্যমতে, ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষ থেকে ভর্তি পরীক্ষা বাদ দিয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত দেশের বিভিন্ন কলেজে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার জিপিএর ভিত্তিতে স্নাতকে শিক্ষার্থী ভর্তি নেওয়া হচ্ছে। তার আগে ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থী বাছাই করা হতো।

 

দেশের সবচেয়ে বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি হয় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত দেশের বিভিন্ন কলেজে। তবে এখানে ভর্তি হতে অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মত ভর্তি পরীক্ষা দিতে হয়না। এসএসসি-এইচএসসি জিপিএর ভিত্তিতে ভর্তি নেয়া হয়। পরীক্ষা ছাড়া শুধুমাত্র জিপিএর ভিত্তিতে ভর্তি নেয়া হয় বলে অনেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের মান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

 

প্রসঙ্গত, বর্তমানে দেশে অর্ধশত স্বায়ত্তশাসিত ও পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। এরমধ্যে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয় ও ৪টি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া বাকিগুলোতে সরাসরি ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি হয়ে থাকে।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» জালে ধরা পড়লো ৮ কেজির বোয়াল

» আজ জাতীয় কন্যাশিশু দিবস

» শুধু ধনীরা নয়, দরিদ্ররাও চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে যায় : পরিকল্পনামন্ত্রী

» জমিজমা সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জেরে ব্যবসায়ী কুপিয়ে হত্যা

» তাহাদের কথা

» ভূমিকম্পে কাঁপল সিলেট

» একসঙ্গে টি-২০ বিশ্বকাপের সকল দলের স্কোয়াড

» দেশের যেসব জায়গায় বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে

» নিরপেক্ষ নির্বাচন ঠেকাতে প্রধানমন্ত্রী উঠেপড়ে লেগেছেন: রিজভী

» আওয়ামী লীগ দেশে নির্বাচনের নিরপেক্ষ পরিবেশ নিশ্চিত করেছে : প্রধানমন্ত্রী

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে এবার বাড়বে জিপিএ

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২১-২২ শিক্ষাবর্ষে শিক্ষার্থীদের ভর্তি নিতে জিপিএ বাড়ছে।

 

বর্তমানে মানবিক শাখা থেকে এসএসএসিতে জিপিএ ২.৫০ পয়েন্ট এইচএসসিতে চতুর্থ বিষয়সহ ২.৫০ পয়েন্ট ও বিজ্ঞান এবং ব্যবসায় শিক্ষা শাখা থেকে এসএসএসিতে জিপিএ ৩.০০ পয়েন্ট এইচএসসিতে চতুর্থ বিষয়সহ ২.৫০ পয়েন্ট প্রাপ্ত শিক্ষার্থীরা স্নাতক ১ম বর্ষে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারে।

 

চট্রগ্রাম সরকারি কলেজের সহযোগী অধ্যাপক মুহাম্মদ ইউনুস হাসান বলেন, আমাদের দেশের পরীক্ষা পদ্ধতিতে সব সময় মেধার সঠিক মূল্যায়ন সম্ভব হয় না। অনেক মেধাবী শিক্ষার্থী বিভিন্ন কারণে বোর্ড পরীক্ষায় ভালো করতে পারে না। ভর্তির সময় পরীক্ষা নিলে তারা নিজেদেরকে আবার যাচাই করা সুযোগ পায়। এদিক থেকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়েও ভর্তি পরীক্ষা নেওয়াটা যৌক্তিক বলে মনে করি।

 

ফেনী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক বিমল কান্তি পালও ভর্তি পরীক্ষা নেওয়ার পক্ষে। তিনি বলেন, পরীক্ষার মাধ্যমে যাচাই করে শিক্ষার্থী ভর্তি করলে স্নাতকে ফলাফল ভালো হয়। এতে করে কলেজের সুনাম যেমন বৃদ্ধি পায় তেমনি বিশ্ববিদ্যালয়ের মানও বাড়ে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় আবার ভর্তি পরীক্ষা চালু করার সিদ্ধান্তটি বিবেচনা করতে পারে। তবে জিপিএর ভিত্তিতে যে ভালো শিক্ষার্থী ভর্তি হয়না এমনটাও না।

 

তবে এবার জিপিএ পদ্ধতিতে পরিবর্তন আসতে পারে। ২০২১-২২ শিক্ষা বর্ষে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক ১ম বর্ষ ভর্তি আবেদনের ক্ষেত্রে নূন্যতম জিপিএ পয়েন্ট বাড়ানোর চিন্তা করছে বিশ্ববিদ্যালয়।

 

এ বিষয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মশিউর রহমান বলেন, এবারও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা হবে না। তবে ভর্তিতে নূন্যতম জিপিএ যেটা লাগবে সেটা হয়তো বাড়ানোর চিন্তা আছে। এর মাধ্যমে কোয়ালিটিফুল শিক্ষার্থী পাবো বলে আমরা আশা করছি।

তিনি আরও বলেন, এখন যে সিস্টেমে ভর্তি নেয়া হয় সেটা নিয়ে কোন প্রশ্ন উঠেনি। শুধু গুণগত মানের শিক্ষার্থীর কথা বলা হয়েছে। সেটা আমরা জিপিএ বাড়ালে পেয়ে যাবো। তবে সিদ্ধান্তের ব্যাপারে আমি এককভাবে বলতে পারছি না। ভর্তি কমিটির মিটিং হলে, সবার সাথে আলোচনা করে যদি মনে হয় বাড়ানো দরকার তাহলে আমরা নূন্যতম জিপিএ বাড়াবো।

তবে কোন বিভাগে কত পয়েন্ট বাড়ানো হবে সে বিষয়ে কিছু জানানি উপাচার্য। ভর্তি কমিটির সভায় এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

তথ্যমতে, ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষ থেকে ভর্তি পরীক্ষা বাদ দিয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত দেশের বিভিন্ন কলেজে এসএসসি-এইচএসসি পরীক্ষার জিপিএর ভিত্তিতে স্নাতকে শিক্ষার্থী ভর্তি নেওয়া হচ্ছে। তার আগে ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থী বাছাই করা হতো।

 

দেশের সবচেয়ে বেশি শিক্ষার্থী ভর্তি হয় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত দেশের বিভিন্ন কলেজে। তবে এখানে ভর্তি হতে অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের মত ভর্তি পরীক্ষা দিতে হয়না। এসএসসি-এইচএসসি জিপিএর ভিত্তিতে ভর্তি নেয়া হয়। পরীক্ষা ছাড়া শুধুমাত্র জিপিএর ভিত্তিতে ভর্তি নেয়া হয় বলে অনেকেই বিশ্ববিদ্যালয়ের মান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন।

 

প্রসঙ্গত, বর্তমানে দেশে অর্ধশত স্বায়ত্তশাসিত ও পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। এরমধ্যে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী আরবী বিশ্ববিদ্যালয় ও ৪টি মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া বাকিগুলোতে সরাসরি ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তি হয়ে থাকে।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com