গর্ভাবস্থায় মা ও শিশুর সুস্থতায় করণীয় কী?

আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। কিন্তু তাকে এই সুন্দর পৃথিবীতে আনতে যার ভূমিকা সবচেয়ে বেশি, তাঁর যত্নটা কতখানি নেওয়া হয়? আমরা কি আসলেই জানি গর্ভাবস্থায় মায়ের কেমন যত্ন নেওয়া হলে শিশু থাকবে সুস্থ সবল এবং হবে মানসিকভাবে পূর্ণ বিকশিত? মা হন বা নাই হন, জানতে হবে আপনাদের সবাইকে বিশেষ করে মেয়েদের জানা খুবই জরুরী। যাই হোক, গর্ভাবস্থায় মা ও শিশুর সুস্থতার আসুন কিছু তথ্য জেনে নেওয়া যাক।

গর্ভাবস্থায় মা ও শিশুর সুস্থতার করণীয়

১. খাদ্য ও ব্যায়াম

প্রথম তিন মাসে শিশুর অঙ্গ প্রত্যঙ্গের গঠন হয়। এ সময় মাকে অবশ্যই পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে। মদ, সিগারেট খেলে সন্তান হতে পারে বিকলাঙ্গ। আঁশ জাতীয় খাবার, মাছ-মাংস, ফলমূল ও শাক-সবজি খেতে হবে। খেয়াল  রাখতে হবে প্রস্রাব-পায়খানা ঠিক মত হচ্ছে কিনা। হালকা ব্যায়াম করতে হবে কিন্তু ভারি কাজ করা যাবে না। ঝুকে বা নুয়ে কাজ না করাই উচিত। হাঁটা চলায় সাবধান হতে হবে। এগুলো আমরা সবাই জানি কিন্তু ঠিক মত পালন করি না। সন্তানের ভবিষ্যতের কথা ভেবে সচেতন থাকতে হবে ।

২. চিকিৎসা

গর্ভবতী মা এর রক্ত পরীক্ষা করতে হবে, ডেলিভারির আগে রক্ত ব্যবস্থা করতে হবে। রক্তের গ্রুপ পরীক্ষা করার পাশাপাশি কিছু পরীক্ষা করতে হবে যা বাচ্চার জন্মগত কোন রোগ হওয়ার আশংকা বাতিল করবে। TORCHES TEST করা জরুরী।

সিফিলিস যে জন্মগত ভাবে হতে পারে জানেন না অনেকেই। জার্মান মিজলস হলেও সন্তানের অঙ্গ প্রত্যঙ্গের সমস্যা হতে পারে। এইডস ও জন্মগত হতে পারে। গর্ভবতী মাকে ধনুষ্টঙ্কার এর টিকা দিতে হবে। ANTENATAL অন্ততপক্ষে ১৩ টি ভিজিট করতে হবে বাচ্চার শারীরিক অবস্থা ও মায়ের অবস্থা জানার জন্যে । বাচ্চার মাথা আর শরীরের গঠন দেখে ডাক্তার থেকে নিশ্চিত হতে হবে সিজার অথবা নরমাল, কোনটা ভালো অপশন হবে।

গর্ভাবস্থায় কয়েকটি বিপদ চিহ্ন

১. রক্তপাত,

২. মাথা ব্যথা / চোখে ঝাপসা দেখা,

৩. ঘণ্টায় ৪ বারের বেশি পেত মোচড় দেয়া,

৪. জ্বর,

৫. বাচ্চার নড়াচড়া কমে যাওয়া,

৬. পা ফুলে যাওয়া ও

৭. বমি হওয়া।

এই সব এর যে কোন একটা থাকলে ও তৎক্ষণাৎ ডাক্তার এর দারস্থ হতে হবে।

মানসিক প্রশান্তি

সুস্থ পরিবেশ ই শুধু একটা সুস্থ বাচ্চার জন্ম দিতে পারে। এ সময় ধর্মীয় বই পুস্তক পাঠ করলে, সুন্দর সন্তানের স্বপ্ন দেখলে বাস্তবেও সুন্দর, সুস্থ বাচ্চার জন্ম দেয়া সম্ভব। এটা বর্তমানে বৈজ্ঞানিক ভাবেও প্রমানিত যে মায়ের সাথে সন্তানের আত্তিক সম্পর্ক থাকে । কাজেই মাকে আনন্দে থাকতে হবে, পরিবারকেও মাকে সাপোর্ট দিতে হবে।

পরিশেষে একটা কথা না বললেই নয়, মা সন্তানের প্রথম বিদ্যালয়, প্রথম শিক্ষক এবং প্রথম কাছের মানুষ। তাই সন্তানকে সুস্থ রাখতে মাকেও নিজের শরীরের প্রতি যত্নশীল হতে হবে।

ছবিঃ সংগৃহীত – ইমেজেসবাজার.কম

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» কর্তব্যরত অবস্থায় হতাহতদের আর্থিক অনুদান দিলেন ডিএমপি কমিশনার

» রাকিবুলের দুর্দান্ত হ্যাটট্রিক, ৮৯ রানে অলআউট স্কটল্যান্ড

» আমি চ্যালেঞ্জ নিয়ে সীমান্তবর্তী জেলা লালমনিরহাটে এসেছি- নবাগত পুলিশ সুপার

» নবাবগঞ্জে অপহৃত স্কুলছাত্রী মোরেলগঞ্জে উদ্ধার, গ্রেফতার ১

» নওগাঁয় প্রয়াত আব্দুল জলিলের ৮১তম জন্মবার্ষিকী পালিত 

» ইসলামপুরে ৮টি চোরাই গরুসহ ৩চোর আটক

» তাবিথের প্রচারণায় হামলা : ষড়যন্ত্রের অংশ কিনা আশঙ্কা তথ্যমন্ত্রীর

» খোকন মনে কষ্ট পেলেও আমার সঙ্গে আছেন: তাপস

» প্রয়োজনে শিক্ষকদের বিদেশে পাঠান : প্রধানমন্ত্রী

» গফরগাঁওয়ের প্রবাসী যুবক মালয়েশিয়া সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...
,

গর্ভাবস্থায় মা ও শিশুর সুস্থতায় করণীয় কী?

আজকের শিশু আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। কিন্তু তাকে এই সুন্দর পৃথিবীতে আনতে যার ভূমিকা সবচেয়ে বেশি, তাঁর যত্নটা কতখানি নেওয়া হয়? আমরা কি আসলেই জানি গর্ভাবস্থায় মায়ের কেমন যত্ন নেওয়া হলে শিশু থাকবে সুস্থ সবল এবং হবে মানসিকভাবে পূর্ণ বিকশিত? মা হন বা নাই হন, জানতে হবে আপনাদের সবাইকে বিশেষ করে মেয়েদের জানা খুবই জরুরী। যাই হোক, গর্ভাবস্থায় মা ও শিশুর সুস্থতার আসুন কিছু তথ্য জেনে নেওয়া যাক।

গর্ভাবস্থায় মা ও শিশুর সুস্থতার করণীয়

১. খাদ্য ও ব্যায়াম

প্রথম তিন মাসে শিশুর অঙ্গ প্রত্যঙ্গের গঠন হয়। এ সময় মাকে অবশ্যই পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে। মদ, সিগারেট খেলে সন্তান হতে পারে বিকলাঙ্গ। আঁশ জাতীয় খাবার, মাছ-মাংস, ফলমূল ও শাক-সবজি খেতে হবে। খেয়াল  রাখতে হবে প্রস্রাব-পায়খানা ঠিক মত হচ্ছে কিনা। হালকা ব্যায়াম করতে হবে কিন্তু ভারি কাজ করা যাবে না। ঝুকে বা নুয়ে কাজ না করাই উচিত। হাঁটা চলায় সাবধান হতে হবে। এগুলো আমরা সবাই জানি কিন্তু ঠিক মত পালন করি না। সন্তানের ভবিষ্যতের কথা ভেবে সচেতন থাকতে হবে ।

২. চিকিৎসা

গর্ভবতী মা এর রক্ত পরীক্ষা করতে হবে, ডেলিভারির আগে রক্ত ব্যবস্থা করতে হবে। রক্তের গ্রুপ পরীক্ষা করার পাশাপাশি কিছু পরীক্ষা করতে হবে যা বাচ্চার জন্মগত কোন রোগ হওয়ার আশংকা বাতিল করবে। TORCHES TEST করা জরুরী।

সিফিলিস যে জন্মগত ভাবে হতে পারে জানেন না অনেকেই। জার্মান মিজলস হলেও সন্তানের অঙ্গ প্রত্যঙ্গের সমস্যা হতে পারে। এইডস ও জন্মগত হতে পারে। গর্ভবতী মাকে ধনুষ্টঙ্কার এর টিকা দিতে হবে। ANTENATAL অন্ততপক্ষে ১৩ টি ভিজিট করতে হবে বাচ্চার শারীরিক অবস্থা ও মায়ের অবস্থা জানার জন্যে । বাচ্চার মাথা আর শরীরের গঠন দেখে ডাক্তার থেকে নিশ্চিত হতে হবে সিজার অথবা নরমাল, কোনটা ভালো অপশন হবে।

গর্ভাবস্থায় কয়েকটি বিপদ চিহ্ন

১. রক্তপাত,

২. মাথা ব্যথা / চোখে ঝাপসা দেখা,

৩. ঘণ্টায় ৪ বারের বেশি পেত মোচড় দেয়া,

৪. জ্বর,

৫. বাচ্চার নড়াচড়া কমে যাওয়া,

৬. পা ফুলে যাওয়া ও

৭. বমি হওয়া।

এই সব এর যে কোন একটা থাকলে ও তৎক্ষণাৎ ডাক্তার এর দারস্থ হতে হবে।

মানসিক প্রশান্তি

সুস্থ পরিবেশ ই শুধু একটা সুস্থ বাচ্চার জন্ম দিতে পারে। এ সময় ধর্মীয় বই পুস্তক পাঠ করলে, সুন্দর সন্তানের স্বপ্ন দেখলে বাস্তবেও সুন্দর, সুস্থ বাচ্চার জন্ম দেয়া সম্ভব। এটা বর্তমানে বৈজ্ঞানিক ভাবেও প্রমানিত যে মায়ের সাথে সন্তানের আত্তিক সম্পর্ক থাকে । কাজেই মাকে আনন্দে থাকতে হবে, পরিবারকেও মাকে সাপোর্ট দিতে হবে।

পরিশেষে একটা কথা না বললেই নয়, মা সন্তানের প্রথম বিদ্যালয়, প্রথম শিক্ষক এবং প্রথম কাছের মানুষ। তাই সন্তানকে সুস্থ রাখতে মাকেও নিজের শরীরের প্রতি যত্নশীল হতে হবে।

ছবিঃ সংগৃহীত – ইমেজেসবাজার.কম

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com