৩শ জনের বিপরীতে ৪ নম্বর ব্যবহারের হোতা কে এই মলাই চেয়ারম্যান?

প্রধানমন্ত্রীর নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান কর্মসূচিতে হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার মুড়িয়াউক ইউনিয়নে ৩শ’ জনের নামের বিপরীতে পাওয়া গেছে মাত্র ৪টি মোবাইল নম্বর। এ নিয়ে দেশজুড়ে চলছে তুমুল সমালোচনা। এ ঘটনার মূলহোতা হিসেবে স্থানীয়রা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সদ্য আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম মলাইকে চিহ্নিত করেছেন। দুর্নীতির দায়ে তাকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়ে শনিবার (১৬ মে) সন্ধ্যায় মুড়িয়াউক ইউনিয়ন পরিষদ ঘেরাও করে উত্তেজিত জনতা। নগদ অর্থ সহায়তায় একই নম্বর বারবার ব্যবহার করা ছাড়াও তার বিরুদ্ধে ত্রাণ আত্মসাতের অভিযোগ তুলেছেন তারা।

জানা গেছে, সরকারি প্রণোদনা আত্মসাৎ করতে সর্বোচ্চ ৯৯ জনের নামের বিপরীতে একই নাম্বার ব্যবহার করেছেন তিনি। বিষয়টি আঁচ করতে পেরে ওই ইউনিয়নের হাজারো জনতা তাকে গ্রেপ্তারের দাবিতে প্রায় ২ ঘণ্টা ঘেরাও করে রাখে মুড়িয়াউক ইউনিয়ন পরিষদে। এ সময় বিক্ষোদ্ধ জনতার রোষানল থেকে চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মলাইকে উদ্ধার করতে ঘটনাস্থলে ছুটে যান হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) অমিতাভ পরাগ তালুকদার ও সহকারী কমিশনার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লাখাই এবং লাখাই থানা পুলিশ।

লাখাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সঞ্চিতা কর্মকার (ভারপ্রাপ্ত) জানান, উত্তেজিত জনতা মুড়িয়াউক ইউনিয়ন পরিষদে জড়ো হয়। এ সময় পুলিশ-প্রশাসন তাদের সামাল দিতে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

লাখাই থানার ওসি জানান, ভুয়া মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে প্রধানমন্ত্রীর করোনাকালীন প্রণোদনা আত্মসাত করার অভিযোগে উত্তেজিত জনতা মুড়িয়াউক ইউননিয়ন পরিষদ ঘেরাও করে রাখে। খবর পেয়ে লাখাই থানা পুলিশ ও প্রশাসনের সহযোগীতায় তাকে উদ্ধার করা হয়।

অভিযুক্ত চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মলাই বলেন, আমি ২০০৯ সালে ইউনিয়ন যুবদলের দায়িত্বে ছিলাম। ২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর এমপি আবু জাহিরের হাত ধরে জেলা আওয়ামী লীগে যোগদান করি। আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ পুরোপুরি সত্য নয়। আমি মাত্র ৭৩০টি নাম প্রনয়ণ করেছি। বাকিগুলো ইউএনও সাহেবের সিও মহিউদ্দিন এবং দুর্লভ মিলে করেছেন।

হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু জাহির এমপি বলেন, রাজাকার বা তার পরিবারের সদস্য ছাড়া যে কেউ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে যোগদান করতে পারে। যেমন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ইনাম আহমেদ চৌধুরী শেখ হাসিনার হাত ধরে আওয়ামী লীগে যোগদান করেছেন, ঠিক সেভাবেই মলাইকে ও আওয়ামী লীগে স্বাগত জানানো হয়েছে। এখন মলাই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে যদি কোন অপরাধ প্রমাণিত হয় তাহলে তার বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কোন অপরাধীর দায়ভার দল নিবে না।

কে এই মলাই চেয়ারম্যান ?

সরকারি ত্রাণ আত্মসাৎ ও নানান দুর্নীতির বিষয়ে অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। সূত্র জানায়, লাখাইয়ের আলোচিত বকুল হত্যা মামলার এজাহার ভুক্ত ১নং আসামি মলাই চেয়ারম্যান। একের পর এক নানান অপরাধ করেও নিজেকে ধোয়া তুলসি পাতাই মনে করেন চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মলাই।

জানা গেছে, ২০০৯ সালে লাখাই উপজেলার মুড়িয়াউক ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন তিনি। ক্ষমতাহীন দলের ছত্রছায়ায় থেকে মন যেন ভরে না তার, দরকার ক্ষমতাসীন দলের নৌকার লোগো, ইচ্ছে মুড়িয়াউক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হওয়া। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসের ১৮ তারিখ স্থানীয় মাঠে জমকালো আয়োজনের মাধ্যমে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি এডভোকেট আবু জাহিরের হাত ধরে আওয়ামী লীগে যোগদান করেন চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মলাই। বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদান করার পর থেকেই তার আগ্রাসী তৎপরতা ভয়ঙ্কর রুপ ধারণ করতে থাকে। হত্যা, আধিপত্য বিস্তার, গ্রাম্য দাঙ্গা ইত্যাদির নেপথ্যে ছিলেন চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মলাই। ২০১৫ সালে গ্রাম্য আধিপত্য বিস্তার নিয়ে প্রতিবেশী বকুলকে পরিকল্পীতভাবেই হত্যা করার অভিযোগ তার বিরুদ্ধে। চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মলাই আওয়ামী লীগে যোগদানের আগে বিএনপি-জামাতের শাসনামলে লাখাইয়ের এক মাঠে যুবদল আয়োজিত সমাবেশে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে ‘বঙ্গখুনী’ বলেও আখ্যায়িত করেছিলেন। এ সময় এ বক্তব্য নিয়ে তীব্র সমালোচনার সম্মুখীন হন তিনি।

প্রসঙ্গত, মুড়িয়াউক ইউনিয়নে ৪টি মোবাইল নম্বর ব্যবহার হয়েছে ৩০৬ জনের নামের পাশে। এর মধ্যে ৯৯ জন উপকারভোগীর নামের বিপরীতে রয়েছে ০১৯৪৪-৬০৫১৯৩ মোবাইল নাম্বারটি। এছাড়া ০১৭৪৪-১৪৯২৩৪ মোবাইল নাম্বার রয়েছে ৯৭ জনের নামে, ০১৭৮৬-৩৭৪৩৯১ এ মোবাইল নাম্বার ৬৫ জনের ও ০১৭৬৬-৩৮০২৮৪ মোবাইল নাম্বার রয়েছে ৪৫ জন সুবিধাভোগীর নামের মধ্যে।

নির্দেশনা রয়েছে কোন উপকারভোগীর মোবাইল নাম্বারে ব্যাংকিং সেবা না থাকলে প্রতিবেশী বা ওয়ার্ড সদস্যদের মোবাইল নম্বর ব্যবহার করতে পারবেন। কিন্তু একটি মোবাইল নাম্বার ৬৫, ৯৭ বা ৯৯ জনের নামের পাশে থাকার বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বাভাবিক বলে মনে করছেন অনেকেই।পূর্বপশ্চিমবিডি

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» সাহারার মৃত্যুতে বিরোধীদলীয় নেতা-জাপা চেয়ারম্যানের শোক

» হাবু বাবু

» সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন আর নেই

» মিটফোর্ডে নকল ওষুধ: জরিমানা আট লাখ, দুইজনের দণ্ড

» সাহারা খাতুন ছিলেন আওয়ামী লীগের একজন পরীক্ষিত নেতা: রাষ্ট্রপতি

» সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক

» নরসিংদীর পলাশে প্রাণ ফ্যক্টরীতে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতকরণে পলাশ থানার ওসির পরিদর্শন

» এশিয়া কাপ স্থগিত

» বড় কর্তা ঘুষ চাইলে আমাকে জানাবেন: আইজিপি

» কেশবপুর সংসদীয় আসনে উপ-নির্বাচন উপলক্ষ্যে চিনাটোলা বাজারে আ’লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মাকসুদা লিসা।

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

 

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

৩শ জনের বিপরীতে ৪ নম্বর ব্যবহারের হোতা কে এই মলাই চেয়ারম্যান?

প্রধানমন্ত্রীর নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান কর্মসূচিতে হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার মুড়িয়াউক ইউনিয়নে ৩শ’ জনের নামের বিপরীতে পাওয়া গেছে মাত্র ৪টি মোবাইল নম্বর। এ নিয়ে দেশজুড়ে চলছে তুমুল সমালোচনা। এ ঘটনার মূলহোতা হিসেবে স্থানীয়রা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও সদ্য আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম মলাইকে চিহ্নিত করেছেন। দুর্নীতির দায়ে তাকে গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়ে শনিবার (১৬ মে) সন্ধ্যায় মুড়িয়াউক ইউনিয়ন পরিষদ ঘেরাও করে উত্তেজিত জনতা। নগদ অর্থ সহায়তায় একই নম্বর বারবার ব্যবহার করা ছাড়াও তার বিরুদ্ধে ত্রাণ আত্মসাতের অভিযোগ তুলেছেন তারা।

জানা গেছে, সরকারি প্রণোদনা আত্মসাৎ করতে সর্বোচ্চ ৯৯ জনের নামের বিপরীতে একই নাম্বার ব্যবহার করেছেন তিনি। বিষয়টি আঁচ করতে পেরে ওই ইউনিয়নের হাজারো জনতা তাকে গ্রেপ্তারের দাবিতে প্রায় ২ ঘণ্টা ঘেরাও করে রাখে মুড়িয়াউক ইউনিয়ন পরিষদে। এ সময় বিক্ষোদ্ধ জনতার রোষানল থেকে চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মলাইকে উদ্ধার করতে ঘটনাস্থলে ছুটে যান হবিগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) অমিতাভ পরাগ তালুকদার ও সহকারী কমিশনার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লাখাই এবং লাখাই থানা পুলিশ।

লাখাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সঞ্চিতা কর্মকার (ভারপ্রাপ্ত) জানান, উত্তেজিত জনতা মুড়িয়াউক ইউনিয়ন পরিষদে জড়ো হয়। এ সময় পুলিশ-প্রশাসন তাদের সামাল দিতে ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

লাখাই থানার ওসি জানান, ভুয়া মোবাইল নম্বর ব্যবহার করে প্রধানমন্ত্রীর করোনাকালীন প্রণোদনা আত্মসাত করার অভিযোগে উত্তেজিত জনতা মুড়িয়াউক ইউননিয়ন পরিষদ ঘেরাও করে রাখে। খবর পেয়ে লাখাই থানা পুলিশ ও প্রশাসনের সহযোগীতায় তাকে উদ্ধার করা হয়।

অভিযুক্ত চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মলাই বলেন, আমি ২০০৯ সালে ইউনিয়ন যুবদলের দায়িত্বে ছিলাম। ২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর এমপি আবু জাহিরের হাত ধরে জেলা আওয়ামী লীগে যোগদান করি। আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ পুরোপুরি সত্য নয়। আমি মাত্র ৭৩০টি নাম প্রনয়ণ করেছি। বাকিগুলো ইউএনও সাহেবের সিও মহিউদ্দিন এবং দুর্লভ মিলে করেছেন।

হবিগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু জাহির এমপি বলেন, রাজাকার বা তার পরিবারের সদস্য ছাড়া যে কেউ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগে যোগদান করতে পারে। যেমন সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ইনাম আহমেদ চৌধুরী শেখ হাসিনার হাত ধরে আওয়ামী লীগে যোগদান করেছেন, ঠিক সেভাবেই মলাইকে ও আওয়ামী লীগে স্বাগত জানানো হয়েছে। এখন মলাই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে যদি কোন অপরাধ প্রমাণিত হয় তাহলে তার বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কোন অপরাধীর দায়ভার দল নিবে না।

কে এই মলাই চেয়ারম্যান ?

সরকারি ত্রাণ আত্মসাৎ ও নানান দুর্নীতির বিষয়ে অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। সূত্র জানায়, লাখাইয়ের আলোচিত বকুল হত্যা মামলার এজাহার ভুক্ত ১নং আসামি মলাই চেয়ারম্যান। একের পর এক নানান অপরাধ করেও নিজেকে ধোয়া তুলসি পাতাই মনে করেন চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মলাই।

জানা গেছে, ২০০৯ সালে লাখাই উপজেলার মুড়িয়াউক ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন তিনি। ক্ষমতাহীন দলের ছত্রছায়ায় থেকে মন যেন ভরে না তার, দরকার ক্ষমতাসীন দলের নৌকার লোগো, ইচ্ছে মুড়িয়াউক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হওয়া। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসের ১৮ তারিখ স্থানীয় মাঠে জমকালো আয়োজনের মাধ্যমে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগে যোগদান করেন। বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি এডভোকেট আবু জাহিরের হাত ধরে আওয়ামী লীগে যোগদান করেন চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মলাই। বিএনপি থেকে আওয়ামী লীগে যোগদান করার পর থেকেই তার আগ্রাসী তৎপরতা ভয়ঙ্কর রুপ ধারণ করতে থাকে। হত্যা, আধিপত্য বিস্তার, গ্রাম্য দাঙ্গা ইত্যাদির নেপথ্যে ছিলেন চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মলাই। ২০১৫ সালে গ্রাম্য আধিপত্য বিস্তার নিয়ে প্রতিবেশী বকুলকে পরিকল্পীতভাবেই হত্যা করার অভিযোগ তার বিরুদ্ধে। চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম মলাই আওয়ামী লীগে যোগদানের আগে বিএনপি-জামাতের শাসনামলে লাখাইয়ের এক মাঠে যুবদল আয়োজিত সমাবেশে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে ‘বঙ্গখুনী’ বলেও আখ্যায়িত করেছিলেন। এ সময় এ বক্তব্য নিয়ে তীব্র সমালোচনার সম্মুখীন হন তিনি।

প্রসঙ্গত, মুড়িয়াউক ইউনিয়নে ৪টি মোবাইল নম্বর ব্যবহার হয়েছে ৩০৬ জনের নামের পাশে। এর মধ্যে ৯৯ জন উপকারভোগীর নামের বিপরীতে রয়েছে ০১৯৪৪-৬০৫১৯৩ মোবাইল নাম্বারটি। এছাড়া ০১৭৪৪-১৪৯২৩৪ মোবাইল নাম্বার রয়েছে ৯৭ জনের নামে, ০১৭৮৬-৩৭৪৩৯১ এ মোবাইল নাম্বার ৬৫ জনের ও ০১৭৬৬-৩৮০২৮৪ মোবাইল নাম্বার রয়েছে ৪৫ জন সুবিধাভোগীর নামের মধ্যে।

নির্দেশনা রয়েছে কোন উপকারভোগীর মোবাইল নাম্বারে ব্যাংকিং সেবা না থাকলে প্রতিবেশী বা ওয়ার্ড সদস্যদের মোবাইল নম্বর ব্যবহার করতে পারবেন। কিন্তু একটি মোবাইল নাম্বার ৬৫, ৯৭ বা ৯৯ জনের নামের পাশে থাকার বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বাভাবিক বলে মনে করছেন অনেকেই।পূর্বপশ্চিমবিডি

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মাকসুদা লিসা।

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

 

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com