মৃত্যুর জন্য যে শহরে যান মানুষ!

আপনি মৃত্যুকে কতটা কাছ থেকে দেখতে চান? কতখানি অপেক্ষা করেন মরে যাবার জন্য? জীবনের চরম আর বাস্তব এই সত্যকে মেনে নেবার জন্য কতখানি প্রস্তুত আপনি? মৃত্যু এমন এক বিষয় যার জন্য খুব আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা আমরা কখনোই করি না। সুন্দর এই পৃথিবী, পরিবার, বন্ধু ছেড়ে হঠাৎ করে চলে যাওয়ার মতো সাহস হয়তো কেউ করে না। কিন্তু সব সময় এমনটি হয় না। কারণ এমন একটি শহর আছে যেখানে মানুষ যায় এবং অপেক্ষা করে শুধু মৃত্যুর জন্য!

হিন্দু ধর্মগ্রন্থ মতে, এই শহরে মৃত্যুর পর পবিত্র গঙ্গা নদীর তীরে শবদাহ হলে পরের জনমে মুক্তি মেলে। একইসঙ্গে মুক্তি মেলে পাপ থেকেও। বানারাসের ঘাটের সিঁড়িগুলো নদীতে গিয়ে মিশেছে। গঙ্গার পানিতে পাপ ধুয়ে যাবে এমন বিশ্বাস সবার মাঝে থাকলেও এই পানি এখন বর্জ্যের কারণে ধুসর বর্ণ।

প্রতিদিন শত শত ভ্রমণকারী এখানে ভিড় জমান। এখানে ধূমপান, যৌনক্রিয়া, যেকোনো ধরনের মাংস, ডিম পেঁয়াজ, রসুনের খাবার খাওয়া নিষিদ্ধ। মৃত্যুকে স্বেচ্ছায় বরণ করতে চাওয়া এই মানুষগুলো যেখানে থাকেন সেগুলোকে হোটেল না বলে বলা হয় পরিত্রাণের ঘর।

আর এখানে বসবাসকারীদের প্রক্রিয়াকে বলা হয় কাশীবাস। এখানে থাকা বিভিন্ন আশ্রমগুলোর মধ্যে ভবন নামের স্থাপনা সবচেয়ে পুরনো। এর ১১৬টি কক্ষের মধ্যে ৪০টি কাশীবাসীদের জন্য বরাদ্দ করা হয়ে থাকে।

কাশীবাসীদের প্রত্যেককে তাদের ব্যক্তিগত সামর্থ অনুযায়ী প্রায় ১ লক্ষ রুপি দিতে হয়। তাদের একটি কক্ষ প্রদান করা হয় যেখানে তারা মৃত্যু পর্যন্ত অবস্থান করেন। তাদেরকে আশ্রম থেকে খাবার দেয়া হয় না, তাদের প্রত্যেককে নিজেদের খাবার নিজেদেরই ব্যবস্থা করতে হয়।

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» রাজগঞ্জে নিহত ৫ পরিবারের মাঝে স্বেচ্ছাসেবক দলের পক্ষ থেকে নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রি বিতরণ করলেন অগ্নি

» ঈদে তাদের যত নাটক

» বিয়ে করতে ৮০ কিমি হেঁটে বরের বাড়িতে তরুণী

» করোনা-কারফিউয়ে ঘরে বসেই দেশে দেশে ঈদ

» ভেদাভেদ ভুলে কল্যাণের রাজনীতি এগিয়ে নেয়ার আহ্বান জিএম কাদেরের

» আ’লীগের অধিকাংশ নেতার ঈদই এবার ঢাকায়

» এলো খুশির ঈদ

» ঈদ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা

» টিকা না আসা পর্যন্ত করোনাভাইরাসকে সঙ্গী করেই বাঁচতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

» দেশবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা প্রধানমন্ত্রীর

 

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

মৃত্যুর জন্য যে শহরে যান মানুষ!

আপনি মৃত্যুকে কতটা কাছ থেকে দেখতে চান? কতখানি অপেক্ষা করেন মরে যাবার জন্য? জীবনের চরম আর বাস্তব এই সত্যকে মেনে নেবার জন্য কতখানি প্রস্তুত আপনি? মৃত্যু এমন এক বিষয় যার জন্য খুব আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা আমরা কখনোই করি না। সুন্দর এই পৃথিবী, পরিবার, বন্ধু ছেড়ে হঠাৎ করে চলে যাওয়ার মতো সাহস হয়তো কেউ করে না। কিন্তু সব সময় এমনটি হয় না। কারণ এমন একটি শহর আছে যেখানে মানুষ যায় এবং অপেক্ষা করে শুধু মৃত্যুর জন্য!

হিন্দু ধর্মগ্রন্থ মতে, এই শহরে মৃত্যুর পর পবিত্র গঙ্গা নদীর তীরে শবদাহ হলে পরের জনমে মুক্তি মেলে। একইসঙ্গে মুক্তি মেলে পাপ থেকেও। বানারাসের ঘাটের সিঁড়িগুলো নদীতে গিয়ে মিশেছে। গঙ্গার পানিতে পাপ ধুয়ে যাবে এমন বিশ্বাস সবার মাঝে থাকলেও এই পানি এখন বর্জ্যের কারণে ধুসর বর্ণ।

প্রতিদিন শত শত ভ্রমণকারী এখানে ভিড় জমান। এখানে ধূমপান, যৌনক্রিয়া, যেকোনো ধরনের মাংস, ডিম পেঁয়াজ, রসুনের খাবার খাওয়া নিষিদ্ধ। মৃত্যুকে স্বেচ্ছায় বরণ করতে চাওয়া এই মানুষগুলো যেখানে থাকেন সেগুলোকে হোটেল না বলে বলা হয় পরিত্রাণের ঘর।

আর এখানে বসবাসকারীদের প্রক্রিয়াকে বলা হয় কাশীবাস। এখানে থাকা বিভিন্ন আশ্রমগুলোর মধ্যে ভবন নামের স্থাপনা সবচেয়ে পুরনো। এর ১১৬টি কক্ষের মধ্যে ৪০টি কাশীবাসীদের জন্য বরাদ্দ করা হয়ে থাকে।

কাশীবাসীদের প্রত্যেককে তাদের ব্যক্তিগত সামর্থ অনুযায়ী প্রায় ১ লক্ষ রুপি দিতে হয়। তাদের একটি কক্ষ প্রদান করা হয় যেখানে তারা মৃত্যু পর্যন্ত অবস্থান করেন। তাদেরকে আশ্রম থেকে খাবার দেয়া হয় না, তাদের প্রত্যেককে নিজেদের খাবার নিজেদেরই ব্যবস্থা করতে হয়।

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



 

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com