ভুল একাদশের কারণে বাংলাদেশের করুণ পরিণতি : আশরাফুল

বাংলাদেশের অভিষেক টেস্টের কোচ সারোয়ার ইমরান আগেরদিনই জাগো নিউজকে বলে দিয়েছিলেন, আমরা ম্যাচের কোথাও নেই। খেলার ৯০ ভাগ নিয়ন্ত্রণ লঙ্কানদের হাতে। খুব অবিশ্বাস্য কিছু না ঘটলে আমাদের ১০ শতাংশও সুযোগ নেই।

 

ঠিক তাই হয়েছে। পাঁচ উইকেট হাতে রেখে ২৬০ রানের লক্ষ্য নিয়ে আজ (সোমবার) শেষদিন মাঠে নেমে মাত্র ৫০ রান যোগ করেই অলআউট মুমিনুলের দল। আর তাতে ২০৯ রানের বিরাট পরাজয় গ্রাস করেছে। এমন ফল যে হতে পারে, তার আভাস মিলেছিল চতুর্থ দিন শেষেই।

তামিম ইকবাল, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহীম আর দুই নবীন সাইফ হাসান এবং নাজমুল হোসেন শান্ত আগেই সাজঘরে ফিরে গিয়েছিলেন। শেষ স্বীকৃত ব্যাটিং লিটন দাস আর মিরাজ ছিলেন অপরাজিত। কিন্তু তারাও কিছু করতে পারেননি। সকালে তৃতীয় বলেই আউট লিটন। তারপর যাওয়া আসার পালায় ২২৭ রানে শেষ দ্বিতীয় ইনিংস।

 

কেন এমন করুণ পরিণতি? তা নিয়ে নানা ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ। জাগো নিউজের পাঠকদের জন্য বাংলাদেশের এমন করুণ পরিণতির কারণ চিহ্নিত করতে কথা বলেছেন সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল। সর্বকণিষ্ঠ টেস্ট ব্যাটসম্যান হিসেবে এই শ্রীলঙ্কায় টেস্ট অভিষেকে শতরান করা আশরাফুলের মতে, মুমিনুল বাহিনীর এত বড় পরাজয়ের প্রধান কারণ হলো টস হারা এবং ভুল একাদশ সাজানো।

 

আশরাফুল ধরা গলায় বলেন, ‘আসলে দুঃখ লাগছে অনেক। পাশাপাশি একটি আফসোসও কুড়ে খাচ্ছে। তা হলো একাদশ নির্বাচন। আমরা দেশে থেকে যেটা ফিল করছিলাম, যারা খুব কাছ থেকে মাঠ, উইকেট আর লঙ্কান স্কোয়াড দেখেও কেন তা ঠাউরে উঠলেন না, তা আমার কিছুতেই মাথায় ঢুকছে না।’

 

আমাদের টিম ম্যানেজম্যান্টের অবশ্যই বোঝা উচিৎ ছিল, লঙ্কান স্কোয়াডে বাড়তি স্পিনার, উইকেট প্রথম টেস্টের তুলনায় অনেক বেশি শুকনো- তার মানে টার্নিং পিচ হবে। প্রথম দুই-তিন দিন ঠিক থাকলেও, চতুর্থ দিন থেকে পিচে টার্ন থাকবে। সেখানে বাড়তি স্পিনার না হয়, স্পিনিং অলরাউন্ডারের অন্তর্ভুক্তি খুব জরুরি ছিল।’

‘টিম ম্যানেজমেন্টের প্রতি সম্মান রেখেই বলছি, একাদশ নির্বাচন দেখে মনে হয়নি তারা সেটা বিবেচনায় এনেছেন। তা বিবেচনায় আনলে অতি অবশ্যই একজন পেসার কমিয়ে বাড়তি স্পিনার না হয় ব্যাটসম্যান দলে রাখতেন। কিন্তু তারা তা করেননি। কাজেই আমি বলব, এই টেস্টে একাদশ সাজানোই ঠিক ছিল না।’

 

সেটা কেমন? আশরাফুলের জবাব, ‘এই পাল্লেকেল্লে স্টেডিয়ামে প্রথম টেস্টে স্বাগতিকরা তিন পেসার দিয়ে টাইগারদের ঘায়েল করতে চেয়েছিল। কিন্তু তা হয়নি। আমাদের তামিম শুরুতেই লঙ্কান পেস বোলিংকে তছনছ করে দিয়েছে। পরে শান্ত-মুমিনুল আর মুশফিক-লিটনও ভাল খেলে স্বাগতিকদের হতাশায় ডুবিয়েছে। তাই দ্বিতীয় টেস্টে লঙ্কানরা কৌশল পাল্টাতে পারে আমার মনে হচ্ছিল। ঠিক তাই হয়েছে।’

 

‘এই টেস্টে লঙ্কানরা আসলে জয়ের লক্ষ্যেই স্পিন সহায়ক পিচ তৈরি করেছে। সেটা বোঝাই যাচ্ছিল। আর তাই ওদের একাদশে দুজন স্পিনার। অফস্পিনার রমেশ মেন্ডিস আর বাঁহাতি অর্থোডক্স প্রবীন জয়াবিক্রম। তারাই পার্থক্য গড়ে দিয়েছে। দুজনে মিলে আমাদের ২০ উইকেটের ১৭টি নিয়েছে।’

 

‘অথচ আমরা হাঁটলাম ভুল পথে। উইকেট আর প্রতিপক্ষ স্কোয়াড দেখেও আমরা টিম কম্বিনেশনে কোনো রদবদল করলাম না, সেটা একই থাকলো। সেই ৬ ব্যাটসম্যান আর ৫ বোলার ফর্মুলাই অনুসরণ করলাম। যা এই পিচের সঙ্গে মোটেও মানানসই ছিল না।’

 

আমাদের যেহেতু স্কোয়াডে শুভাগত হোম আছে। কাজেই আমি মনে করি একজন পেসার কমিয়ে শুভাগতকে খেলানো উচিৎ ছিল। তাতে একজন স্পিনারই শুধু বাড়ত না, ব্যাটিংটাও লম্বা হতো। শুভাগতর ব্যাটিং আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে হয়তো পরীক্ষিত না, তবে আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটে যতটা দেখেছি, তাতে মনে হয়েছে তার ব্যাটিং সামর্থ্য ভালো। আর বাড়তি স্পিনার হিসেবেও কাজ চালিয়ে যেতে পারত।’

 

আমাদের মিরাজের পরে নিচের দিকে আর কেউ নেই যে এক-আধটু ব্যাটিং পারে। লেজের অবস্থা খুব খারাপ। তাসকিন, তাইজুল, রাহি আর শরিফুল কিছুই ব্যাটিং পারে না। তার জ্বলন্ত উদাহরণ হলো প্রথম ইনিংসে শেষ ৫ উইকেটের পতন ঘটেছিল ২৭ রানে। আর আজ আমরা শেষ ৫ উইকেট হারিয়েছি ৪৪ রানে। শুভাগত থাকলে ব্যাটিংটাও বাড়ত।সূএ:জাগোনিউজ২৪.কম

Facebook Comments Box
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» করোনায় আরও ৪৫ জনের প্রাণহানি, শনাক্ত ১২৮৫

» পাবনায় পূর্ব বিরোধের জের ধরে পুরুষ ভিক্ষুকের ছুরিকাঘাতে নারী ভিক্ষুকের মৃত্যু

» বিমানবন্দর থেকে সোয়া কোটি টাকা মূল্যের দুই কেজি দুই গ্রাম সোনা জব্দ

» এবার একসাথে চার মোশাররফ করিম!

» সাকিবের আরেক সতীর্থ করোনায় আক্রান্ত

» মাত্র ২৭ সেকেন্ডেই প্রসব, বিশ্বে রেকর্ড গড়লেন তরুণী

» খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেয়ার প্রয়োজন নেই: হানিফ

» করোনা শুধু ফুসফুসকে আক্রান্ত করে না, রক্তও জমাট বাঁধায়

» হিটলারের ৫৯০০ কোটি টাকার গুপ্তধনের সন্ধান!

» বিল-মেলিন্ডা গেটসের ছাড়াছাড়ির আগে বিশ্বের সবচেয়ে ব্যয়বহুল পাঁচটি বিবাহবিচ্ছেদ

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

ভুল একাদশের কারণে বাংলাদেশের করুণ পরিণতি : আশরাফুল

বাংলাদেশের অভিষেক টেস্টের কোচ সারোয়ার ইমরান আগেরদিনই জাগো নিউজকে বলে দিয়েছিলেন, আমরা ম্যাচের কোথাও নেই। খেলার ৯০ ভাগ নিয়ন্ত্রণ লঙ্কানদের হাতে। খুব অবিশ্বাস্য কিছু না ঘটলে আমাদের ১০ শতাংশও সুযোগ নেই।

 

ঠিক তাই হয়েছে। পাঁচ উইকেট হাতে রেখে ২৬০ রানের লক্ষ্য নিয়ে আজ (সোমবার) শেষদিন মাঠে নেমে মাত্র ৫০ রান যোগ করেই অলআউট মুমিনুলের দল। আর তাতে ২০৯ রানের বিরাট পরাজয় গ্রাস করেছে। এমন ফল যে হতে পারে, তার আভাস মিলেছিল চতুর্থ দিন শেষেই।

তামিম ইকবাল, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহীম আর দুই নবীন সাইফ হাসান এবং নাজমুল হোসেন শান্ত আগেই সাজঘরে ফিরে গিয়েছিলেন। শেষ স্বীকৃত ব্যাটিং লিটন দাস আর মিরাজ ছিলেন অপরাজিত। কিন্তু তারাও কিছু করতে পারেননি। সকালে তৃতীয় বলেই আউট লিটন। তারপর যাওয়া আসার পালায় ২২৭ রানে শেষ দ্বিতীয় ইনিংস।

 

কেন এমন করুণ পরিণতি? তা নিয়ে নানা ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ। জাগো নিউজের পাঠকদের জন্য বাংলাদেশের এমন করুণ পরিণতির কারণ চিহ্নিত করতে কথা বলেছেন সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল। সর্বকণিষ্ঠ টেস্ট ব্যাটসম্যান হিসেবে এই শ্রীলঙ্কায় টেস্ট অভিষেকে শতরান করা আশরাফুলের মতে, মুমিনুল বাহিনীর এত বড় পরাজয়ের প্রধান কারণ হলো টস হারা এবং ভুল একাদশ সাজানো।

 

আশরাফুল ধরা গলায় বলেন, ‘আসলে দুঃখ লাগছে অনেক। পাশাপাশি একটি আফসোসও কুড়ে খাচ্ছে। তা হলো একাদশ নির্বাচন। আমরা দেশে থেকে যেটা ফিল করছিলাম, যারা খুব কাছ থেকে মাঠ, উইকেট আর লঙ্কান স্কোয়াড দেখেও কেন তা ঠাউরে উঠলেন না, তা আমার কিছুতেই মাথায় ঢুকছে না।’

 

আমাদের টিম ম্যানেজম্যান্টের অবশ্যই বোঝা উচিৎ ছিল, লঙ্কান স্কোয়াডে বাড়তি স্পিনার, উইকেট প্রথম টেস্টের তুলনায় অনেক বেশি শুকনো- তার মানে টার্নিং পিচ হবে। প্রথম দুই-তিন দিন ঠিক থাকলেও, চতুর্থ দিন থেকে পিচে টার্ন থাকবে। সেখানে বাড়তি স্পিনার না হয়, স্পিনিং অলরাউন্ডারের অন্তর্ভুক্তি খুব জরুরি ছিল।’

‘টিম ম্যানেজমেন্টের প্রতি সম্মান রেখেই বলছি, একাদশ নির্বাচন দেখে মনে হয়নি তারা সেটা বিবেচনায় এনেছেন। তা বিবেচনায় আনলে অতি অবশ্যই একজন পেসার কমিয়ে বাড়তি স্পিনার না হয় ব্যাটসম্যান দলে রাখতেন। কিন্তু তারা তা করেননি। কাজেই আমি বলব, এই টেস্টে একাদশ সাজানোই ঠিক ছিল না।’

 

সেটা কেমন? আশরাফুলের জবাব, ‘এই পাল্লেকেল্লে স্টেডিয়ামে প্রথম টেস্টে স্বাগতিকরা তিন পেসার দিয়ে টাইগারদের ঘায়েল করতে চেয়েছিল। কিন্তু তা হয়নি। আমাদের তামিম শুরুতেই লঙ্কান পেস বোলিংকে তছনছ করে দিয়েছে। পরে শান্ত-মুমিনুল আর মুশফিক-লিটনও ভাল খেলে স্বাগতিকদের হতাশায় ডুবিয়েছে। তাই দ্বিতীয় টেস্টে লঙ্কানরা কৌশল পাল্টাতে পারে আমার মনে হচ্ছিল। ঠিক তাই হয়েছে।’

 

‘এই টেস্টে লঙ্কানরা আসলে জয়ের লক্ষ্যেই স্পিন সহায়ক পিচ তৈরি করেছে। সেটা বোঝাই যাচ্ছিল। আর তাই ওদের একাদশে দুজন স্পিনার। অফস্পিনার রমেশ মেন্ডিস আর বাঁহাতি অর্থোডক্স প্রবীন জয়াবিক্রম। তারাই পার্থক্য গড়ে দিয়েছে। দুজনে মিলে আমাদের ২০ উইকেটের ১৭টি নিয়েছে।’

 

‘অথচ আমরা হাঁটলাম ভুল পথে। উইকেট আর প্রতিপক্ষ স্কোয়াড দেখেও আমরা টিম কম্বিনেশনে কোনো রদবদল করলাম না, সেটা একই থাকলো। সেই ৬ ব্যাটসম্যান আর ৫ বোলার ফর্মুলাই অনুসরণ করলাম। যা এই পিচের সঙ্গে মোটেও মানানসই ছিল না।’

 

আমাদের যেহেতু স্কোয়াডে শুভাগত হোম আছে। কাজেই আমি মনে করি একজন পেসার কমিয়ে শুভাগতকে খেলানো উচিৎ ছিল। তাতে একজন স্পিনারই শুধু বাড়ত না, ব্যাটিংটাও লম্বা হতো। শুভাগতর ব্যাটিং আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে হয়তো পরীক্ষিত না, তবে আমাদের ঘরোয়া ক্রিকেটে যতটা দেখেছি, তাতে মনে হয়েছে তার ব্যাটিং সামর্থ্য ভালো। আর বাড়তি স্পিনার হিসেবেও কাজ চালিয়ে যেতে পারত।’

 

আমাদের মিরাজের পরে নিচের দিকে আর কেউ নেই যে এক-আধটু ব্যাটিং পারে। লেজের অবস্থা খুব খারাপ। তাসকিন, তাইজুল, রাহি আর শরিফুল কিছুই ব্যাটিং পারে না। তার জ্বলন্ত উদাহরণ হলো প্রথম ইনিংসে শেষ ৫ উইকেটের পতন ঘটেছিল ২৭ রানে। আর আজ আমরা শেষ ৫ উইকেট হারিয়েছি ৪৪ রানে। শুভাগত থাকলে ব্যাটিংটাও বাড়ত।সূএ:জাগোনিউজ২৪.কম

Facebook Comments Box
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com