বড় হারে হোয়াইটওয়াশ হলো টাইগাররা

পোর্ট এলিজাবেথ টেস্টে দুই প্রোটিয়া স্পিনার কেশভ মাহারাজ এবং সিমোন হার্মারের ঘূর্ণিতে চতুর্থ দিনের প্রথম সেশনের প্রথম ভাগেই শেষ সাতটি উইকেট হারিয়ে বসে সফররত বাংলাদেশ দল। ব্যাট হাতে তুলেছে মাত্র ৮০ রান। ফলে ৩৩২ রানের বড় ব্যবধানে হারলেন রাসেল ডোমিঙ্গোর শিষ্যরা। আর তাতেই হতে হলো হোয়াইটওয়াশ।

 

দক্ষিণ আফ্রিকার দেয়া ৪১৩ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে তৃতীয় দিনের শেষ বিকেলে মাত্র ২৭ রানে তিন উইকেট হারায় টাইগাররা। বাংলাদেশের হারটা অবশ্য সেদিনই অনেকটা নিশ্চিত হয়ে যায়। এরপরও আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ দল ঘুরে দাঁড়াতে চতুর্থ দিনে ব্যাট করতে আসে।

 

দিনের শুরুতে মুশফিকুর রহিমকে সঙ্গে নিয় মাঠে ব্যাট কাতে নামেন আগের দিনের অপরাজিত ব্যাটার দলনেতা মুমিনুল হক। দিনের প্রথম বলেই বাই চারে খেলা শুরু হলে ভালো কিছু হওয়ার আশ্বাস পায় সফরকারীরা।

 

কিন্তু আশায় গুড়েবালি হয় দিনের দ্বিতীয় ওভারেই। দক্ষিণ আফ্রিকান স্পিনার কেশভ মাহারাজের করা বলে ক্যাচ হয়ে সাজঘরে ফেরেন মুশফিক। ৮ বলে মাত্র ১ রান করে মাহারাজের বলে এলগারের হাতে ক্যাচ তুলে দেন মুশফিকুর রহিম। আর উইকেটের সেই ধারা অব্যাহতই থাকে।

 

এরপর অধিনায়ক মুমিনুল ফিরেছেন ২৫ বলে ৫ রানে। আর ইয়াসির রাব্বি আউট হওয়ার আগে কোনো রানই করতে পারেননি।

দলের এমতাবস্থায় কিছু দলকে কিছু রান এনে দেন লিটন কুমার দাস এবং মেহেদি হাসান মিরাজ। কিন্তু দুজনের কেউই ক্রিজে বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি। ৩৩ বলে ২৭ রানে লিটন এবং ২৫ বলে ২০ রানে মিরাজ সাজঘরে ফেরেন।

পরের দুই উইকেট পড়েছে মাত্র চার বলের মাঝখানে। কেশভ মাহারাজের করা ইনিংসের ২৩তম ওভারের প্রথম বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন খালেদ আহমেদ। আর পরের ওভারের তৃতীয় বলে তাইজুলকে এলবিডব্লিউ করে সাজঘরে পাঠান সিমোন হার্মার। এই দুই ব্যাটারের কেউই রানের খাতা খুলতে পারেননি। অন্যদিকে শূন্যরানে অপরাজিত থাকেন ইবাদত হোসেন।

 

দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে মাত্র ৪০ রান খরচ করে সর্বোচ্চ সাতটি উইকেট নেন দলীয় বাঁ-হাতি স্পিনার কেশব মাহারজ। অন্যদিকে ৩৪ রানের খরচায় তিনটি উইকেট পেয়েছেন আরেক স্পিনার হার্মার।

 

দক্ষিণ আফ্রিকান বোলিং অলরাউন্ডার কেশভ মাহারাজ ম্যাচসেরা এবং সিরিজসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন।

 

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» কোটা সমাধান আদালতের মাধ্যমেই : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

» অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগোচ্ছে দেশ, ধারা অব্যাহত রাখতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

» আপিল বিভাগের রায়ের পর কোটা নিয়ে কমিশন গঠনের সুযোগ নেই : তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী

» রাস্তাঘাট বন্ধ না করে আদালতে এসে কথা বলুন : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

» শিক্ষার্থীরাই হবে আগামী বাংলাদেশের কর্ণধার-ধর্মমন্ত্রী

» স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মানে জনপ্রতিনিধি ও কর্মকর্তাদের সম্মিলিত ভাবে কাজ করতে হবে- ধর্মমন্ত্রী

» প্রথম ৬ মাসে ব্র্যাক ব্যাংকের ৫,৫০০ কোটি টাকার নিট ডিপোজিট প্রবৃদ্ধি অর্জন

» ঢাকার মূল সড়কে চলতে পারবে না যেসব যান, জানাল ট্রাফিক বিভাগ

» ৬ বছর বয়সী মাদরাসাছাত্র তামিমকে হত্যার ঘটনায় দুইজন গ্রেপ্তার

» ৫০ থেকে একশ শয্যায় উন্নীত হবে সব হাসপাতাল: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

বড় হারে হোয়াইটওয়াশ হলো টাইগাররা

পোর্ট এলিজাবেথ টেস্টে দুই প্রোটিয়া স্পিনার কেশভ মাহারাজ এবং সিমোন হার্মারের ঘূর্ণিতে চতুর্থ দিনের প্রথম সেশনের প্রথম ভাগেই শেষ সাতটি উইকেট হারিয়ে বসে সফররত বাংলাদেশ দল। ব্যাট হাতে তুলেছে মাত্র ৮০ রান। ফলে ৩৩২ রানের বড় ব্যবধানে হারলেন রাসেল ডোমিঙ্গোর শিষ্যরা। আর তাতেই হতে হলো হোয়াইটওয়াশ।

 

দক্ষিণ আফ্রিকার দেয়া ৪১৩ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে তৃতীয় দিনের শেষ বিকেলে মাত্র ২৭ রানে তিন উইকেট হারায় টাইগাররা। বাংলাদেশের হারটা অবশ্য সেদিনই অনেকটা নিশ্চিত হয়ে যায়। এরপরও আত্মবিশ্বাসী বাংলাদেশ দল ঘুরে দাঁড়াতে চতুর্থ দিনে ব্যাট করতে আসে।

 

দিনের শুরুতে মুশফিকুর রহিমকে সঙ্গে নিয় মাঠে ব্যাট কাতে নামেন আগের দিনের অপরাজিত ব্যাটার দলনেতা মুমিনুল হক। দিনের প্রথম বলেই বাই চারে খেলা শুরু হলে ভালো কিছু হওয়ার আশ্বাস পায় সফরকারীরা।

 

কিন্তু আশায় গুড়েবালি হয় দিনের দ্বিতীয় ওভারেই। দক্ষিণ আফ্রিকান স্পিনার কেশভ মাহারাজের করা বলে ক্যাচ হয়ে সাজঘরে ফেরেন মুশফিক। ৮ বলে মাত্র ১ রান করে মাহারাজের বলে এলগারের হাতে ক্যাচ তুলে দেন মুশফিকুর রহিম। আর উইকেটের সেই ধারা অব্যাহতই থাকে।

 

এরপর অধিনায়ক মুমিনুল ফিরেছেন ২৫ বলে ৫ রানে। আর ইয়াসির রাব্বি আউট হওয়ার আগে কোনো রানই করতে পারেননি।

দলের এমতাবস্থায় কিছু দলকে কিছু রান এনে দেন লিটন কুমার দাস এবং মেহেদি হাসান মিরাজ। কিন্তু দুজনের কেউই ক্রিজে বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি। ৩৩ বলে ২৭ রানে লিটন এবং ২৫ বলে ২০ রানে মিরাজ সাজঘরে ফেরেন।

পরের দুই উইকেট পড়েছে মাত্র চার বলের মাঝখানে। কেশভ মাহারাজের করা ইনিংসের ২৩তম ওভারের প্রথম বলে এলবিডব্লিউর ফাঁদে পড়েন খালেদ আহমেদ। আর পরের ওভারের তৃতীয় বলে তাইজুলকে এলবিডব্লিউ করে সাজঘরে পাঠান সিমোন হার্মার। এই দুই ব্যাটারের কেউই রানের খাতা খুলতে পারেননি। অন্যদিকে শূন্যরানে অপরাজিত থাকেন ইবাদত হোসেন।

 

দক্ষিণ আফ্রিকার পক্ষে মাত্র ৪০ রান খরচ করে সর্বোচ্চ সাতটি উইকেট নেন দলীয় বাঁ-হাতি স্পিনার কেশব মাহারজ। অন্যদিকে ৩৪ রানের খরচায় তিনটি উইকেট পেয়েছেন আরেক স্পিনার হার্মার।

 

দক্ষিণ আফ্রিকান বোলিং অলরাউন্ডার কেশভ মাহারাজ ম্যাচসেরা এবং সিরিজসেরা ক্রিকেটার নির্বাচিত হয়েছেন।

 

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি। (দপ্তর সম্পাদক)  
উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা
 সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ,
ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন,
ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু,
নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল :০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com