ব্যাংক খাত কেলেঙ্কারি শাস্তি না হওয়ায় বন্ধ হচ্ছে না অনিয়ম

গত কয়েক বছরে ভুয়া কাগজপত্র দিয়ে রাজনৈতিক চাপ ও অনিয়মের মাধ্যমে কিছু প্রতিষ্ঠানকে ঋণ দিয়েছে বিভিন্ন ব্যাংক। আর অনিয়ম করে ঋণ দেওয়ার চাপ থাকে ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের। ফলে একের পর এক কেলেঙ্কারি ঘটছে ব্যাংক খাতে আর এদের কোনো শাস্তি না হওয়ায় এ খাতে অনিয়ম বন্ধ হচ্ছে না বলেও দাবি বিশ্লেষকদের।

রাজনৈতিক প্রভাবে মাত্র ৬ বছরে অ্যাননটেক্স গ্রুপকে জনতা ব্যাংক নিয়ম না মেনে সাড়ে ৫ হাজার কোটি টাকার ঋণ দিয়েছে। এছাড়া সোনালী ব্যাংক হলমার্ককে যে ২ হাজার ৬৬৮ কোটি টাকা দিয়েছে তার বেশির ভাগ ঋণের কোনো আবেদনপত্রও ছিল না। বেসিক ব্যাংক কেলেঙ্কারির সময় কাকে কত টাকা ঋণ দেয়া হয়েছে তারও নির্দিষ্ট কোনো হিসাব নেই ব্যাংকটির কাছে।

শুধু রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকই নয় বেসরকারি ব্যাংকগুলোও জড়িয়ে পড়েছে অনিয়ম ও দুর্নীতিতে। আর ফারমার্স ব্যাংকের ঋণ কেলেঙ্কারিতে সরাসরি জড়িত ছিলেন ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ। এছাড়া এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের অনিয়ম-দুর্নীতির ঘটনাও সবার জানা।

অভ্যন্তরীণ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার দুর্বলতায় ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণ বাড়ছে, যা খুবই উদ্বেগজনক। এতোকিছুর মধ্যে পরিচালকদের স্বার্থেই, বছরের শুরুতে পাস হয়েছে ব্যাংক কোম্পানি আইন। আর এরই মধ্যে কমানো হয়েছে ব্যাংকের সিআরআর।

ব্যাংক মালিকরা বলছেন, ভবিষ্যতে এসব অনিয়ম যাতে আর না হয়, সে ব্যাপারে বেশকিছু উদ্যোগ আছে।

অর্থনীতিবিদরা বলেন, অনিয়ম বন্ধ করতে নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে আর কঠোর হতে হবে। এদিকে ব্যাংককে রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত রাখা না গেলে আর্থিক খাত আর সংকটে পড়বে।

সূত্র : ইনডিপেনডেন্ট টিভি

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» সোনারগাঁয়ে প্রধানমন্ত্রীর খাদ্য উপহার বিতরণ

» মণিরামপুরে ব্যক্তি উদ্যোগে কাঁচা রাস্তা সংস্কার

» করোনা মহামারীতে অসাধু ব্যবসায়ীরা শূন্য থেকে কোটিপতি ॥ ২০ টাকা জীবাণুনাশক   ১২০ ॥ নকল পণ্যের সয়লাব খোলা বাজার 

» স্বাস্থ্যখাতে দুর্নীতিবাজদের ধরতে অভিযান চলবে: দুদক চেয়ারম্যান

» বিমানের ফ্লাইট দুবাইতে ১৩ জুলাই, আবুধাবিতে ১৪ জুলাই থেকে

» পূজাকে কঙ্গনার পাল্টা জবাব

» বন্যা দুর্গত এলাকায় আশ্রয়কেন্দ্র হিসাবে স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার নির্দেশ

» শরীরে কালো ছোপ, বিপদের আশঙ্কা নয়তো?

» ট্রাম্পকে যে ‘কঠিন’ বার্তা দিলেন কিম জং উনের বোন

» শেখ হাসিনার চার দশকে আওয়ামী লীগের অধিকাংশ নেতাই চলে গেলেন পরপারে!

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মাকসুদা লিসা।

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

 

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

ব্যাংক খাত কেলেঙ্কারি শাস্তি না হওয়ায় বন্ধ হচ্ছে না অনিয়ম

গত কয়েক বছরে ভুয়া কাগজপত্র দিয়ে রাজনৈতিক চাপ ও অনিয়মের মাধ্যমে কিছু প্রতিষ্ঠানকে ঋণ দিয়েছে বিভিন্ন ব্যাংক। আর অনিয়ম করে ঋণ দেওয়ার চাপ থাকে ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের। ফলে একের পর এক কেলেঙ্কারি ঘটছে ব্যাংক খাতে আর এদের কোনো শাস্তি না হওয়ায় এ খাতে অনিয়ম বন্ধ হচ্ছে না বলেও দাবি বিশ্লেষকদের।

রাজনৈতিক প্রভাবে মাত্র ৬ বছরে অ্যাননটেক্স গ্রুপকে জনতা ব্যাংক নিয়ম না মেনে সাড়ে ৫ হাজার কোটি টাকার ঋণ দিয়েছে। এছাড়া সোনালী ব্যাংক হলমার্ককে যে ২ হাজার ৬৬৮ কোটি টাকা দিয়েছে তার বেশির ভাগ ঋণের কোনো আবেদনপত্রও ছিল না। বেসিক ব্যাংক কেলেঙ্কারির সময় কাকে কত টাকা ঋণ দেয়া হয়েছে তারও নির্দিষ্ট কোনো হিসাব নেই ব্যাংকটির কাছে।

শুধু রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকই নয় বেসরকারি ব্যাংকগুলোও জড়িয়ে পড়েছে অনিয়ম ও দুর্নীতিতে। আর ফারমার্স ব্যাংকের ঋণ কেলেঙ্কারিতে সরাসরি জড়িত ছিলেন ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ। এছাড়া এনআরবি কমার্শিয়াল ব্যাংকের অনিয়ম-দুর্নীতির ঘটনাও সবার জানা।

অভ্যন্তরীণ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার দুর্বলতায় ব্যাংকিং খাতে খেলাপি ঋণ বাড়ছে, যা খুবই উদ্বেগজনক। এতোকিছুর মধ্যে পরিচালকদের স্বার্থেই, বছরের শুরুতে পাস হয়েছে ব্যাংক কোম্পানি আইন। আর এরই মধ্যে কমানো হয়েছে ব্যাংকের সিআরআর।

ব্যাংক মালিকরা বলছেন, ভবিষ্যতে এসব অনিয়ম যাতে আর না হয়, সে ব্যাপারে বেশকিছু উদ্যোগ আছে।

অর্থনীতিবিদরা বলেন, অনিয়ম বন্ধ করতে নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে আর কঠোর হতে হবে। এদিকে ব্যাংককে রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত রাখা না গেলে আর্থিক খাত আর সংকটে পড়বে।

সূত্র : ইনডিপেনডেন্ট টিভি

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মাকসুদা লিসা।

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

 

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com