বিপিএল লস প্রজেক্ট, আগামী বছর থাকবো কিনা চিন্তা করছি : নাফিসা

আলোচনা-বৈঠক যাই বলা হোক না কেন, বিপিএলের গভর্নিং কাউন্সিলের সাথে ফ্র্যাঞ্চাইজিদের আনুষ্ঠানিক কথোপকথন যতটা উত্তাপ ছড়াবে বলে ভাবা হচ্ছিল, তা ছড়ায়নি। অধিকাংশ ফ্র্যাঞ্চাইজিরা ঘুরে ফিরে আইকন বা এ প্লাস ক্যাটাগরির ক্রিকেটারের কথাই বলেছেন বেশি।

তারা অন্তত একজন করে আইকন বা এ প্লাস ক্যাটাগরির ক্রিকেটার আগে থেকে অন্তর্ভুক্তির সুযোগ করে দেয়ার দাবি তোলেন। পাশাপাশি অন্তত দুজন বিদেশি ক্রিকেটার আগে থেকে দলে রাখার নিশ্চয়তাও চেয়েছেন। এর বাইরে বিপিএলের লভ্যাংশ বণ্টনের কথাও উঠেছে বেশ জোরেসোরে।

খুলনা টাইটান্স, রংপুর রাইডার্স আর রাজশাহী কিংসের ফ্র্যাঞ্চইজিরা বরং অন্তত একজন করে আইকন বা এ প্লাস ক্যাটাগরির ক্রিকেটারের পাশাপাশি দুজন বিদেশি ক্রিকেটারকে আগেভাগে দলে ভেড়ানোর বিষয়েও জোরালো দাবি তোলেন। পাশাপাশি তারা বিপিএলের লভ্যাংশ বণ্টনের দাবিও উত্থাপিত হয়েছে। অবশ্য ফ্র্যাঞ্চাইজিরা লভ্যাংশ চাইলে তাদের ফ্র্যাঞ্চাইজি ফি বাড়ানোর কথা বলেছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল।

তবে সবাইকে ছাপিয়ে লভ্যাংশ নিয়ে অনেক বেশি সিরিয়াস কুমিল্লা স্বত্বাধিকারী নাফিসা কামাল। অনেক কথার ভিড়ে নাফিসা কামাল বোঝানোর চেষ্টা করেন, আসলে বিপিএলে লভ্যাংশ বণ্টন জরুরি। বিশেষ করে গ্রাউন্ডসের আংশিক আর টিকিট বিক্রির স্বত্বটাও ফ্র্যাঞ্চাইজিদের দেয়ার দাবিতে সোচ্চার কুমিল্লা ফ্রাঞ্চাইজির মালিক।

তবে বিসিবি, এসিসি ও আইসিসির সাবেক প্রেসিডেন্ট এবং অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের কন্যা আজ বিসিবির এক তলার লাউঞ্জে লভ্যাংশ বণ্টন নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে গিয়ে রীতিমতো বোমা ফাটিয়েছেন।

তার দাবি, বিপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিদের জন্য মোটেই লাভজনক নয়। রীতিমতো ‘লস প্রজেক্ট’। এরপর একটি মারাত্মক কথা বেরিয়ে এসেছে তার মুখ থেকে। তিনি আগামী বছর কুমিল্লা ভিক্টোরিন্সকে বিপিএলে রাখবেন কি না সে শঙ্কার কথাও জানিয়েছেন।

নাফিসা কামাল বলেন, ‘সাত বছর আমরা বিপিএলে খেলে যাচ্ছি। আমরা পুরনো ফ্র্যাঞ্চাইজি। আমি মালিক হিসেবে সবচেয়ে পুরনো। সিলেটের সাথে ছিলাম। অথচ এখন পর্যন্ত ব্রেক ইভেনে আসতে পারিনি। কোন ফ্র্যাঞ্চাইজিই ব্রেক ইভেনে আসতে পারেনি। এটা আমাদের সবার জন্য লস প্রজেক্ট। আমি চিন্তা করছি, আগামী বছর বিপিএলে থাকব কি না। এই অবস্থায় শুধুই লাভবান হচ্ছে বিসিবি। অবশ্যই আমরা তার অংশ হতে চাইব। আমরা অনেক বড় একটি স্টেকহোল্ডার। এখানে পুরোপুরি ওয়ান সাইডেড টুর্নামেন্ট হচ্ছে। আমরা কিছুই পাচ্ছি না, শুধু দিয়েই যাচ্ছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘রেভিনিউ শেয়ারিং মানে আমরা বলছি না সব টাকা আমাদের দিয়ে দিতে হবে। আমরা বলছি পারশিয়ালি গ্রাউন্ড রাইটস বা টিকিট রাইটস আমাদের অংশীদার করতে হবে। কীভাবে বিক্রি করব সেটা আমাদের দায়িত্ব।জাগোনিউজ

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» ভোটারদের কেন্দ্রে যেতে সহযোগিতা করবে বিএনপি: তাবিথ

» ভয় পাচ্ছেন মুশফিকের পরিবার, যদি ‘কিছু’ হয়ে যায়

» মারা গেলেন বিশ্বের সবচেয়ে ছোট মানুষ

» আব্দুল মান্নানের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

» আব্দুল মান্নানের মরদেহ দেখতে হাসপাতালে ওবায়দুল কাদের

» আওয়ামী লীগ এমপি আব্দুল মান্নান আর নেই

» প্রায় সাড়ে ৫ লাখ বিদেশি কর্মী বছরে দেশ থেকে নিয়ে যাচ্ছে ৪৫ হাজার কোটি টাকা

» রিকশাচালক থেকে শতকোটি টাকার মালিক

» প্রস্তুত মাহি

» খুলনায় সড়ক-মহাসড়কে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে সরকারিভাবে নিষিদ্ধ যান

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...
,

বিপিএল লস প্রজেক্ট, আগামী বছর থাকবো কিনা চিন্তা করছি : নাফিসা

আলোচনা-বৈঠক যাই বলা হোক না কেন, বিপিএলের গভর্নিং কাউন্সিলের সাথে ফ্র্যাঞ্চাইজিদের আনুষ্ঠানিক কথোপকথন যতটা উত্তাপ ছড়াবে বলে ভাবা হচ্ছিল, তা ছড়ায়নি। অধিকাংশ ফ্র্যাঞ্চাইজিরা ঘুরে ফিরে আইকন বা এ প্লাস ক্যাটাগরির ক্রিকেটারের কথাই বলেছেন বেশি।

তারা অন্তত একজন করে আইকন বা এ প্লাস ক্যাটাগরির ক্রিকেটার আগে থেকে অন্তর্ভুক্তির সুযোগ করে দেয়ার দাবি তোলেন। পাশাপাশি অন্তত দুজন বিদেশি ক্রিকেটার আগে থেকে দলে রাখার নিশ্চয়তাও চেয়েছেন। এর বাইরে বিপিএলের লভ্যাংশ বণ্টনের কথাও উঠেছে বেশ জোরেসোরে।

খুলনা টাইটান্স, রংপুর রাইডার্স আর রাজশাহী কিংসের ফ্র্যাঞ্চইজিরা বরং অন্তত একজন করে আইকন বা এ প্লাস ক্যাটাগরির ক্রিকেটারের পাশাপাশি দুজন বিদেশি ক্রিকেটারকে আগেভাগে দলে ভেড়ানোর বিষয়েও জোরালো দাবি তোলেন। পাশাপাশি তারা বিপিএলের লভ্যাংশ বণ্টনের দাবিও উত্থাপিত হয়েছে। অবশ্য ফ্র্যাঞ্চাইজিরা লভ্যাংশ চাইলে তাদের ফ্র্যাঞ্চাইজি ফি বাড়ানোর কথা বলেছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল।

তবে সবাইকে ছাপিয়ে লভ্যাংশ নিয়ে অনেক বেশি সিরিয়াস কুমিল্লা স্বত্বাধিকারী নাফিসা কামাল। অনেক কথার ভিড়ে নাফিসা কামাল বোঝানোর চেষ্টা করেন, আসলে বিপিএলে লভ্যাংশ বণ্টন জরুরি। বিশেষ করে গ্রাউন্ডসের আংশিক আর টিকিট বিক্রির স্বত্বটাও ফ্র্যাঞ্চাইজিদের দেয়ার দাবিতে সোচ্চার কুমিল্লা ফ্রাঞ্চাইজির মালিক।

তবে বিসিবি, এসিসি ও আইসিসির সাবেক প্রেসিডেন্ট এবং অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের কন্যা আজ বিসিবির এক তলার লাউঞ্জে লভ্যাংশ বণ্টন নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলতে গিয়ে রীতিমতো বোমা ফাটিয়েছেন।

তার দাবি, বিপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিদের জন্য মোটেই লাভজনক নয়। রীতিমতো ‘লস প্রজেক্ট’। এরপর একটি মারাত্মক কথা বেরিয়ে এসেছে তার মুখ থেকে। তিনি আগামী বছর কুমিল্লা ভিক্টোরিন্সকে বিপিএলে রাখবেন কি না সে শঙ্কার কথাও জানিয়েছেন।

নাফিসা কামাল বলেন, ‘সাত বছর আমরা বিপিএলে খেলে যাচ্ছি। আমরা পুরনো ফ্র্যাঞ্চাইজি। আমি মালিক হিসেবে সবচেয়ে পুরনো। সিলেটের সাথে ছিলাম। অথচ এখন পর্যন্ত ব্রেক ইভেনে আসতে পারিনি। কোন ফ্র্যাঞ্চাইজিই ব্রেক ইভেনে আসতে পারেনি। এটা আমাদের সবার জন্য লস প্রজেক্ট। আমি চিন্তা করছি, আগামী বছর বিপিএলে থাকব কি না। এই অবস্থায় শুধুই লাভবান হচ্ছে বিসিবি। অবশ্যই আমরা তার অংশ হতে চাইব। আমরা অনেক বড় একটি স্টেকহোল্ডার। এখানে পুরোপুরি ওয়ান সাইডেড টুর্নামেন্ট হচ্ছে। আমরা কিছুই পাচ্ছি না, শুধু দিয়েই যাচ্ছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘রেভিনিউ শেয়ারিং মানে আমরা বলছি না সব টাকা আমাদের দিয়ে দিতে হবে। আমরা বলছি পারশিয়ালি গ্রাউন্ড রাইটস বা টিকিট রাইটস আমাদের অংশীদার করতে হবে। কীভাবে বিক্রি করব সেটা আমাদের দায়িত্ব।জাগোনিউজ

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com