বাস্তবের জুটি ফের পর্দায়

দেব ও রুক্ষিণী। বাস্তবের জুটি তারা। তাদের প্রেম নিয়ে কম আলোচনা হয়নি। যদিও সরাসরি কখনো স্বীকার করেননি তারা। এবার বাস্তবের এই জুটি আবারো আসছেন পর্দায়। রাহুল মুখোপাধ্যায়ের প্রথম ছবি ‘কিশমিশ’-এ ষষ্ঠবারের জন্য জুটি বাঁধলেন দেব আর তার দেবী। ২৯শে এপ্রিল মুক্তি পেতে চলেছে সেই ছবি। তার আগেই লাইভ অনুষ্ঠান ‘অ-জানা কথা’য় নতুন ছবির প্রচারে নায়ক-নায়িকা।

কথার পিঠে কথা বুনতে বুনতেই জনৈক দর্শক-শ্রোতার প্রশ্ন, ছবির গল্প প্রথম কার মাথায় এসেছিল? ছবির নাম কেনই বা ‘কিশমিশ’? দেবের জবাব, ছবির গল্পকার পরিচালক রাহুল মুখোপাধ্যায়। তিনি গল্পটি নিয়ে ৮ বছর ধরে ঘুরছিলেন। নতুন বলে কোনো প্রযোজক সাহস দেখাননি। সাল ২০১৯। তার কাছে গল্পটি আসে খরাজ মুখোপাধ্যায়ের মাধ্যমে। সেই সময় দেব আর খরাজ ‘হবু চন্দ্র রাজা গবু চন্দ্র মন্ত্রী’র শুটিং করছিলেন হায়দরাবাদে। অভিনেতার দাবি, তিনিও রাহুলকে চিনতেন। পরিচালক এর আগে তার ‘ধূমকেতু’ ছবির এক্সিকিউটিভ প্রোডিউসর ছিলেন। প্রথম দিনেই গল্প শুনে মন ভরে যায় দেবের। তার হাত ধরেই রাহুল পরিচালনায়। রুক্ষিণী শোনালেন অন্য গল্প। তার দাবি, তিনি কিন্তু দেবের আগেই গল্পটি শুনেছেন। তখন তিনি শুধুই মডেলিং করেন। রাহুল এবং রুক্ষিণী দু’জনেই মুম্বইয়ে।

 

যদিও নায়িকা হওয়ার ভাবনা মাথায় নেই। তাই রাহুল তার প্রথম ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব দেয়ার পরে প্রথমেই না বলেছিলেন। পরক্ষণেই হাসতে হাসতে দাবি তার, কপালের লেখা কে খণ্ডাবে! ২০১৯-এ রাহুলের সেই ছবিতেই তিনি নায়িকা। যা মুক্তি পাচ্ছে আগামী শুক্রবার। ছবির নাম আরও অনেক কিছুই হতে পারতো। কিন্তু ‘কিশমিশ’-ই কেন? দেবের বক্তব্য, ভালোবাসার ছবি এখন খুব কম তৈরি হচ্ছে বাংলায়। একটি ফর্মুলা হিট হলে বারবার তাকে সামনে রেখেই ছবি হয়। সেই মিথ ভাঙতে এই প্রেমের ছবি।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিক্রি ও সেবনের অপরাধে ৮৩ জন আটক

» মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ কী করবেন?

» রাজধানীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু

» বগুড়ার ১৪ এলাকায় ৩ দিন গ্যাস থাকবে না

» যাক্কুম, এক বীভৎস ফলের গাছ

» নবম শ্রেণির বাদ পড়া শিক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশন ও সংশোধন শুরু

» গর্ভপাত শব্দটি বলতে পারবেন না ফেসবুক কর্মীরা

» ফরিদপুর থেকে ফেন্সিডিলসহ এক মাদক ব্যাবসায়ী আটক

» বেগমগঞ্জে ইয়াবাসহ কারবারি গ্রেপ্তার

» আজ বিশ্ব জীববৈচিত্র্য দিবস

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

বাস্তবের জুটি ফের পর্দায়

দেব ও রুক্ষিণী। বাস্তবের জুটি তারা। তাদের প্রেম নিয়ে কম আলোচনা হয়নি। যদিও সরাসরি কখনো স্বীকার করেননি তারা। এবার বাস্তবের এই জুটি আবারো আসছেন পর্দায়। রাহুল মুখোপাধ্যায়ের প্রথম ছবি ‘কিশমিশ’-এ ষষ্ঠবারের জন্য জুটি বাঁধলেন দেব আর তার দেবী। ২৯শে এপ্রিল মুক্তি পেতে চলেছে সেই ছবি। তার আগেই লাইভ অনুষ্ঠান ‘অ-জানা কথা’য় নতুন ছবির প্রচারে নায়ক-নায়িকা।

কথার পিঠে কথা বুনতে বুনতেই জনৈক দর্শক-শ্রোতার প্রশ্ন, ছবির গল্প প্রথম কার মাথায় এসেছিল? ছবির নাম কেনই বা ‘কিশমিশ’? দেবের জবাব, ছবির গল্পকার পরিচালক রাহুল মুখোপাধ্যায়। তিনি গল্পটি নিয়ে ৮ বছর ধরে ঘুরছিলেন। নতুন বলে কোনো প্রযোজক সাহস দেখাননি। সাল ২০১৯। তার কাছে গল্পটি আসে খরাজ মুখোপাধ্যায়ের মাধ্যমে। সেই সময় দেব আর খরাজ ‘হবু চন্দ্র রাজা গবু চন্দ্র মন্ত্রী’র শুটিং করছিলেন হায়দরাবাদে। অভিনেতার দাবি, তিনিও রাহুলকে চিনতেন। পরিচালক এর আগে তার ‘ধূমকেতু’ ছবির এক্সিকিউটিভ প্রোডিউসর ছিলেন। প্রথম দিনেই গল্প শুনে মন ভরে যায় দেবের। তার হাত ধরেই রাহুল পরিচালনায়। রুক্ষিণী শোনালেন অন্য গল্প। তার দাবি, তিনি কিন্তু দেবের আগেই গল্পটি শুনেছেন। তখন তিনি শুধুই মডেলিং করেন। রাহুল এবং রুক্ষিণী দু’জনেই মুম্বইয়ে।

 

যদিও নায়িকা হওয়ার ভাবনা মাথায় নেই। তাই রাহুল তার প্রথম ছবিতে অভিনয়ের প্রস্তাব দেয়ার পরে প্রথমেই না বলেছিলেন। পরক্ষণেই হাসতে হাসতে দাবি তার, কপালের লেখা কে খণ্ডাবে! ২০১৯-এ রাহুলের সেই ছবিতেই তিনি নায়িকা। যা মুক্তি পাচ্ছে আগামী শুক্রবার। ছবির নাম আরও অনেক কিছুই হতে পারতো। কিন্তু ‘কিশমিশ’-ই কেন? দেবের বক্তব্য, ভালোবাসার ছবি এখন খুব কম তৈরি হচ্ছে বাংলায়। একটি ফর্মুলা হিট হলে বারবার তাকে সামনে রেখেই ছবি হয়। সেই মিথ ভাঙতে এই প্রেমের ছবি।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com