পাকিস্তানে প্রস্তুত হচ্ছে ২০০ কেজি স্বর্ণখচিত কোরআন

বিশ্বের ‘বৃহত্তম’ স্বর্ণখচিত কোরআন শরিফ প্রস্তুতে হাত দিয়েছেন পাকিস্তানের সুপরিচিত শিল্পী ও ভাস্কর শহিদ রাসাম। এরই মধ্যে কোরআনের উল্লেখযোগ্য একটি অংশ লেখা শেষ। ব্যক্তিগত উদ্যোগে এতদূর এগোলেও ব্যয়বহুল এ প্রকল্প শেষ করতে এখন সবার সহযোগিতা চান রাসাম। এ জন্য গত সপ্তাহে করাচি প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন ডেকেছিলেন তিনি।

 

শহিদ রাসাম জানিয়েছেন, তিনি ২০১৬ সালে বিশ্বের ‘বৃহত্তম স্বর্ণমণ্ডিত কোরআন শরিফ’ প্রস্তুতের কাজ শুরু করেন আর তা শেষ হতে আরও অন্তত দু’বছর লাগবে।

পাকিস্তানি এ স্থপতি জানিয়েছেন, ৫৫০ পৃষ্ঠার বিশালাকার ওই কোরআনের অনুলিপিতে ব্যবহার করা হচ্ছে দুই হাজার কেজি অ্যালুমিনিয়াম, লাগবে ২০০ কেজি স্বর্ণও।

Quran--2.jpg

এর প্রত্যেক পৃষ্ঠা দুই মিটার চওড়া, লম্বায় ২ দশমিক ৬ মিটার। এতে লেখার জন্য কালি বা রঙের পরিবর্তে বসানো হচ্ছে ধাতব অক্ষর। কাগজের বদলে থাকছে দীর্ঘস্থায়ী ক্যানভাস। এ ধরনের উপকরণ ব্যবহারের কারণে কোরআনের এই অনুলিপি কয়েক হাজার বছর টিকবে বলে বিশ্বাস করেন এর নির্মাতারা।

 

সংবাদ সম্মেলনে রাসাম বলেন, প্রথমদিকে আমি যখন এই কাজের কথা বন্ধুবান্ধবদের জানাই, তখন আনোয়ার মাকসুদ (পাকিস্তানি লেখক) জিজ্ঞেস করেছিলেন, এতে কতদিন লাগবে। এরপর দুই বছরে মাত্র দুই পৃষ্ঠার কাজ শেষ করে পারি। তখন তিনি (আনোয়ার) আমাকে বলেছিলেন, এর পুরো কাজ কি আমার নাতি-নাতনিরা শেষ করবে? এরপরই আমি ২০০ তরুণ ক্যালিওগ্রাফার, ডিজাইনার, পেইন্টার ও স্থপতি এনে কাজের গতি বাড়াই। তাদের সবাইকেই বেতন দেওয়া হচ্ছে, কেউ বিনামূল্যে কাজ করছে না।

Quran--2.jpg

পাকিস্তানি এ স্থপতি জানান, তার প্রকল্পটি শেষ করতে আরও সাড়ে তিন কোটি ডলার দরকার হতে পারে। এজন্য দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার, রাজ্য সরকার ও বেসরকারি দাতাদের কাছে সাহায্য চেয়েছেন তিনি।

 

বিশ্বের বৃহত্তম স্বর্ণখচিত কোরআনের কাজ শেষ হলে সেটি কোনো জাদুঘরে প্রদর্শনের দরকার হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন সংবাদ সম্মেলনে রাসামের পাশে থাকা বন্ধু আনোয়ার। কারণ এতে যে পরিমাণ স্বর্ণ ব্যবহার করা হচ্ছে, তার নিরাপত্তায় বাড়তি লোকজন দরকার হবে।

 

কোরআনটির কিছু অংশ বর্তমানে দুবাই এক্সপো’তে পাকিস্তান প্যাভিলিয়েন দেখানো হচ্ছে।  সূত্র: ডন, গালফ নিউজ

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» অবাধ সন্ত্রাসে নির্বাচন সুষ্ঠু হতে পারে না: জিএম কাদের

» জাতির পিতার সমাধিতে রাষ্ট্রপতির শ্রদ্ধা

» রিপনকে নির্বাচিত করলে সব সমস্যার সমাধান হবে : নানক

» রাজধানীর বনানীর স্টার কাবাব ভবনের আগুন নিয়ন্ত্রণে

» এক বা দুই বছর নয়, ৫০০ বছরেও বাড়ি ভাড়া বাড়েনি যে শহরে

» রাজধানীর বনানীর স্টার কাবাব ভবনে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ২ ইউনিট

» ডিসি-এসপিদের সঙ্গে শনিবার বৈঠকে বসবে ইসি

» আদিতমারী আ.লীগের সম্মেলন উপলক্ষে বর্ণিল সাজ

» দুর্গোৎসব শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হওয়ায় ফুলপুরবাসীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন ওসি মামুন

» মুরগির খামারের পাশে অভিনব কায়দায় লুকিয়ে রাখা বিদেশি অস্ত্র উদ্ধার,৩ যুবক গ্রেফতার

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

পাকিস্তানে প্রস্তুত হচ্ছে ২০০ কেজি স্বর্ণখচিত কোরআন

বিশ্বের ‘বৃহত্তম’ স্বর্ণখচিত কোরআন শরিফ প্রস্তুতে হাত দিয়েছেন পাকিস্তানের সুপরিচিত শিল্পী ও ভাস্কর শহিদ রাসাম। এরই মধ্যে কোরআনের উল্লেখযোগ্য একটি অংশ লেখা শেষ। ব্যক্তিগত উদ্যোগে এতদূর এগোলেও ব্যয়বহুল এ প্রকল্প শেষ করতে এখন সবার সহযোগিতা চান রাসাম। এ জন্য গত সপ্তাহে করাচি প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন ডেকেছিলেন তিনি।

 

শহিদ রাসাম জানিয়েছেন, তিনি ২০১৬ সালে বিশ্বের ‘বৃহত্তম স্বর্ণমণ্ডিত কোরআন শরিফ’ প্রস্তুতের কাজ শুরু করেন আর তা শেষ হতে আরও অন্তত দু’বছর লাগবে।

পাকিস্তানি এ স্থপতি জানিয়েছেন, ৫৫০ পৃষ্ঠার বিশালাকার ওই কোরআনের অনুলিপিতে ব্যবহার করা হচ্ছে দুই হাজার কেজি অ্যালুমিনিয়াম, লাগবে ২০০ কেজি স্বর্ণও।

Quran--2.jpg

এর প্রত্যেক পৃষ্ঠা দুই মিটার চওড়া, লম্বায় ২ দশমিক ৬ মিটার। এতে লেখার জন্য কালি বা রঙের পরিবর্তে বসানো হচ্ছে ধাতব অক্ষর। কাগজের বদলে থাকছে দীর্ঘস্থায়ী ক্যানভাস। এ ধরনের উপকরণ ব্যবহারের কারণে কোরআনের এই অনুলিপি কয়েক হাজার বছর টিকবে বলে বিশ্বাস করেন এর নির্মাতারা।

 

সংবাদ সম্মেলনে রাসাম বলেন, প্রথমদিকে আমি যখন এই কাজের কথা বন্ধুবান্ধবদের জানাই, তখন আনোয়ার মাকসুদ (পাকিস্তানি লেখক) জিজ্ঞেস করেছিলেন, এতে কতদিন লাগবে। এরপর দুই বছরে মাত্র দুই পৃষ্ঠার কাজ শেষ করে পারি। তখন তিনি (আনোয়ার) আমাকে বলেছিলেন, এর পুরো কাজ কি আমার নাতি-নাতনিরা শেষ করবে? এরপরই আমি ২০০ তরুণ ক্যালিওগ্রাফার, ডিজাইনার, পেইন্টার ও স্থপতি এনে কাজের গতি বাড়াই। তাদের সবাইকেই বেতন দেওয়া হচ্ছে, কেউ বিনামূল্যে কাজ করছে না।

Quran--2.jpg

পাকিস্তানি এ স্থপতি জানান, তার প্রকল্পটি শেষ করতে আরও সাড়ে তিন কোটি ডলার দরকার হতে পারে। এজন্য দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার, রাজ্য সরকার ও বেসরকারি দাতাদের কাছে সাহায্য চেয়েছেন তিনি।

 

বিশ্বের বৃহত্তম স্বর্ণখচিত কোরআনের কাজ শেষ হলে সেটি কোনো জাদুঘরে প্রদর্শনের দরকার হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন সংবাদ সম্মেলনে রাসামের পাশে থাকা বন্ধু আনোয়ার। কারণ এতে যে পরিমাণ স্বর্ণ ব্যবহার করা হচ্ছে, তার নিরাপত্তায় বাড়তি লোকজন দরকার হবে।

 

কোরআনটির কিছু অংশ বর্তমানে দুবাই এক্সপো’তে পাকিস্তান প্যাভিলিয়েন দেখানো হচ্ছে।  সূত্র: ডন, গালফ নিউজ

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com