নারী পুরুষের আবেগ ভিন্ন হয় কেন ?

নারীদের মতো পুরুষদের চোখে সহজে পানি আসে না। কিন্তু কেন? সেই উত্তর অবশেষে পাওয়া গেল। সুইজারল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অফ বেজেল- এর একটি গবেষণার প্রতিবেদন অনুযায়ী, পুরুষ ও নারীদের মস্তিষ্কে কিছু পার্থক্য থাকে। যার জন্য পুরুষরা নারীদের মতো অনুভূতিহীন ও আবেগপ্রবণ হন না। অনেক পুরুষের মধ্যে তো কোনো আবেগ বা অন্যের প্রতি শ্রদ্ধাও থাকে না।

কার আবেগ বেশি নারী না পুরুষের? এই আলোচনা অনেকেই করে থাকেন। কিন্তু আমরা জানি না মস্তিষ্কের সংযোগকারী বিভিন্ন স্নায়ুর পার্থক্যের কারণেই মানুষের আবেগগত আচরণের পার্থক্য হয়। কিছু মানুষ বেশি আবেগী হয় এবং কিছু মানুষের ভেতর আবেগ কম দেখা যায়।

যে কোনো নারীদের চাইতে পুরুষদের আবেগের ভিন্নতা অনেক। ব্যস্ততা বা সংসারের চাপে নয়, মস্তিষ্কের গঠনের কারণে ছেলেদের হৃদয়ে কম আবেগ থাকে। গবেষণা করে আরো দেখা গেছে, শুধু আবেগ নয় মস্তিষ্কের গঠনের ভিন্নতার কারণে উদাসীন হওয়ার প্রবণতাও পুরুষদের বেশি।

অপরের প্রতি সহানুভূতির অভাব ও অন্যের অনুভূতির গুরুত্ব না দেয়া আবেগহীন-উদাসীনতার উদাহরণ হিসেবে ধরা যায়। এমন কি পুরুষের অপরাধ বোধও নারীর তুলনায় অনেক কম হয়। গবেষণা অনুযায়ী, মস্তিষ্কের যে অংশ অন্য ব্যক্তির আবেগ এবং অনুভূতি বোঝার সঙ্গে জড়িত ছেলেদের সেই অংশে অ্যান্টেরিয়র ইন্সুলা বা গ্রে ম্যাটারের ঘনত্ব বেশি থাকে।

তাই ছেলেরা আবেগ বর্জিত আচরণ বেশি করে। তবে নারীদের ক্ষেত্রে তা কিন্তু একেবারেই প্রযোজ্য নয়। অন্যদিকে বাড়ন্ত ছেলেদের মধ্যে তুলনামূলক ভাবে অ্যান্টেরিয়র ইনসুলা বা ধূষর কোষের সংখ্যা বেশি থাকে। মস্তিষ্কে এই ধূষর কোষের মাধ্যমেই অন্যের দুঃখে মানুষ সহানুভূতিশীল হয়।

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পুরুষদের মস্তিষ্কে এই ধূষর কোষের সংখ্যা কমতে থাকে। তবুও তা নারীদের তুলনায় অনেক কম হয়। মূলত মস্তিষ্কের গঠনই নির্ধারণ করে সেই মানুষটির আবেগ, অনুভূতি কেমন হবে।

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» রূপগঞ্জে বাল্য বিয়ে পন্ড করলেন এ্যাসিল্যান্ড আফিফা খাঁন

» মাস্ক ছাড়া রাস্তায় বের হলেই আইনানুগ ব্যবস্থা

» ঝালকাঠিতে আম্ফানে বিধ্বস্ত ঘর-বাড়ি নির্মাণে সেনাবাহিনী

» ৬ কোটি মানুষকে ত্রাণ সহায়তা দিয়েছে সরকার

» বিকেল ৪টার মধ্যে বন্ধ করতে হবে দোকান-শপিংমল

» করোনা পরিস্থিতি বজায় থাকলে প্রাথমিকে ঘরে বসেই পরীক্ষা

» করোনা কালীন অসহায় মানুষের পাশে মানবতার ফেরিওয়ালা হয়ে আইনজীবীদের নেত্রী যুথী

» এনায়েতপুরের জনপদ যমুনা নদীর তাণ্ডবে বেসামাল

» হোমনার করোনায় আক্রান্তে যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার ঢাকায় মৃত্যু

» হোমনায়  স্বামীসহ পালিয়েছে  করোনা আক্রান্ত নারী

 

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

নারী পুরুষের আবেগ ভিন্ন হয় কেন ?

নারীদের মতো পুরুষদের চোখে সহজে পানি আসে না। কিন্তু কেন? সেই উত্তর অবশেষে পাওয়া গেল। সুইজারল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অফ বেজেল- এর একটি গবেষণার প্রতিবেদন অনুযায়ী, পুরুষ ও নারীদের মস্তিষ্কে কিছু পার্থক্য থাকে। যার জন্য পুরুষরা নারীদের মতো অনুভূতিহীন ও আবেগপ্রবণ হন না। অনেক পুরুষের মধ্যে তো কোনো আবেগ বা অন্যের প্রতি শ্রদ্ধাও থাকে না।

কার আবেগ বেশি নারী না পুরুষের? এই আলোচনা অনেকেই করে থাকেন। কিন্তু আমরা জানি না মস্তিষ্কের সংযোগকারী বিভিন্ন স্নায়ুর পার্থক্যের কারণেই মানুষের আবেগগত আচরণের পার্থক্য হয়। কিছু মানুষ বেশি আবেগী হয় এবং কিছু মানুষের ভেতর আবেগ কম দেখা যায়।

যে কোনো নারীদের চাইতে পুরুষদের আবেগের ভিন্নতা অনেক। ব্যস্ততা বা সংসারের চাপে নয়, মস্তিষ্কের গঠনের কারণে ছেলেদের হৃদয়ে কম আবেগ থাকে। গবেষণা করে আরো দেখা গেছে, শুধু আবেগ নয় মস্তিষ্কের গঠনের ভিন্নতার কারণে উদাসীন হওয়ার প্রবণতাও পুরুষদের বেশি।

অপরের প্রতি সহানুভূতির অভাব ও অন্যের অনুভূতির গুরুত্ব না দেয়া আবেগহীন-উদাসীনতার উদাহরণ হিসেবে ধরা যায়। এমন কি পুরুষের অপরাধ বোধও নারীর তুলনায় অনেক কম হয়। গবেষণা অনুযায়ী, মস্তিষ্কের যে অংশ অন্য ব্যক্তির আবেগ এবং অনুভূতি বোঝার সঙ্গে জড়িত ছেলেদের সেই অংশে অ্যান্টেরিয়র ইন্সুলা বা গ্রে ম্যাটারের ঘনত্ব বেশি থাকে।

তাই ছেলেরা আবেগ বর্জিত আচরণ বেশি করে। তবে নারীদের ক্ষেত্রে তা কিন্তু একেবারেই প্রযোজ্য নয়। অন্যদিকে বাড়ন্ত ছেলেদের মধ্যে তুলনামূলক ভাবে অ্যান্টেরিয়র ইনসুলা বা ধূষর কোষের সংখ্যা বেশি থাকে। মস্তিষ্কে এই ধূষর কোষের মাধ্যমেই অন্যের দুঃখে মানুষ সহানুভূতিশীল হয়।

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পুরুষদের মস্তিষ্কে এই ধূষর কোষের সংখ্যা কমতে থাকে। তবুও তা নারীদের তুলনায় অনেক কম হয়। মূলত মস্তিষ্কের গঠনই নির্ধারণ করে সেই মানুষটির আবেগ, অনুভূতি কেমন হবে।

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



 

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com