নকল করতে না দেয়ায় শিক্ষিকাকে মারধর

ভোলায় এসএসসি পরীক্ষা চলাকালিন সময়ে নকলের সুযোগ না দেয়ায় কেন্দ্রের মধ্যেই দায়িত্বরত শিক্ষিকাকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার ভোলার বাংলাবাজার ফাতেমা খানম বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ মারধরের ঘটানা ঘটে। এতে শিক্ষিকার চোখ, মুখসহ সমস্ত শরীরে ফুলে যায়। পরে তাকে আশংঙ্কাজনক অবস্থায় ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় হামলাকারী শিক্ষার্থীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন শিক্ষক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ সকল শিক্ষকরা।

জানা যায়, শনিবার ভোলার বাংলাবাজার ফাতেমা খানম বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এসএসসির গনিত বিষয়ের পরীক্ষা চলছিল। ওই কেন্দ্রের ৮নম্বর কক্ষে দৌলতখান উপজেলার জয়নুল আবেদিন ল্যাবরেটরী হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা আছমা খাতুন কক্ষ পরিদর্শক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে পরীক্ষার্থীরা নকল করতে চাইলে আসমা খাতুন তাদেরকে বাধা দেয়। এ নিয়ে পরীক্ষার্থীদের সাথে তার কথা কাটাকাটিও হয়। পরে পরীক্ষা শেষে আসমা খাতুন যখন উত্তরপত্র নিয়ে রুম থেকে বের হওয়ার সাথে সাথে ওই রুমের পরীক্ষার্থীরা তার উপর অতর্কিত হামলা করে। এতে সে গুরত্বর আহত হয়। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও শিক্ষকদের সহায়তায় তাকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি বর্তমানে ভোলা সদর হাসপাতালের মহিলা সার্জারী ওয়ার্ডের ৩৬ নং বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এবং এ ঘটনায় ভোলা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের যুগ্ম মহাসচিব অধ্যক্ষ মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, একজন শিক্ষকের উপর প্রকৃত শিক্ষার্থী কখনও হামলা করতে পারে না। আমরা এ হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এবং এর সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। যাতে করে ভবিষ্যতে শিক্ষকদের উপর হামলার এরকম দুঃসাহস কেউ না করতে পারে।

ভোলা সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার মো. কামাল হোসেন বলেন, ইতিমধ্যে পরীক্ষা সচিককে দিয়ে তদন্ত করা হয়েছে। দুইজন শিক্ষার্থী ওই শিক্ষকের উপর হামলা করে। এ ঘটনায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পিবিডি

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» এ কেমন বর্বরতা!

» শরীয়তপুরে আড়াই বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ,১জন আটক

» বরিশালে জমির বিরোধের সংঘর্ষে নিহত ১

» ডাকসু নির্বাচনে ছাত্রদলের মনোনয়ন বিতরণ চলছে

» রাসায়নিকের গুদাম না সরানো দুঃখজনক: প্রধানমন্ত্রী

» লিভার সিরোসিস কখন হয়?

» বয়স ‘কমাবে’ করলা!

» মালয়েশিয়ান তরুণীকে ছুরিকাঘাত, বাংলাদেশির ২০ বছরের জেল

» গাড়িতে গাড়িতে ‘গ্যাস বোমা’

» অভিনয়ে ফিরছেন তমালিকা

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,

উপদেষ্টা -আবুল কালাম আজাদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক

ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিল

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০,০১৯১১৪৯০৫০৫

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...
,

নকল করতে না দেয়ায় শিক্ষিকাকে মারধর

ভোলায় এসএসসি পরীক্ষা চলাকালিন সময়ে নকলের সুযোগ না দেয়ায় কেন্দ্রের মধ্যেই দায়িত্বরত শিক্ষিকাকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। শনিবার ভোলার বাংলাবাজার ফাতেমা খানম বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এ মারধরের ঘটানা ঘটে। এতে শিক্ষিকার চোখ, মুখসহ সমস্ত শরীরে ফুলে যায়। পরে তাকে আশংঙ্কাজনক অবস্থায় ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় হামলাকারী শিক্ষার্থীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেছেন শিক্ষক সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ সকল শিক্ষকরা।

জানা যায়, শনিবার ভোলার বাংলাবাজার ফাতেমা খানম বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এসএসসির গনিত বিষয়ের পরীক্ষা চলছিল। ওই কেন্দ্রের ৮নম্বর কক্ষে দৌলতখান উপজেলার জয়নুল আবেদিন ল্যাবরেটরী হাই স্কুলের সহকারী শিক্ষিকা আছমা খাতুন কক্ষ পরিদর্শক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে পরীক্ষার্থীরা নকল করতে চাইলে আসমা খাতুন তাদেরকে বাধা দেয়। এ নিয়ে পরীক্ষার্থীদের সাথে তার কথা কাটাকাটিও হয়। পরে পরীক্ষা শেষে আসমা খাতুন যখন উত্তরপত্র নিয়ে রুম থেকে বের হওয়ার সাথে সাথে ওই রুমের পরীক্ষার্থীরা তার উপর অতর্কিত হামলা করে। এতে সে গুরত্বর আহত হয়। পরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও শিক্ষকদের সহায়তায় তাকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি বর্তমানে ভোলা সদর হাসপাতালের মহিলা সার্জারী ওয়ার্ডের ৩৬ নং বেডে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এবং এ ঘটনায় ভোলা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী ফোরামের যুগ্ম মহাসচিব অধ্যক্ষ মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, একজন শিক্ষকের উপর প্রকৃত শিক্ষার্থী কখনও হামলা করতে পারে না। আমরা এ হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এবং এর সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। যাতে করে ভবিষ্যতে শিক্ষকদের উপর হামলার এরকম দুঃসাহস কেউ না করতে পারে।

ভোলা সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার মো. কামাল হোসেন বলেন, ইতিমধ্যে পরীক্ষা সচিককে দিয়ে তদন্ত করা হয়েছে। দুইজন শিক্ষার্থী ওই শিক্ষকের উপর হামলা করে। এ ঘটনায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

পিবিডি

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ,

উপদেষ্টা -আবুল কালাম আজাদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক

ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিল

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০,০১৯১১৪৯০৫০৫

Design & Developed BY ThemesBazar.Com