‘গণহারে বুস্টার ডোজের প্রয়োজন নেই’

মহামারির এই পর্যায়ে সাধারণ নাগরিকদের জন্য করোনাভাইরাসের টিকার বুস্টার ডোজের প্রয়োজন নেই বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও ইউএস ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) এবং বিজ্ঞানীদের একটি দল। এ নিয়ে বিজ্ঞান সাময়ীকি ল্যানচেটে একটি রিভিউ প্রকাশিত হয়েছে।

রিভিউয়ে বলা হয়েছে, এই মুহূর্তে বুস্টার ডোজের প্রয়োজন নেই। কারণ, মারাত্মক করোনাভাইরাস, এমনকি ডেল্টা ধরনের বিরুদ্ধেও টিকার পূর্ণ ডোজের কার্যকারিতা যথেষ্ট বেশি।

 

সর্বাধিক পর্যবেক্ষণমূলক গবেষণায় দেখা গেছে যে, সার্স কোভ-২ এর প্রধান ধরন থেকে সৃষ্ট সংক্রমণসহ গুরুতর কোভিড-১৯ রোগীর বিরুদ্ধেও টিকা অত্যন্ত কার্যকর। ডেল্টা ও আলফার মতো মারাত্মক ধরনের বিরুদ্ধেও টিকার ৯৫ শতাংশ কার্যকারিতা দেখা গেছে। অন্যদিকে এই ধরনগুলো থেকে সংক্রমণের ক্ষেত্রে টিকা০ ৮০ শতাংশ সুরক্ষা দিচ্ছে।

 

উপসর্গহীন রোগ বা সংক্রমণের বিরুদ্ধে টিকার কার্যকারিতা গুরুতর রোগের বিরুদ্ধে কার্যকারিতার চেয়ে কম। যেসব জনগোষ্ঠীর অধিকাংশকেই টিকা দেওয়া হয়েছে, সেখানে টিকাকরণ না হওয়া সংখ্যালঘুরাই সংক্রমণের প্রধান চালিকা শক্তি হিসেবে কাজ করছে। তারা গুরুতর কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছেন।

 

রিভিউয়ের এক লেখক আনা-মারিয়া বলেন, যদি এই টিকা সেইসব ব্যক্তিকে দেওয়া যায়, যারা এখনও একটিও ডোজ পাননি এবং গুরুতর রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছেন, তাহলে তাদের অধিকাংশেরই জীবন রক্ষা পাবে।

 

অন্যদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্যা স্বামীনাথন বলেন, টিকা দিয়ে মানুষের মধ্যে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা কমানোর যেকোনো সিদ্ধান্ত- জোরাল প্রমাণ এবং আন্তর্জাতিক বৈজ্ঞানিক আলোচনার মাধ্যমে হওয়া উচিত। এর ঝুঁকি বিবেচনা করে দেখা উচিত।

 

রিভিউতে দাবি করা হয়েছে যে, টিকা দেওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে অ্যান্টিবডির মাত্রা সময়ের সাথে সাথে কমে যাওয়ার বিষয়টি গুরুতর রোগের বিরুদ্ধে টিকার কার্যকারিতা হ্রাসের পূর্বাভাস দেয় না।

 

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশ কয়েকটি দেশ করোনার টিকার তৃতীয় ডোজ (বুস্টার ডোজ) দেয়ার ব্যাপারে ইতিবাচক পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে। বিশ্বের এখনো অনেক দেশে কোনো টিকা পাননি কোটি কোটি মানুষ। এমন অবস্থায় এসব দেশকে বুস্টার ডোজ এখনই শুরু না করার আহ্বান জানায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

Facebook Comments Box
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» ‘বাতাসেই দ্রুত ছড়াচ্ছে করোনা’

» কুষ্টিয়ায় সাব রেজিস্ট্রার হত্যায় ৪ জনের মৃত্যুদণ্ড

» সাগরে ফের লঘুচাপ

» বিভিন্ন এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান চালিয়ে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে ৫২ জন গ্রেফতার

» যেসব রঙ ঘরে শান্তি আনে

» তারাও যেন ঐশ্বরিয়া

» কুতুপালং ক্যাম্প থেকে দেশীয় অস্ত্রসহ রোহিঙ্গা আটক

» ইলেকট্রিক সাইকেল আনছে হারলে-ডেভিডসন

» চলে গেলেন ক্রিকেট কোচ জালাল আহমেদ চৌধুরী

» নেত্রকোণায় পাঁচ লাখ ভারতীয় রুপি ও মোটরসাইকেল জব্দ

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

‘গণহারে বুস্টার ডোজের প্রয়োজন নেই’

মহামারির এই পর্যায়ে সাধারণ নাগরিকদের জন্য করোনাভাইরাসের টিকার বুস্টার ডোজের প্রয়োজন নেই বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও ইউএস ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) এবং বিজ্ঞানীদের একটি দল। এ নিয়ে বিজ্ঞান সাময়ীকি ল্যানচেটে একটি রিভিউ প্রকাশিত হয়েছে।

রিভিউয়ে বলা হয়েছে, এই মুহূর্তে বুস্টার ডোজের প্রয়োজন নেই। কারণ, মারাত্মক করোনাভাইরাস, এমনকি ডেল্টা ধরনের বিরুদ্ধেও টিকার পূর্ণ ডোজের কার্যকারিতা যথেষ্ট বেশি।

 

সর্বাধিক পর্যবেক্ষণমূলক গবেষণায় দেখা গেছে যে, সার্স কোভ-২ এর প্রধান ধরন থেকে সৃষ্ট সংক্রমণসহ গুরুতর কোভিড-১৯ রোগীর বিরুদ্ধেও টিকা অত্যন্ত কার্যকর। ডেল্টা ও আলফার মতো মারাত্মক ধরনের বিরুদ্ধেও টিকার ৯৫ শতাংশ কার্যকারিতা দেখা গেছে। অন্যদিকে এই ধরনগুলো থেকে সংক্রমণের ক্ষেত্রে টিকা০ ৮০ শতাংশ সুরক্ষা দিচ্ছে।

 

উপসর্গহীন রোগ বা সংক্রমণের বিরুদ্ধে টিকার কার্যকারিতা গুরুতর রোগের বিরুদ্ধে কার্যকারিতার চেয়ে কম। যেসব জনগোষ্ঠীর অধিকাংশকেই টিকা দেওয়া হয়েছে, সেখানে টিকাকরণ না হওয়া সংখ্যালঘুরাই সংক্রমণের প্রধান চালিকা শক্তি হিসেবে কাজ করছে। তারা গুরুতর কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছেন।

 

রিভিউয়ের এক লেখক আনা-মারিয়া বলেন, যদি এই টিকা সেইসব ব্যক্তিকে দেওয়া যায়, যারা এখনও একটিও ডোজ পাননি এবং গুরুতর রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছেন, তাহলে তাদের অধিকাংশেরই জীবন রক্ষা পাবে।

 

অন্যদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্যা স্বামীনাথন বলেন, টিকা দিয়ে মানুষের মধ্যে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে করোনা সংক্রমণের সংখ্যা কমানোর যেকোনো সিদ্ধান্ত- জোরাল প্রমাণ এবং আন্তর্জাতিক বৈজ্ঞানিক আলোচনার মাধ্যমে হওয়া উচিত। এর ঝুঁকি বিবেচনা করে দেখা উচিত।

 

রিভিউতে দাবি করা হয়েছে যে, টিকা দেওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে অ্যান্টিবডির মাত্রা সময়ের সাথে সাথে কমে যাওয়ার বিষয়টি গুরুতর রোগের বিরুদ্ধে টিকার কার্যকারিতা হ্রাসের পূর্বাভাস দেয় না।

 

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশ কয়েকটি দেশ করোনার টিকার তৃতীয় ডোজ (বুস্টার ডোজ) দেয়ার ব্যাপারে ইতিবাচক পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে। বিশ্বের এখনো অনেক দেশে কোনো টিকা পাননি কোটি কোটি মানুষ। এমন অবস্থায় এসব দেশকে বুস্টার ডোজ এখনই শুরু না করার আহ্বান জানায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

Facebook Comments Box
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com