কোটি টাকার রাইড অচল

ভেঙে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় থাকা ‘মোটর কার’। প্রজাপতির পাখা দুটি ভাঙা। আগে শিশুরা এই প্রজাপতির পিঠে বসে দোল দিত। আর প্রজাপতি পাখা দোলাত। এখন এই প্রজাপতির পিঠে ঠিকমতো বসাই যাচ্ছে না। সম্প্রতি রাজশাহীর শহীদ এ এইচ এম কামারুজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান ও চিড়িয়াখানায় গিয়ে এ দৃশ্য দেখা গেল।

এই চিড়িয়াখানায় শিশুদের বিনামূল্যে বিনোদনের জন্য ২০১৩ সালে কর্তৃপক্ষ পাঁচ সেট রাইড কিনেছিল। তাতে ৪০-৫০ জন শিশু একসঙ্গে খেলতে পারত। দাম পড়েছিল ১ কোটি ৫ লাখ টাকা। এর মধ্যে ছিল স্লিপার, মোটর কার, প্রজাপতি, দোলনা ও আরও কিছু অযান্ত্রিক রাইড। পাঁচ বছর না ঘুরতেই এই রাইডগুলো ভেঙে এখন বিপজ্জনক অবস্থায় আছে। কিন্তু শিশুদের মন মানে না। তারা এই ভাঙা রাইডেই গিয়ে বসছে। শিশুদের জন্য উন্মুক্ত বিনোদন রাইডগুলো পরিত্যক্ত অবস্থায় আছে। দোলনার স্ট্যান্ড আছে। কিন্তু এক পাশের দোলনায় বসার জায়গাটি খোয়া গেছে। অপর পাশের দোলনায় বসার অর্ধেক জায়গা আছে। ওইটুকুতে বসার জন্যই শিশুদের ভিড় দেখা গেল। প্রজাপতির পাশে একটি মোটর কার আছে। সেটির নিচে ¯িপ্রং লাগানো। শিশুরা তাতে উঠে দোল দিলেই গাড়িটি দুলতে থাকে। এখন ¯িপ্রং ঠিক থাকলেও গাড়িটি ভেঙে গেছে। এতে ওঠাই বিপজ্জনক। যে স্লিপারে উঠে শিশুরা নিচে নেমে আসত, সেটি এখনো দাঁড়িয়ে আছে। তবে এমনভাবে ভেঙেছে যে, ওপরে উঠে নিচে নামতে গেলে শিশুদের জখম হতে হবে। তাই নিচে নামতে না পারলেও সিঁড়ি দিয়ে শিশুরা ওপরে উঠে বসে থাকছে। এক দর্শনার্থী বলেন, ২৫ টাকার টিকিট কেটে ঢুকে বাচ্চাটার ভালো লাগার মতো কিছুই পেলাম না। রাজশাহী কলেজের ছাত্র আলম শাহীন এসেছেন তার ভাগনিকে নিয়ে ঘুরতে। তিনি বলেন, ‘কিছুক্ষণ আগেই আমার ভাগনি একটি রাইড থেকে পড়ে গিয়েছিল। ব্যথা পেয়েছে। মোহনপুর থেকে দুই বাচ্চা নিয়ে ঘুরতে এসেছেন রুনা লায়লা। তিনি বলেন, এখানে তো খেলার কিছুই নেই। সব ভাঙা। রাইডগুলো ভালো থাকলে বাচ্চারা মজা করতে পারত। সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক জানান, ‘এই রাইডগুলো দ্রুত ঠিক করে ফেলবেন। এখানে সংস্কার কাজ চলছে। ধারাবাহিকভাবে সবগুলোর সংস্কার ও উন্নয়ন করা হবে।’বাংলাদেশ প্রতিদদিন

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» শিল্পপতি আব্দুল মোনেম মারা গেছেন

» হাইকোর্টের ১১ বেঞ্চে ভার্চুয়ালি শুনানি হবে যেসব বিষয়

» তাপমাত্রা মেপে স্যানিটাইজারে জীবাণুমুক্ত হয়ে নিউমার্কেটে প্রবেশ

» ৮০ শতাংশ নয়, ভাড়া বাড়বে যৌক্তিক পর্যায়ে : ওবায়দুল কাদের

» করোনায় প্রাণ গেলো আরও ৪০ জনের, আক্রান্ত ২৫৪৫

» এক চার্জে চলবে টানা ২০ দিন

» দীর্ঘ সময় দলে না থাকতে পারায় ইমরুলের আফসোস

» দীর্ঘ সময় দলে না থাকতে পারায় ইমরুলের আফসোস

» ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় পুঁজিবাজারের লেনদেন শুরু

» আটলান্টিকে তৈরি হচ্ছে ১৯টি ঝড়, ৬টি হারিকেন

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মাকসুদা লিসা।

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

 

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

কোটি টাকার রাইড অচল

ভেঙে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় থাকা ‘মোটর কার’। প্রজাপতির পাখা দুটি ভাঙা। আগে শিশুরা এই প্রজাপতির পিঠে বসে দোল দিত। আর প্রজাপতি পাখা দোলাত। এখন এই প্রজাপতির পিঠে ঠিকমতো বসাই যাচ্ছে না। সম্প্রতি রাজশাহীর শহীদ এ এইচ এম কামারুজ্জামান কেন্দ্রীয় উদ্যান ও চিড়িয়াখানায় গিয়ে এ দৃশ্য দেখা গেল।

এই চিড়িয়াখানায় শিশুদের বিনামূল্যে বিনোদনের জন্য ২০১৩ সালে কর্তৃপক্ষ পাঁচ সেট রাইড কিনেছিল। তাতে ৪০-৫০ জন শিশু একসঙ্গে খেলতে পারত। দাম পড়েছিল ১ কোটি ৫ লাখ টাকা। এর মধ্যে ছিল স্লিপার, মোটর কার, প্রজাপতি, দোলনা ও আরও কিছু অযান্ত্রিক রাইড। পাঁচ বছর না ঘুরতেই এই রাইডগুলো ভেঙে এখন বিপজ্জনক অবস্থায় আছে। কিন্তু শিশুদের মন মানে না। তারা এই ভাঙা রাইডেই গিয়ে বসছে। শিশুদের জন্য উন্মুক্ত বিনোদন রাইডগুলো পরিত্যক্ত অবস্থায় আছে। দোলনার স্ট্যান্ড আছে। কিন্তু এক পাশের দোলনায় বসার জায়গাটি খোয়া গেছে। অপর পাশের দোলনায় বসার অর্ধেক জায়গা আছে। ওইটুকুতে বসার জন্যই শিশুদের ভিড় দেখা গেল। প্রজাপতির পাশে একটি মোটর কার আছে। সেটির নিচে ¯িপ্রং লাগানো। শিশুরা তাতে উঠে দোল দিলেই গাড়িটি দুলতে থাকে। এখন ¯িপ্রং ঠিক থাকলেও গাড়িটি ভেঙে গেছে। এতে ওঠাই বিপজ্জনক। যে স্লিপারে উঠে শিশুরা নিচে নেমে আসত, সেটি এখনো দাঁড়িয়ে আছে। তবে এমনভাবে ভেঙেছে যে, ওপরে উঠে নিচে নামতে গেলে শিশুদের জখম হতে হবে। তাই নিচে নামতে না পারলেও সিঁড়ি দিয়ে শিশুরা ওপরে উঠে বসে থাকছে। এক দর্শনার্থী বলেন, ২৫ টাকার টিকিট কেটে ঢুকে বাচ্চাটার ভালো লাগার মতো কিছুই পেলাম না। রাজশাহী কলেজের ছাত্র আলম শাহীন এসেছেন তার ভাগনিকে নিয়ে ঘুরতে। তিনি বলেন, ‘কিছুক্ষণ আগেই আমার ভাগনি একটি রাইড থেকে পড়ে গিয়েছিল। ব্যথা পেয়েছে। মোহনপুর থেকে দুই বাচ্চা নিয়ে ঘুরতে এসেছেন রুনা লায়লা। তিনি বলেন, এখানে তো খেলার কিছুই নেই। সব ভাঙা। রাইডগুলো ভালো থাকলে বাচ্চারা মজা করতে পারত। সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক জানান, ‘এই রাইডগুলো দ্রুত ঠিক করে ফেলবেন। এখানে সংস্কার কাজ চলছে। ধারাবাহিকভাবে সবগুলোর সংস্কার ও উন্নয়ন করা হবে।’বাংলাদেশ প্রতিদদিন

Facebook Comments
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মাকসুদা লিসা।

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

 

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com