আসল বেনারসি চেনার উপায়

বিয়ের কেনাকাটায় গুরুত্বপূর্ণ নাম ‘শাড়ি’। বিয়ের শাড়ি হিসেবে বেনারসির কদর বেশি। সবার আগে বাজেট পরিকল্পনা করতে হয়। যেমন অনেক অনেক টাকা খরচ করে বিয়ের বেনারসি কেনেন অনেকেই। কিছু পরিবারে সাধ্যমতো বেনারসি কেনা হয়।

 

সুখের খবর হলো, সব বাজেটের বেনারসিই আপনি বাজারে পাবেন। কিন্তু সস্তায় শাড়ি কেনার খুশিতে নকল বেনারসি কিনে ঠকবেন না। কারণ, বিয়ের দিনটা হবু কনের জন্য খুবই স্পেশাল। সবাই প্রো নন, শাড়ি বিশেষজ্ঞও নন। তাই একটু সতর্কভাবে বিয়ের বেনারসি কিনুন। যেন নকল বেনারসি কিনে ঠকতে না হয়।

কীভাবে চিনবেন আসল বেনারসি, জেনে নিন 

 

বিয়ের বেনারসি কিনতে গিয়ে প্রথমেই হাতে নিয়ে দেখুন। ডিজাইন পছন্দ হওয়ার পরে হাতে নিয়ে যাচাই করাই আপনার প্রথম কাজ হবে। আসল বেনারসি শাড়ির দুই পিঠেই ঘন সুতার কাজ দেখতে পাবেন । এদিকে নকল বেনারসির উল্টো পিঠ খসখসে হতে পারে। তাই হাতে নিয়ে ভালো করে যাচাই করলেই আপনি আসল ও নকলের পার্থক্য বুঝতে পারবেন।

 

একটি বেনারসি শাড়ি তৈরির সময় একজন কারিগরের প্রায় এক মাস পর্যন্ত সময় লাগতে পারে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে সেই সময়সীমা হয় বেশি। অত্যন্ত উন্নত মানের সুতা ও সিল্ক দিয়ে তৈরি হয় বেনারসি শাড়ি।

 

প্রধানত রুপালি ও সোনালি রঙের জরি সুতো দিয়ে বোনা হয়। আপনি হাত দিয়েই এর মান বুঝতে পারবেন। জেল্লা ও রংও হবে দেখার মতো।

 

বেনারসি শাড়ির জরির মান যাচাই করার পর কারুকার্যে একটু নজর দিন। যদিও আধুনিক ডিজাইনে নানা ধরনের মোটিফ চোখে পড়ে। উন্নত মানের বেনারসিতে আপনি মোঘল মোটিফ পাবেন। আমরু, দোমাক, আমবির মতো মোটিফ দেখতে পাবেন। ফুলের নকশা পাবেন। এই ফুলের নকশা বেনারসি শাড়ির জমিনে খুবই জনপ্রিয়। সবাই প্রায় পছন্দ করেন।

 

নকল বেনারসিতে এই ধরনের নকশা হয়তো পাবেন না। বেনারসি শাড়ির আঁচলে ছয় ইঞ্চি থেকে আট ইঞ্চির প্যাচ থাকে। যা আপনি আসল বেনারসিতেই পাবেন। কাঁধের কাছে অংশটি পড়ে। নকল শাড়িতে থাকে না। তাই বেনারসি কেনার সময় তার মোটিফ দেখে নিন।

 

বেনারসি শাড়ি বুনতে কারিগরকে খুবই পরিশ্রম করতে হয়। শাড়ি তৈরি করতে অনেক সময় এক মাস বা তার বেশিও সময় লেগে যায়। খাঁটি বেনারসি সিল্ক দিয়ে তৈরি করা হয় এই শাড়ি। এর উপরে হাতে বোনা হয় সেই জরির ডিজাইন।

 

কিন্তু আজকাল নকল বেনারসিতে ছেয়ে যাচ্ছে। অনেকেই বাজেটের কথা মাথায় রেখে কম দামি বেনারসি কিনতে যান। এতে আসলে লাভ কিছু হয় না। আপনার ঠকে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে অনেক বেশি। আপনি আসল বেনারসি শাড়ির হদিশ পান না। একটি বেনারসির দাম কমপক্ষে ৮-১০ হাজার টাকা হতে পারে। এরপর আপনার বাজেট অনুযায়ী বেশি দামের শাড়িও নিতে পারেন আপনি।

সূত্র: এই সময়

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» নারী পুলিশ অত্যন্ত দক্ষতার সাথে দেশে-বিদেশে দায়িত্ব পালন করছে : শিক্ষামন্ত্রী

» শেখ মনির জন্মদিন উপলক্ষে যুবলীগের তিন দিনের কর্মসূচি

» সরকারকে কঠোর হতে বাধ্য করবেন না: বিএনপিকে তথ্য ও  সম্প্রচার মন্ত্রীর

» অস্ত্র-গুলিসহ ৩০ মামলার আসামি গ্রেফতার

» ১৬ সোনারবারসহ এক চোরাকারবারী আটক

» গাইবান্ধা-৫ আসনে উপ-নির্বাচনের তারিখ আগামী সপ্তাহে: সিইসি

» ৫০ কোটি মানুষকে ডিজিটাল আর্থিক সেবার আওতায় আনতে কাজ করবে হুয়াওয়ে

» বায়োলজিক ওষুধের ব্যবহার বাড়াতে সব পর্যায়ে সচেতনতা প্রয়োজন

» বীরগঞ্জে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর মাঝে ভেড়া বিতরণ

» জুমার নামাজের গুরুত্ব ও ফজিলত

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...

আসল বেনারসি চেনার উপায়

বিয়ের কেনাকাটায় গুরুত্বপূর্ণ নাম ‘শাড়ি’। বিয়ের শাড়ি হিসেবে বেনারসির কদর বেশি। সবার আগে বাজেট পরিকল্পনা করতে হয়। যেমন অনেক অনেক টাকা খরচ করে বিয়ের বেনারসি কেনেন অনেকেই। কিছু পরিবারে সাধ্যমতো বেনারসি কেনা হয়।

 

সুখের খবর হলো, সব বাজেটের বেনারসিই আপনি বাজারে পাবেন। কিন্তু সস্তায় শাড়ি কেনার খুশিতে নকল বেনারসি কিনে ঠকবেন না। কারণ, বিয়ের দিনটা হবু কনের জন্য খুবই স্পেশাল। সবাই প্রো নন, শাড়ি বিশেষজ্ঞও নন। তাই একটু সতর্কভাবে বিয়ের বেনারসি কিনুন। যেন নকল বেনারসি কিনে ঠকতে না হয়।

কীভাবে চিনবেন আসল বেনারসি, জেনে নিন 

 

বিয়ের বেনারসি কিনতে গিয়ে প্রথমেই হাতে নিয়ে দেখুন। ডিজাইন পছন্দ হওয়ার পরে হাতে নিয়ে যাচাই করাই আপনার প্রথম কাজ হবে। আসল বেনারসি শাড়ির দুই পিঠেই ঘন সুতার কাজ দেখতে পাবেন । এদিকে নকল বেনারসির উল্টো পিঠ খসখসে হতে পারে। তাই হাতে নিয়ে ভালো করে যাচাই করলেই আপনি আসল ও নকলের পার্থক্য বুঝতে পারবেন।

 

একটি বেনারসি শাড়ি তৈরির সময় একজন কারিগরের প্রায় এক মাস পর্যন্ত সময় লাগতে পারে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে সেই সময়সীমা হয় বেশি। অত্যন্ত উন্নত মানের সুতা ও সিল্ক দিয়ে তৈরি হয় বেনারসি শাড়ি।

 

প্রধানত রুপালি ও সোনালি রঙের জরি সুতো দিয়ে বোনা হয়। আপনি হাত দিয়েই এর মান বুঝতে পারবেন। জেল্লা ও রংও হবে দেখার মতো।

 

বেনারসি শাড়ির জরির মান যাচাই করার পর কারুকার্যে একটু নজর দিন। যদিও আধুনিক ডিজাইনে নানা ধরনের মোটিফ চোখে পড়ে। উন্নত মানের বেনারসিতে আপনি মোঘল মোটিফ পাবেন। আমরু, দোমাক, আমবির মতো মোটিফ দেখতে পাবেন। ফুলের নকশা পাবেন। এই ফুলের নকশা বেনারসি শাড়ির জমিনে খুবই জনপ্রিয়। সবাই প্রায় পছন্দ করেন।

 

নকল বেনারসিতে এই ধরনের নকশা হয়তো পাবেন না। বেনারসি শাড়ির আঁচলে ছয় ইঞ্চি থেকে আট ইঞ্চির প্যাচ থাকে। যা আপনি আসল বেনারসিতেই পাবেন। কাঁধের কাছে অংশটি পড়ে। নকল শাড়িতে থাকে না। তাই বেনারসি কেনার সময় তার মোটিফ দেখে নিন।

 

বেনারসি শাড়ি বুনতে কারিগরকে খুবই পরিশ্রম করতে হয়। শাড়ি তৈরি করতে অনেক সময় এক মাস বা তার বেশিও সময় লেগে যায়। খাঁটি বেনারসি সিল্ক দিয়ে তৈরি করা হয় এই শাড়ি। এর উপরে হাতে বোনা হয় সেই জরির ডিজাইন।

 

কিন্তু আজকাল নকল বেনারসিতে ছেয়ে যাচ্ছে। অনেকেই বাজেটের কথা মাথায় রেখে কম দামি বেনারসি কিনতে যান। এতে আসলে লাভ কিছু হয় না। আপনার ঠকে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে অনেক বেশি। আপনি আসল বেনারসি শাড়ির হদিশ পান না। একটি বেনারসির দাম কমপক্ষে ৮-১০ হাজার টাকা হতে পারে। এরপর আপনার বাজেট অনুযায়ী বেশি দামের শাড়িও নিতে পারেন আপনি।

সূত্র: এই সময়

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি।(দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : [email protected]

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com