বৃষ্টি আসলেই লালমনিরহাট পৌরবাসী ভোগান্তিতে নতুন মাত্রা যোগ হয়

আসাদ হোসেন রিফাত,লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃবৃষ্টি আসলেই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়, চরম ভোগান্তিতে পড়েন লালমনিরহাট পৌরবাসী।লালমনিরহাট পৌরসভায় ড্রেনেজ ব্যাবস্থা দুর্বল হওয়ার কারনে শহরের অধিকাংশ এলাকায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়।এ সময় ময়লা আবর্জনার সঙ্গে বৃষ্টির পানি মিশে যাওয়ার কারনে নাগরিকদের ভোগান্তিতে নতুন মাত্রা যোগ হয়।ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড না মেনে অপরিকল্পিতভাবে শহরে বাড়িঘর তৈরি, বেশিরভাগ জায়গায় ডাস্টবিন না থাকায় স্থানীয় ব্যবসায়িদের যত্র-তত্র ময়লা আবর্জনা ফেলা,পৌর কর্তৃপক্ষ ড্রেন ও রাস্তাঘাট পরিস্কার না করা এবং পৌর নাগরিকদের অসচেতনতার কারনে এই জলাবদ্ধতার মূল কারন বলে মনে করেন সচেতন মহল। তারা বলেন,পৌর কর্তৃপক্ষের উচিত জলাবদ্ধতা নিরসনে বিভিন্ন মহল্লার ড্রেন সংস্কার করা,ডাস্টবিন নির্মান করা এবং ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড না মেনে যারা বাড়িঘর তৈরি করেছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা গ্রহন করা।
শহরের খেদ্দসাপটানা এলাকার রুস্তম আলী বলেন, আমার এলাকায় সামান্য বৃষ্টি আসলেই একহাটু পানি হয় এ কারনে আমরা চলাচল করতে পারি না । অনেকদিন যাবৎ আমাদের এ সমস্যা মেয়রকে বলার পরেও তিনি কোনো পদক্ষেপ নেন না আমরা এলাকাবাসী চরম ভোগান্তির শিকার।শহরের বসুন্ধরা এলাকার রতন মিয়া বলেন, একটু বৃষ্টি হলেই রাস্তায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়,ময়লা আবর্জনা বৃষ্টির পানির সঙ্গে মিশে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হচ্ছে এতে বিভিন্ন পানিবাহিত রোগ হতে পারে বলে তিনি জানিয়েছেন।
এদিকে শহরের ২ নং ওয়ার্ডের নবীনগর এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, ওই এলাকার প্রায় ২০ টি পরিবার পানিবন্দি হয়ে আছে। ২নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক রফিকুল ইসলাম অভিযোগ করেন,অপরিকল্পিতভাবে ড্রেন নির্মানের কারনে আমরা পানিবন্দি অবস্থায় জীবনযাপন করছি।
এ বিষয়ে লালমনিরহাট পৌরসভার শহর পরিকল্পনাবিদ আশরাফুজ্জামান বলেন বর্তমান যে ড্রেনগুলো তৈরি হয়েছে তা কোনো প্রকার পরিকল্পনা ছাড়াই তৈরি হয়েছে। অপরিকল্পিতভাবে তৈরিকৃত ড্রেনের সমন্ধে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।
এ বিষয়ে লালমনিরহাট পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম রিন্টু বলেন, আমরা গোটা পৌর এলাকায় নতুন ড্রেন তৈরি করছি। আমাদের সম্পূর্ন কাজ শেষ হলে জলাবদ্ধতা থাকবে না বলে তিনি জানিয়েছেন।
Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» কক্সবাজারে বিরল প্রজাতির ছাগল উদ্ধার

» তাওবাহ করতে দেরি করা আরেকটি মারাত্মক পাপ

» প্রধানমন্ত্রী জামালপুর এক্সপ্রেস ট্রেনের উদ্বোধন করবেন আজ

» করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত হবেন না, সতর্ক থাকুন

» বিপন্ন সেন্টমার্টিন

» এমপি-কেন্দ্রীয় নেতাদের মদদে বিদ্রোহীরা

» সমঝোতায় লুট হচ্ছে ব্যাংকের টাকা

» ‘ইত্যাদি’ এবার মুক্তাঞ্চল তেঁতুলিয়ায়

» তাড়াশে সরকারি খাল দখল করে পুকুর খনন

» ১০ গ্রামের ভরসা সাঁকো

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...
,

বৃষ্টি আসলেই লালমনিরহাট পৌরবাসী ভোগান্তিতে নতুন মাত্রা যোগ হয়

আসাদ হোসেন রিফাত,লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃবৃষ্টি আসলেই জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়, চরম ভোগান্তিতে পড়েন লালমনিরহাট পৌরবাসী।লালমনিরহাট পৌরসভায় ড্রেনেজ ব্যাবস্থা দুর্বল হওয়ার কারনে শহরের অধিকাংশ এলাকায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়।এ সময় ময়লা আবর্জনার সঙ্গে বৃষ্টির পানি মিশে যাওয়ার কারনে নাগরিকদের ভোগান্তিতে নতুন মাত্রা যোগ হয়।ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড না মেনে অপরিকল্পিতভাবে শহরে বাড়িঘর তৈরি, বেশিরভাগ জায়গায় ডাস্টবিন না থাকায় স্থানীয় ব্যবসায়িদের যত্র-তত্র ময়লা আবর্জনা ফেলা,পৌর কর্তৃপক্ষ ড্রেন ও রাস্তাঘাট পরিস্কার না করা এবং পৌর নাগরিকদের অসচেতনতার কারনে এই জলাবদ্ধতার মূল কারন বলে মনে করেন সচেতন মহল। তারা বলেন,পৌর কর্তৃপক্ষের উচিত জলাবদ্ধতা নিরসনে বিভিন্ন মহল্লার ড্রেন সংস্কার করা,ডাস্টবিন নির্মান করা এবং ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড না মেনে যারা বাড়িঘর তৈরি করেছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা গ্রহন করা।
শহরের খেদ্দসাপটানা এলাকার রুস্তম আলী বলেন, আমার এলাকায় সামান্য বৃষ্টি আসলেই একহাটু পানি হয় এ কারনে আমরা চলাচল করতে পারি না । অনেকদিন যাবৎ আমাদের এ সমস্যা মেয়রকে বলার পরেও তিনি কোনো পদক্ষেপ নেন না আমরা এলাকাবাসী চরম ভোগান্তির শিকার।শহরের বসুন্ধরা এলাকার রতন মিয়া বলেন, একটু বৃষ্টি হলেই রাস্তায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়,ময়লা আবর্জনা বৃষ্টির পানির সঙ্গে মিশে দুর্গন্ধের সৃষ্টি হচ্ছে এতে বিভিন্ন পানিবাহিত রোগ হতে পারে বলে তিনি জানিয়েছেন।
এদিকে শহরের ২ নং ওয়ার্ডের নবীনগর এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, ওই এলাকার প্রায় ২০ টি পরিবার পানিবন্দি হয়ে আছে। ২নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক রফিকুল ইসলাম অভিযোগ করেন,অপরিকল্পিতভাবে ড্রেন নির্মানের কারনে আমরা পানিবন্দি অবস্থায় জীবনযাপন করছি।
এ বিষয়ে লালমনিরহাট পৌরসভার শহর পরিকল্পনাবিদ আশরাফুজ্জামান বলেন বর্তমান যে ড্রেনগুলো তৈরি হয়েছে তা কোনো প্রকার পরিকল্পনা ছাড়াই তৈরি হয়েছে। অপরিকল্পিতভাবে তৈরিকৃত ড্রেনের সমন্ধে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।
এ বিষয়ে লালমনিরহাট পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম রিন্টু বলেন, আমরা গোটা পৌর এলাকায় নতুন ড্রেন তৈরি করছি। আমাদের সম্পূর্ন কাজ শেষ হলে জলাবদ্ধতা থাকবে না বলে তিনি জানিয়েছেন।
Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন:ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com