বুয়েট ভিসিকে প্রতিরোধ, পুলিশের লাঠিচার্জ, আবরারের ভাই আহত

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের কবর জিয়ারত করতে পারলেও গ্রামের বাড়িতে ঢুকতে পারেননি বুয়েট ভিসি অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলাম। এ সময় আবরারের ছোট ভাই ও বাবা বরকত উল্লাহ সেখানে ছিলেন। এরপর আবরারের মায়ের সঙ্গে দেখা করতে বাড়িতে ঢুকতে চাইলে এলাকাবাসীর তোপের মুখে পড়েন তিনি। এক পর্যায়ে বুধবার বিকাল ৪টা ৫০ মিনিটের দিকে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার কয়া ইউনিয়নের রায়ডাঙ্গা গ্রামের ওই বাড়ির সামনে থেকে পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যের পাহারায় দ্রুত গাড়িতে উঠে স্থান ত্যাগ করেন তিনি। এ সময় তার সঙ্গে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন ও পুলিশ সুপার এসএম তানভীন আরাফাত ছিলেন। পরে উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এর আগে বুধবার বিকাল তিনটার দিকে কুষ্টিয়া সার্কিট হাউসে পৌঁছান ভিসি। পরে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে জেলা প্রশাসকের গাড়িতে করে রায়ডাঙ্গায় যান ভিসি।

বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে তিনি আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ ও ছোট ভাই আবরার ফায়াজসহ সবাই মিলে কবর জিয়ারত করেন। পরে আবরারের ভাই ও বাবার প্রশ্নবাণে জর্জরিত হন ভিসি। তাদের জিজ্ঞাসা ছিল, ভিসি কেন ওই হত্যাকা-ের পর পর সেখানে উপস্থিত হননি। এখন কেন এসেছেন?
এরপর আবরারের মা রোকেয়া খাতুনের সঙ্গে দেখা করার জন্য রওনা দেন ভিসি। একই সড়কের পাশে আবরারের কবর ও পৈতৃক ভিটা। কুমারখালী থেকে যেতে প্রথমে কবরস্থান পড়ে। পরে আধা কিলোমিটারের মাথায় ওই বাড়ি। এ সময় স্থানীয় শত শত নারী-পুরুষ আবরারদের বাড়ির সামনের সড়কে বিক্ষোভ শুরু করে। গ্রামবাসী ভিসিকে গালিগালাজ ও ভিসি বিরোধী সেøাগান দিতে থাকে। এ সময় উত্তেজিত জনতা ভিসিকে ঘিরে রেখে আবরার হত্যার বিচারের দাবিতে সেøাগান দিতে থাকে। এ সময় স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা ভিসিকে ঘিরে রাখে। এক পর্যায়ে আবরারের মায়ের সঙ্গে দেখা না করে উপাচার্য পুলিশ প্রহরায় জেলা প্রশাসকের গাড়িতে করে রায়ডাঙ্গা গ্রাম ছেড়ে যান।
ভিসি চলে যাওয়ার পর উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এ সময় আবরার ফাহাদের ছোট ভাই ফায়াজ, তার ফুপাতো ভাইয়ের স্ত্রী ও আরো একজন নারী আহত হন।
বুয়েট ভিসি অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলাম কুষ্টিয়ার রায়ডাঙ্গা গ্রামে গিয়ে আবরারের পরিবারের সঙ্গে দেখা করবেন এ খবরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল পরিমাণ সদস্য মোতায়েন করা হয় সেখানে। দুপুর থেকেই আবরারের বাড়ি ও কবরের আশেপাশের এলাকায় অসংখ্য র‌্যাব ও পুলিশ অবস্থান নেয়। সন্ধ্যায় কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন বলেন, ভিসি এখন কুষ্টিয়া সার্কিট হাউসে অবস্থান করছেন। সেখান থেকে ঢাকার উদ্দেশ্য রওনা হচ্ছেন।
এদিকে, হত্যাকা-ের শিকার বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদের রুহের মাগফিরাত কামনায় কুষ্টিয়া জিলা স্কুলে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বেলা ১১টায় জিলা স্কুল জামে মসজিদে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের আয়োজনে ও জেলা ছাত্রলীগের সহযোগিতায় এই দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। আবরার ফাহাদ এই স্কুলের এসএসসির ২০১৫ ব্যাচের ছাত্র ছিলেন।
কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান বলেন, ‘সন্তান হারানোর বেদনা ভুলিয়ে দেয়া যায় না। তবে আল্লাহর ঘরে দাঁড়িয়ে কথা দিচ্ছি, দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে যা প্রয়োজন তার সবই করা হবে। মানবজমিন

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» রাশেদ খান মেননকে আ.লীগ কার্যালয়ে যেতে নিষেধাজ্ঞা

» অপকর্মকারীরা যুবলীগের কংগ্রেসে থাকতে পারবে না: চয়ন ইসলাম

» জাপান সম্রাটের অভিষেকে যোগ দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি

» অস্ত্র ও ৪ গুলি উদ্ধার: লক্ষ্মীপুরে ইউপি মেম্বার হত্যা মামলায় গ্রেফতার-২

» ঠাকুরগাঁওয়ে রাস্তার কাজে অনিয়মের চিত্র তুলে ধরায় সাংবাদিক হেনস্তা

» শৈলকুপায় বখাটের অত্যাচারে কলেজ ছাত্রীর পরীক্ষা বন্ধ, প্রতিবাদ করায় বাবাকে মারধর

» মণিরামপুরে মাঠে মাঠে চলছে খেজুরের রস সংগ্রহের প্রস্তুতি

» হবিগঞ্জে মধ্যযুগীয় কায়দায় কুপে ২ সন্তানের মাকে হত্যা করেছে পাষন্ড  স্বামী :: ঘাতক স্বামী আটক

» বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের কার বেতন কত?

» জোটে আলোচনা করে মেননের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা : নাসিম

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...
,

বুয়েট ভিসিকে প্রতিরোধ, পুলিশের লাঠিচার্জ, আবরারের ভাই আহত

বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের কবর জিয়ারত করতে পারলেও গ্রামের বাড়িতে ঢুকতে পারেননি বুয়েট ভিসি অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলাম। এ সময় আবরারের ছোট ভাই ও বাবা বরকত উল্লাহ সেখানে ছিলেন। এরপর আবরারের মায়ের সঙ্গে দেখা করতে বাড়িতে ঢুকতে চাইলে এলাকাবাসীর তোপের মুখে পড়েন তিনি। এক পর্যায়ে বুধবার বিকাল ৪টা ৫০ মিনিটের দিকে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার কয়া ইউনিয়নের রায়ডাঙ্গা গ্রামের ওই বাড়ির সামনে থেকে পুলিশ ও র‌্যাব সদস্যের পাহারায় দ্রুত গাড়িতে উঠে স্থান ত্যাগ করেন তিনি। এ সময় তার সঙ্গে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন ও পুলিশ সুপার এসএম তানভীন আরাফাত ছিলেন। পরে উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এর আগে বুধবার বিকাল তিনটার দিকে কুষ্টিয়া সার্কিট হাউসে পৌঁছান ভিসি। পরে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে জেলা প্রশাসকের গাড়িতে করে রায়ডাঙ্গায় যান ভিসি।

বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে তিনি আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ ও ছোট ভাই আবরার ফায়াজসহ সবাই মিলে কবর জিয়ারত করেন। পরে আবরারের ভাই ও বাবার প্রশ্নবাণে জর্জরিত হন ভিসি। তাদের জিজ্ঞাসা ছিল, ভিসি কেন ওই হত্যাকা-ের পর পর সেখানে উপস্থিত হননি। এখন কেন এসেছেন?
এরপর আবরারের মা রোকেয়া খাতুনের সঙ্গে দেখা করার জন্য রওনা দেন ভিসি। একই সড়কের পাশে আবরারের কবর ও পৈতৃক ভিটা। কুমারখালী থেকে যেতে প্রথমে কবরস্থান পড়ে। পরে আধা কিলোমিটারের মাথায় ওই বাড়ি। এ সময় স্থানীয় শত শত নারী-পুরুষ আবরারদের বাড়ির সামনের সড়কে বিক্ষোভ শুরু করে। গ্রামবাসী ভিসিকে গালিগালাজ ও ভিসি বিরোধী সেøাগান দিতে থাকে। এ সময় উত্তেজিত জনতা ভিসিকে ঘিরে রেখে আবরার হত্যার বিচারের দাবিতে সেøাগান দিতে থাকে। এ সময় স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা ভিসিকে ঘিরে রাখে। এক পর্যায়ে আবরারের মায়ের সঙ্গে দেখা না করে উপাচার্য পুলিশ প্রহরায় জেলা প্রশাসকের গাড়িতে করে রায়ডাঙ্গা গ্রাম ছেড়ে যান।
ভিসি চলে যাওয়ার পর উত্তেজিত জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিচার্জ করে পুলিশ। এ সময় আবরার ফাহাদের ছোট ভাই ফায়াজ, তার ফুপাতো ভাইয়ের স্ত্রী ও আরো একজন নারী আহত হন।
বুয়েট ভিসি অধ্যাপক ড. সাইফুল ইসলাম কুষ্টিয়ার রায়ডাঙ্গা গ্রামে গিয়ে আবরারের পরিবারের সঙ্গে দেখা করবেন এ খবরে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল পরিমাণ সদস্য মোতায়েন করা হয় সেখানে। দুপুর থেকেই আবরারের বাড়ি ও কবরের আশেপাশের এলাকায় অসংখ্য র‌্যাব ও পুলিশ অবস্থান নেয়। সন্ধ্যায় কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন বলেন, ভিসি এখন কুষ্টিয়া সার্কিট হাউসে অবস্থান করছেন। সেখান থেকে ঢাকার উদ্দেশ্য রওনা হচ্ছেন।
এদিকে, হত্যাকা-ের শিকার বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদের রুহের মাগফিরাত কামনায় কুষ্টিয়া জিলা স্কুলে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার বেলা ১১টায় জিলা স্কুল জামে মসজিদে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের আয়োজনে ও জেলা ছাত্রলীগের সহযোগিতায় এই দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। আবরার ফাহাদ এই স্কুলের এসএসসির ২০১৫ ব্যাচের ছাত্র ছিলেন।
কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান বলেন, ‘সন্তান হারানোর বেদনা ভুলিয়ে দেয়া যায় না। তবে আল্লাহর ঘরে দাঁড়িয়ে কথা দিচ্ছি, দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে যা প্রয়োজন তার সবই করা হবে। মানবজমিন

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com