বিপদ ঘটাতে পারে যে ১৪ খাবার

অনেক খাবার রয়েছে যেগুলো নিয়ম না মেনে খেলে ভয়ঙ্কর পরিণতি হতে পারে। খাবারগুলো অতিরিক্ত মাত্রায় খেলে মৃত্যুও হতে পারে।

ঝুঁকিপূর্ণ স্বাস্থ্য অবস্থা থেকে এড়াতে নীচের এই ১৪ খাবার সম্পর্কে জেনে নেয়া ভালো।

আপেল: বলা হয় একদিনে একটা আপেল খাওয়ার অভ্যাস থাকলে আপনাকে ডাক্তারের কাছে যেতে হবে না।

কিন্তু জানেন কি, ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে সস্তার মোমের প্রলেপ দেয়া হয় আপেলে। তাই সবসময় আপেল খাওয়ার আগে ভালো করে পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। আপেলের বীজও সায়ানাইডের মতোই বিষাক্ত। অনেকগুলো একসাথে খেয়ে ফেললে মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে।

আমন্ড বাদাম: আমন্ড বাদামে থাকা টক্সিন শরীরে ভালোর বদলে মন্দই করবে। এগুলো প্যাক করার আগে যে কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয় তা সায়ানায়েডের মতোই বিষাক্ত!

মধু: আনপাস্তুরাইজড মধুতে পাইরোলাইজিডিন থাকে। যা ক্যানসার হতে পারে, লিভারের সিরোসিসও হতে পারে।

রাজমা: রাজমায় থাকা লেকটিন, ফাইটো হেমাগ্লুটেনিন বিপদের দিকে ঠেলে দেয়। রাজমা কখনওই কাঁচা খাওয়া ঠিক না। আর রান্না করার আগে অবশ্যই পানিতে ভিজিয়ে রেখে দিন। তারপর খুবই ভালো করে রান্না করুন, তাতে অন্তত বিপদ থেকে রেহাই পাওয়া সম্ভব।

টমেটো: টমেটোর পাতায় থাকে গ্লাইকোক্যালয়েড নামের বিষাক্ত যৌগ। এই যৌগ পেশীতে টান, পেট খারাপ, অস্থিরতা ইত্যাদি সমস্যা অনেকটাই বাড়িয়ে দিতে পারে। তাই টমেটো খাওয়ার সময়ে সাবধান হতে হবে।

আলু: সোলানাইন নামক বিষাক্ত যৌগ থাকে আলুর পাতা এবং কাণ্ডে। আলুতে অনেক সময় বেশ কিছু সাদা সাদা অংশ বেরোতে দেখা যায়। সেই অংশ গুলো ফেলে দেবেন।

জায়ফল: অনেকেই বাহারি রান্নাতে জায়ফল দেন। খাবারে দারুণ গন্ধ, মিষ্টি-মিষ্টি স্বাদ আনে যে ফল। তাতেই বমি, পেট খারাপ ইত্যাদি হতেই পারে।

মাশরুম: ‘অ্যামানিটা ভিরোসা’ প্রজাতির মাশরুম নিশ্চিত মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিতে পারে। যদিও ঠিকঠাক মাশরুমে যথেষ্ট পরিমাণে প্রোটিন থাকে। কিন্তু সঠিক মাশরুম বেছে নিতে হবে।

ধনেপাতা: ধনেপাতায় এত বেশি পরিমাণে কীটনাশক থাকে যা স্বাস্থ্যের ভালোর বদলে খারাপ করে দিতে পারে। তাই ধনেপাতা রান্না করুন বা কাঁচা দিন কিছুতে, অবশ্যই ধুয়ে নেবেন ভালো করে।

কাঁচা মাংস: মাংস ভালো করে রান্না করে না খেলে মারাত্মক বিপদ হতে পারে। শুধু মাংসই নয়, কাঁচা অবস্থায় যে কোনো সি ফুড হোক বা পোল্ট্রির খাবার তাতে থাকে সালমোনেলার মতো ব্যাকটিরিয়া। এগুলো মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়।

পাফার মাছ: জাপানের এই মাছে প্যারালাইসিস হওয়ার সম্ভাবনা আছে ঠিক করে রান্না করে না খেলে।

চীনা বাদাম: যাদের অ্যালার্জি আছে, তারা এই বাদামে বেশি মাত্রায় খেলে শিরা ধমনী ব্লক হয়ে যেতে পারে।

ব্লু বেরি: যে ভাবে ধনেপাতায় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে প্রচুর, সেরকমই ব্লু বেরিতেও থাকে। প্রায় ৫২ রকমের কীটনাশক ব্যবহার করা ব্লু বেরি সঠিকভাবে পরিষ্কার করে না খেলেই বিপদ।

হটডগ: এতে থাকা ওবেসিটি সহজেই গ্রাস করে বাচ্চাদের। যে কোনো জাঙ্ক ফুডই বাচ্চাদের ক্যালোরির জন্য সমস্যা করে। কোলেস্টেরলের সমস্যা করে।

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» আলোচনায় ‘সাপলুডু’র ট্রেলার (ভিডিও)

» কারবালায় বাসে বোমা হামলা, নিহত ১২

» মোঃ সামশির ধর্ম বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য নির্বাচিত

» নববধূর গোপনাঙ্গে মরিচের গুঁড়া দিয়ে নির্যাতন

» চট্টগ্রামে অভিযান চালিয়ে ১৪ হাজার ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

» কারাগারে মা হলেন নুসরাত হত্যার আসামি মনি

» সাত দেহরক্ষীসহ জি কে শামীমকে গুলশান থানায় হস্তান্তর

» চার বছর পর পাকিস্তানের ওয়ানডে দলে ইফতিখার

» গাজীপুরে গাঁজাসহ আন্তঃজেলা মাদক কারবারি চক্রের সদস্য গ্রেপ্তার ১

» প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসায় জিএম কাদের

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০,০১৯১১৪৯০৫০৫

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...
,

বিপদ ঘটাতে পারে যে ১৪ খাবার

অনেক খাবার রয়েছে যেগুলো নিয়ম না মেনে খেলে ভয়ঙ্কর পরিণতি হতে পারে। খাবারগুলো অতিরিক্ত মাত্রায় খেলে মৃত্যুও হতে পারে।

ঝুঁকিপূর্ণ স্বাস্থ্য অবস্থা থেকে এড়াতে নীচের এই ১৪ খাবার সম্পর্কে জেনে নেয়া ভালো।

আপেল: বলা হয় একদিনে একটা আপেল খাওয়ার অভ্যাস থাকলে আপনাকে ডাক্তারের কাছে যেতে হবে না।

কিন্তু জানেন কি, ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে সস্তার মোমের প্রলেপ দেয়া হয় আপেলে। তাই সবসময় আপেল খাওয়ার আগে ভালো করে পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। আপেলের বীজও সায়ানাইডের মতোই বিষাক্ত। অনেকগুলো একসাথে খেয়ে ফেললে মৃত্যু পর্যন্ত ঘটতে পারে।

আমন্ড বাদাম: আমন্ড বাদামে থাকা টক্সিন শরীরে ভালোর বদলে মন্দই করবে। এগুলো প্যাক করার আগে যে কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয় তা সায়ানায়েডের মতোই বিষাক্ত!

মধু: আনপাস্তুরাইজড মধুতে পাইরোলাইজিডিন থাকে। যা ক্যানসার হতে পারে, লিভারের সিরোসিসও হতে পারে।

রাজমা: রাজমায় থাকা লেকটিন, ফাইটো হেমাগ্লুটেনিন বিপদের দিকে ঠেলে দেয়। রাজমা কখনওই কাঁচা খাওয়া ঠিক না। আর রান্না করার আগে অবশ্যই পানিতে ভিজিয়ে রেখে দিন। তারপর খুবই ভালো করে রান্না করুন, তাতে অন্তত বিপদ থেকে রেহাই পাওয়া সম্ভব।

টমেটো: টমেটোর পাতায় থাকে গ্লাইকোক্যালয়েড নামের বিষাক্ত যৌগ। এই যৌগ পেশীতে টান, পেট খারাপ, অস্থিরতা ইত্যাদি সমস্যা অনেকটাই বাড়িয়ে দিতে পারে। তাই টমেটো খাওয়ার সময়ে সাবধান হতে হবে।

আলু: সোলানাইন নামক বিষাক্ত যৌগ থাকে আলুর পাতা এবং কাণ্ডে। আলুতে অনেক সময় বেশ কিছু সাদা সাদা অংশ বেরোতে দেখা যায়। সেই অংশ গুলো ফেলে দেবেন।

জায়ফল: অনেকেই বাহারি রান্নাতে জায়ফল দেন। খাবারে দারুণ গন্ধ, মিষ্টি-মিষ্টি স্বাদ আনে যে ফল। তাতেই বমি, পেট খারাপ ইত্যাদি হতেই পারে।

মাশরুম: ‘অ্যামানিটা ভিরোসা’ প্রজাতির মাশরুম নিশ্চিত মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিতে পারে। যদিও ঠিকঠাক মাশরুমে যথেষ্ট পরিমাণে প্রোটিন থাকে। কিন্তু সঠিক মাশরুম বেছে নিতে হবে।

ধনেপাতা: ধনেপাতায় এত বেশি পরিমাণে কীটনাশক থাকে যা স্বাস্থ্যের ভালোর বদলে খারাপ করে দিতে পারে। তাই ধনেপাতা রান্না করুন বা কাঁচা দিন কিছুতে, অবশ্যই ধুয়ে নেবেন ভালো করে।

কাঁচা মাংস: মাংস ভালো করে রান্না করে না খেলে মারাত্মক বিপদ হতে পারে। শুধু মাংসই নয়, কাঁচা অবস্থায় যে কোনো সি ফুড হোক বা পোল্ট্রির খাবার তাতে থাকে সালমোনেলার মতো ব্যাকটিরিয়া। এগুলো মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়।

পাফার মাছ: জাপানের এই মাছে প্যারালাইসিস হওয়ার সম্ভাবনা আছে ঠিক করে রান্না করে না খেলে।

চীনা বাদাম: যাদের অ্যালার্জি আছে, তারা এই বাদামে বেশি মাত্রায় খেলে শিরা ধমনী ব্লক হয়ে যেতে পারে।

ব্লু বেরি: যে ভাবে ধনেপাতায় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে প্রচুর, সেরকমই ব্লু বেরিতেও থাকে। প্রায় ৫২ রকমের কীটনাশক ব্যবহার করা ব্লু বেরি সঠিকভাবে পরিষ্কার করে না খেলেই বিপদ।

হটডগ: এতে থাকা ওবেসিটি সহজেই গ্রাস করে বাচ্চাদের। যে কোনো জাঙ্ক ফুডই বাচ্চাদের ক্যালোরির জন্য সমস্যা করে। কোলেস্টেরলের সমস্যা করে।

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০,০১৯১১৪৯০৫০৫

Design & Developed BY ThemesBazar.Com