পাইপলাইন শক্তিশালী করতে বিসিবির বিশেষ উদ্যোগ

জাতীয় দলের পাইপ লাইন শক্ত থাকা জরুরি। জাতীয় দলের কোনো ক্রিকেটার ইনজুরির শিকার হলে তার জায়গা নিতে পারেন এমন অন্তত ৫-৭ জন ক্রিকেটারকে তৈরি রাখা সব সময় খুব দরকার। দুঃখজনক হলেও সত্য, সেই পাইপ লাইন সমৃদ্ধ ও শক্ত রাখার কাজটি মাঝের সময়টাতে খুব ভাল মত চলেনি।

চলেনি বলেই টিম ম্যানেজমেন্ট আর নির্বাচকরা কোন ব্যাটসম্যান পেসার কিংবা স্পিনার ইনজুরির শিকার হয়ে বাইরে ছিটকে পড়লে বিপাকে পড়ে যান। ঘুরে ফিরে সেই কতগুলো চেনা মুখকেই দেখা যায় বারবার। যেটা মোটেই সুখকর নয়। এতে করে, গত দুই তিন বছরে সে অর্থে তেমন কোন প্রতিভার উন্মেষ ঘটেনি। নতুন ব্যাটসম্যান, পেসার এবং স্পিনারেরও দেখা মেলেনি।

তবে খানিক দেরিতে হলেও এবার বিশ্বকাপের পর জাতীয় দলের পাইপ লাইন সমৃদ্ধ করার জোর তৎপরতা হাতে নেয়া হয়েছে। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু আজ দুপুরে জাগো নিউজের সাথে আলাপে জানিয়েছেন, ‘হাই পারফরমেন্স ইউনিট আর ‘এ’ দলকে অনুশীলনে রাখার পাশাপাশি দেশে ও বিদেশে খেলার মধ্যে রাখার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। এ প্রক্রিয়া সামনেও অব্যাহত থাকবে।

তারই অংশ হিসেবে ভারতে একটি দীর্ঘ পরিসরের টুর্নামেন্ট খেলে এসেছে এইচপি দল। আর ঘরের মাঠে আফগান ‘এ’ দলের সাথে খেলেছে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। আগামীতেও হাই পারফরমেন্স (এইচপি) দলের সামনে রয়েছে প্রচুর খেলা।

ঈদের ছুটি শেষ হতেই সাইফ, নাজমুল হোসেন শান্ত, নাঈম শেখ, আফিফ হোসেন ধ্রুব, ইয়াসির রাব্বি, ইয়াসিন মিশু, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব আর শফিকুল ইসলামরা ব্যস্ত হয়ে পড়বেন শ্রীলঙ্কার ইমার্জিং টিমের বিপক্ষে খেলায়।

আগস্টের প্রায় পুরো সময় ধরে দেশের মাটিতে শ্রীলঙ্কান ইমার্জিং একাদশের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশের এইচপির ক্রিকেটাররা। আগামী ১৬ আগস্ট রাজধানী ঢাকায় পৌঁছাবে শ্রীলঙ্কার ইমার্জিং দল। ওই দলের বিপক্ষে তিনটি একদিনের ম্যাচ আর দুটি চার দিনের ম্যাচে অংশ নেবে বাংলাদেশ হাই পারফরমেন্স (এইচপি) ইউনিট।

খেলা হবে সাভারের বিকেএসপি, খুলনা শেখ আবু নাসের স্টেডিয়াম ও কক্সবাজার শেখ কামাল স্টেডিয়ামে। ১৯ ও ২১ আগস্ট প্রথম দুটি ৫০ ওভারের ম্যাচ বিকেএসপিতে। তারপর ২৪ আগস্ট তৃতীয় ও শেষ একদিনের ম্যাচটি খুলনায়। প্রথম চার দিনের ম্যাচও খুলনায় (২৮ আগস্ট থেকে)। আর কক্সবাজারে শেষ চার দিনের ম্যাচ শুরু হবে ৪ সেপ্টেম্বর।

এদিকে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু আরও জানিয়েছেন, লঙ্কান ইমার্জিং টিমের বিপক্ষে বাংলাদেশ হাই পারফরমেন্স ইউনিটের ওয়ানডে ও চার দিনের দীর্ঘ পরিসরের সিরিজ শেষ হবার পর সেপ্টেম্বরের ঠিক মাঝামাঝি ১৬ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কা যাবে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। সেখানে এ দলের পাশাপাশি এইচপি টিম থেকে ৪/৫ ক্রিকেটারকে নেয়া হবে।

নান্নুর কথায় পরিষ্কার আভাস- শান্ত, সাইফ, নাঈম শেখ, ইয়াসরি রাব্বি আর ইয়াসিন মিশু ও বাঁ-হাতি শফিকুল ইসলামরা থাকবেন বিশেষ বিবেচনায়।

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» ‘শাহেনশাহ’ মুক্তি পাচ্ছে ৪ অক্টোবর

» ভ্যানিটি ব্যাগে মিলল ২৫ বোতল ফেনসিডিল

» রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সরকারের কোনো কূটনৈতিক ব্যর্থতা নেই: ওবায়দুল কাদের

» অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শোক

» বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ মোজাফফর আহমদ আর নেই

» বিষ্ণুপুর জয়পত্রকাঠি ডোবার পানিতে ডুবে এক শিশুর করুন মৃত্যু

» ময়মনসিংহ সার্কিট হাউজ এলাকার ক্লাব পাড়ায় র‍্যাবের অভিযানে, জরিমানা

» রাজগঞ্জ সার্বজনীন পূজা মন্দিরের আয়োজনে শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী পালিত ও বর্ণাঢ্য ধর্মীয় শোভাযাত্রা

» রাজগঞ্জের ঝাঁপায় মুক্তিযোদ্ধাকে শারিরীক নির্যাতনের প্রতিবাদে মানববন্ধন

» পলাশে নানা আয়োজনে মধ্য দিয়ে শুভ জন্মাষ্টমী পালন

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -আবুল কালাম আজাদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক

ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিল

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০,০১৯১১৪৯০৫০৫

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...
,

পাইপলাইন শক্তিশালী করতে বিসিবির বিশেষ উদ্যোগ

জাতীয় দলের পাইপ লাইন শক্ত থাকা জরুরি। জাতীয় দলের কোনো ক্রিকেটার ইনজুরির শিকার হলে তার জায়গা নিতে পারেন এমন অন্তত ৫-৭ জন ক্রিকেটারকে তৈরি রাখা সব সময় খুব দরকার। দুঃখজনক হলেও সত্য, সেই পাইপ লাইন সমৃদ্ধ ও শক্ত রাখার কাজটি মাঝের সময়টাতে খুব ভাল মত চলেনি।

চলেনি বলেই টিম ম্যানেজমেন্ট আর নির্বাচকরা কোন ব্যাটসম্যান পেসার কিংবা স্পিনার ইনজুরির শিকার হয়ে বাইরে ছিটকে পড়লে বিপাকে পড়ে যান। ঘুরে ফিরে সেই কতগুলো চেনা মুখকেই দেখা যায় বারবার। যেটা মোটেই সুখকর নয়। এতে করে, গত দুই তিন বছরে সে অর্থে তেমন কোন প্রতিভার উন্মেষ ঘটেনি। নতুন ব্যাটসম্যান, পেসার এবং স্পিনারেরও দেখা মেলেনি।

তবে খানিক দেরিতে হলেও এবার বিশ্বকাপের পর জাতীয় দলের পাইপ লাইন সমৃদ্ধ করার জোর তৎপরতা হাতে নেয়া হয়েছে। প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু আজ দুপুরে জাগো নিউজের সাথে আলাপে জানিয়েছেন, ‘হাই পারফরমেন্স ইউনিট আর ‘এ’ দলকে অনুশীলনে রাখার পাশাপাশি দেশে ও বিদেশে খেলার মধ্যে রাখার পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে। এ প্রক্রিয়া সামনেও অব্যাহত থাকবে।

তারই অংশ হিসেবে ভারতে একটি দীর্ঘ পরিসরের টুর্নামেন্ট খেলে এসেছে এইচপি দল। আর ঘরের মাঠে আফগান ‘এ’ দলের সাথে খেলেছে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। আগামীতেও হাই পারফরমেন্স (এইচপি) দলের সামনে রয়েছে প্রচুর খেলা।

ঈদের ছুটি শেষ হতেই সাইফ, নাজমুল হোসেন শান্ত, নাঈম শেখ, আফিফ হোসেন ধ্রুব, ইয়াসির রাব্বি, ইয়াসিন মিশু, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব আর শফিকুল ইসলামরা ব্যস্ত হয়ে পড়বেন শ্রীলঙ্কার ইমার্জিং টিমের বিপক্ষে খেলায়।

আগস্টের প্রায় পুরো সময় ধরে দেশের মাটিতে শ্রীলঙ্কান ইমার্জিং একাদশের বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশের এইচপির ক্রিকেটাররা। আগামী ১৬ আগস্ট রাজধানী ঢাকায় পৌঁছাবে শ্রীলঙ্কার ইমার্জিং দল। ওই দলের বিপক্ষে তিনটি একদিনের ম্যাচ আর দুটি চার দিনের ম্যাচে অংশ নেবে বাংলাদেশ হাই পারফরমেন্স (এইচপি) ইউনিট।

খেলা হবে সাভারের বিকেএসপি, খুলনা শেখ আবু নাসের স্টেডিয়াম ও কক্সবাজার শেখ কামাল স্টেডিয়ামে। ১৯ ও ২১ আগস্ট প্রথম দুটি ৫০ ওভারের ম্যাচ বিকেএসপিতে। তারপর ২৪ আগস্ট তৃতীয় ও শেষ একদিনের ম্যাচটি খুলনায়। প্রথম চার দিনের ম্যাচও খুলনায় (২৮ আগস্ট থেকে)। আর কক্সবাজারে শেষ চার দিনের ম্যাচ শুরু হবে ৪ সেপ্টেম্বর।

এদিকে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু আরও জানিয়েছেন, লঙ্কান ইমার্জিং টিমের বিপক্ষে বাংলাদেশ হাই পারফরমেন্স ইউনিটের ওয়ানডে ও চার দিনের দীর্ঘ পরিসরের সিরিজ শেষ হবার পর সেপ্টেম্বরের ঠিক মাঝামাঝি ১৬ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কা যাবে বাংলাদেশ ‘এ’ দল। সেখানে এ দলের পাশাপাশি এইচপি টিম থেকে ৪/৫ ক্রিকেটারকে নেয়া হবে।

নান্নুর কথায় পরিষ্কার আভাস- শান্ত, সাইফ, নাঈম শেখ, ইয়াসরি রাব্বি আর ইয়াসিন মিশু ও বাঁ-হাতি শফিকুল ইসলামরা থাকবেন বিশেষ বিবেচনায়।

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -আবুল কালাম আজাদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক

ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিল

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০,০১৯১১৪৯০৫০৫

Design & Developed BY ThemesBazar.Com