পরিত্যক্ত উড়োজাহাজের ভাগাড় শাহজালাল

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কার্গো ভিলেজ অ্যাপ্রোনের বিশাল অংশজুড়ে ফেলে রাখা হয়েছে ২২টি পরিত্যক্ত উড়োজাহাজ। এ কারণে কার্গোতে মালামাল পরিবহনের স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। নষ্ট উড়োজাহাজগুলো থেকে বকেয়া পার্কিং চার্জও আদায় করতে পারছে না বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। পরিত্যক্ত এসব উড়োজাহাজের ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে বিমানবন্দর।

এ ব্যাপারে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান  বলেন, এসব পরিত্যক্ত উড়োজাহাজ অনেক জায়গা দখল করে রয়েছে। এগুলো অন্যত্র সরিয়ে জায়গা ফাঁকা করার পরিকল্পনা চলছে। এই কোম্পানিগুলোর কাছে পার্কিং চার্জও পাওনা রয়েছে। তাই এ সমস্যা সমাধানে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সিভিল এভিয়েশন সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ৩০ মার্চ অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক সব ধরনের রুটের ফ্লাইট কার্যক্রম বন্ধ করে দেয় বেসরকারি এয়ারলাইনস জিএমজি। কার্যক্রম বন্ধের সাত বছর পার হলেও শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে পরিত্যক্ত দুটি এমডি-৮২ উড়োজাহাজ সরিয়ে নেয়নি এয়ারলাইনসটি। এই কোম্পানির মতো কার্গো ভিলেজ অ্যাপ্রোনে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে বিভিন্ন এয়ারলাইনসের ২২টি উড়োজাহাজ। এগুলো সরিয়ে নিতে সংশ্লিষ্ট এয়ারলাইনসকে তাগাদা দিয়ে একাধিকবার চিঠিও দিয়েছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ। এরপরও এসব উড়োজাহাজ সরানো হয়নি।

কার্গো ভিলেজ অ্যাপ্রোনে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে স্কাই ক্যাপিটাল এয়ারলাইনসের একটি ট্রাইস্টার উড়োজাহাজ। কার্গো পরিবহনে ব্যবহৃত এ উড়োজাহাজটি ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। একইভাবে অ্যাভিয়েনা এয়ারলাইনসের একটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ এবং বিসমিল্লাহ এয়ারলাইনসের একটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজও পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। এসব এয়ারলাইনসের কাছে প্রতি মাসেই বাড়ছে পার্কিং চার্জ। এয়ারলাইনসের কর্মকর্তাদের কোনো হদিস না থাকায় বকেয়া অর্থ আদায় করতে পারছে না বেবিচক। বন্ধ হয়ে যাওয়া এয়ারলাইনসের পাশাপাশি চালু থাকা এয়ারলাইনসের পরিত্যক্ত উড়োজাহাজও রয়েছে শাহজালাল বিমানবন্দরে। এর মধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের দুটি এফ-২৮ ও চারটি ডিসি-১০ উড়োজাহাজ এবং রিজেন্ট এয়ারওয়েজের একটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ কয়েক বছর ধরে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের চারটি এমডি-৮৩ ও একটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ পড়ে আছে কার্গো ভিলেজ অ্যাপ্রোনে।

এসব পরিত্যক্ত উড়োজাহাজ সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে গত ১৪ অক্টোবর তাগিদ দিয়েছিলেন বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মহিবুল হক। বৈঠকে সচিব জানতে চান কত সময় ধরে এসব উড়োজাহাজ বিমানবন্দরে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। অ্যাকশন হওয়ার পরও কেন বিমানের দুটো উড়োজাহাজ পড়ে আছে তার ব্যাখ্যা চান। তিনি বেবিচককে এসব এয়ারলাইনসের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে একটা কমিটি গঠন করে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেন।বাংলাদেশ প্রতিদিন

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» সিরিয়াল থেকে এবার বলিউডের সিনেমায় হিনা

» আগামীতে আওয়ামী লীগের শক্তিশালী কমিটি হবে : নাসিম

» বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করায় আগোরাকে জরিমানা

» বাসি গ্রিল শিক কাবাব বিক্রি করে ইয়াম্মী ইয়াম্মী

» বিয়ে বাড়িতে মাংসে বিষ মাখানোর অভিযোগে কসাই আটক

» বাসা থেকে যুবলীগ নেতা রফিককে তুলে নেয়ার অভিযোগ

» সড়কে আইন প্রয়োগ করতে গেলে পুলিশকে বদলির হুমকি দেয়: ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী

» সম্প্রচার কর্মীদের চাকরির নিশ্চয়তায় আইনি সুরক্ষা: তথ্যমন্ত্রী

» কালিগঞ্জের ভাড়াশিমলা ইউপিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে দুর্যোগ ঝুঁকিহ্রাস কর্মপরিকল্পনার কর্মশালা

» ডেঙ্গু রোগে রায়পুরের স্কুলছাত্রের মৃত্যু

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...
,

পরিত্যক্ত উড়োজাহাজের ভাগাড় শাহজালাল

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কার্গো ভিলেজ অ্যাপ্রোনের বিশাল অংশজুড়ে ফেলে রাখা হয়েছে ২২টি পরিত্যক্ত উড়োজাহাজ। এ কারণে কার্গোতে মালামাল পরিবহনের স্বাভাবিক কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। নষ্ট উড়োজাহাজগুলো থেকে বকেয়া পার্কিং চার্জও আদায় করতে পারছে না বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)। পরিত্যক্ত এসব উড়োজাহাজের ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে বিমানবন্দর।

এ ব্যাপারে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান  বলেন, এসব পরিত্যক্ত উড়োজাহাজ অনেক জায়গা দখল করে রয়েছে। এগুলো অন্যত্র সরিয়ে জায়গা ফাঁকা করার পরিকল্পনা চলছে। এই কোম্পানিগুলোর কাছে পার্কিং চার্জও পাওনা রয়েছে। তাই এ সমস্যা সমাধানে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সিভিল এভিয়েশন সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ৩০ মার্চ অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক সব ধরনের রুটের ফ্লাইট কার্যক্রম বন্ধ করে দেয় বেসরকারি এয়ারলাইনস জিএমজি। কার্যক্রম বন্ধের সাত বছর পার হলেও শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে পরিত্যক্ত দুটি এমডি-৮২ উড়োজাহাজ সরিয়ে নেয়নি এয়ারলাইনসটি। এই কোম্পানির মতো কার্গো ভিলেজ অ্যাপ্রোনে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে বিভিন্ন এয়ারলাইনসের ২২টি উড়োজাহাজ। এগুলো সরিয়ে নিতে সংশ্লিষ্ট এয়ারলাইনসকে তাগাদা দিয়ে একাধিকবার চিঠিও দিয়েছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ। এরপরও এসব উড়োজাহাজ সরানো হয়নি।

কার্গো ভিলেজ অ্যাপ্রোনে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে স্কাই ক্যাপিটাল এয়ারলাইনসের একটি ট্রাইস্টার উড়োজাহাজ। কার্গো পরিবহনে ব্যবহৃত এ উড়োজাহাজটি ২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। একইভাবে অ্যাভিয়েনা এয়ারলাইনসের একটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ এবং বিসমিল্লাহ এয়ারলাইনসের একটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজও পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। এসব এয়ারলাইনসের কাছে প্রতি মাসেই বাড়ছে পার্কিং চার্জ। এয়ারলাইনসের কর্মকর্তাদের কোনো হদিস না থাকায় বকেয়া অর্থ আদায় করতে পারছে না বেবিচক। বন্ধ হয়ে যাওয়া এয়ারলাইনসের পাশাপাশি চালু থাকা এয়ারলাইনসের পরিত্যক্ত উড়োজাহাজও রয়েছে শাহজালাল বিমানবন্দরে। এর মধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের দুটি এফ-২৮ ও চারটি ডিসি-১০ উড়োজাহাজ এবং রিজেন্ট এয়ারওয়েজের একটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ কয়েক বছর ধরে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। ইউনাইটেড এয়ারওয়েজের চারটি এমডি-৮৩ ও একটি ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজ পড়ে আছে কার্গো ভিলেজ অ্যাপ্রোনে।

এসব পরিত্যক্ত উড়োজাহাজ সরিয়ে নেওয়ার বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে গত ১৪ অক্টোবর তাগিদ দিয়েছিলেন বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মহিবুল হক। বৈঠকে সচিব জানতে চান কত সময় ধরে এসব উড়োজাহাজ বিমানবন্দরে পরিত্যক্ত অবস্থায় পড়ে আছে। অ্যাকশন হওয়ার পরও কেন বিমানের দুটো উড়োজাহাজ পড়ে আছে তার ব্যাখ্যা চান। তিনি বেবিচককে এসব এয়ারলাইনসের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে একটা কমিটি গঠন করে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেন।বাংলাদেশ প্রতিদিন

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com