নারী পুরুষের আবেগ ভিন্ন হয় কেন ?

নারীদের মতো পুরুষদের চোখে সহজে পানি আসে না। কিন্তু কেন? সেই উত্তর অবশেষে পাওয়া গেল। সুইজারল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অফ বেজেল- এর একটি গবেষণার প্রতিবেদন অনুযায়ী, পুরুষ ও নারীদের মস্তিষ্কে কিছু পার্থক্য থাকে। যার জন্য পুরুষরা নারীদের মতো অনুভূতিহীন ও আবেগপ্রবণ হন না। অনেক পুরুষের মধ্যে তো কোনো আবেগ বা অন্যের প্রতি শ্রদ্ধাও থাকে না।

কার আবেগ বেশি নারী না পুরুষের? এই আলোচনা অনেকেই করে থাকেন। কিন্তু আমরা জানি না মস্তিষ্কের সংযোগকারী বিভিন্ন স্নায়ুর পার্থক্যের কারণেই মানুষের আবেগগত আচরণের পার্থক্য হয়। কিছু মানুষ বেশি আবেগী হয় এবং কিছু মানুষের ভেতর আবেগ কম দেখা যায়।

যে কোনো নারীদের চাইতে পুরুষদের আবেগের ভিন্নতা অনেক। ব্যস্ততা বা সংসারের চাপে নয়, মস্তিষ্কের গঠনের কারণে ছেলেদের হৃদয়ে কম আবেগ থাকে। গবেষণা করে আরো দেখা গেছে, শুধু আবেগ নয় মস্তিষ্কের গঠনের ভিন্নতার কারণে উদাসীন হওয়ার প্রবণতাও পুরুষদের বেশি।

অপরের প্রতি সহানুভূতির অভাব ও অন্যের অনুভূতির গুরুত্ব না দেয়া আবেগহীন-উদাসীনতার উদাহরণ হিসেবে ধরা যায়। এমন কি পুরুষের অপরাধ বোধও নারীর তুলনায় অনেক কম হয়। গবেষণা অনুযায়ী, মস্তিষ্কের যে অংশ অন্য ব্যক্তির আবেগ এবং অনুভূতি বোঝার সঙ্গে জড়িত ছেলেদের সেই অংশে অ্যান্টেরিয়র ইন্সুলা বা গ্রে ম্যাটারের ঘনত্ব বেশি থাকে।

তাই ছেলেরা আবেগ বর্জিত আচরণ বেশি করে। তবে নারীদের ক্ষেত্রে তা কিন্তু একেবারেই প্রযোজ্য নয়। অন্যদিকে বাড়ন্ত ছেলেদের মধ্যে তুলনামূলক ভাবে অ্যান্টেরিয়র ইনসুলা বা ধূষর কোষের সংখ্যা বেশি থাকে। মস্তিষ্কে এই ধূষর কোষের মাধ্যমেই অন্যের দুঃখে মানুষ সহানুভূতিশীল হয়।

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পুরুষদের মস্তিষ্কে এই ধূষর কোষের সংখ্যা কমতে থাকে। তবুও তা নারীদের তুলনায় অনেক কম হয়। মূলত মস্তিষ্কের গঠনই নির্ধারণ করে সেই মানুষটির আবেগ, অনুভূতি কেমন হবে।

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» একটি দল শুধুই সরকারের সমালোচনা করছে:নানক

» মাসুদ রানা ছবির বাজেট ৮৩ কোটি টাকা

» গণপিটুনি ও ধর্ষণ বিএনপি-জামায়াতের নিখুঁত ষড়যন্ত্র : আইনমন্ত্রী

» হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ থেকে প্রিয়া সাহা বহিষ্কার

» নির্ধারিত স্থানের বাইরে কোরবানি পশুর হাট নয় : ডিএমপি কমিশনার

» রিফাত হত্যা স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে রিশান ফরাজী

» আ.লীগ বিরোধীদের তালিকায় মন্ত্রী-এমপির সংখ্যাই বেশি

» ছেলেধরা সন্দেহে ৯৯৯ কল দিন, গণপিটুনি নয়

» পচা-মেয়াদোত্তীর্ণ পণ্য দিয়ে তৈরি হচ্ছে জুস

» ৪৮ ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স বাতিল

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -আবুল কালাম আজাদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক

ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিল

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০,০১৯১১৪৯০৫০৫

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...
,

নারী পুরুষের আবেগ ভিন্ন হয় কেন ?

নারীদের মতো পুরুষদের চোখে সহজে পানি আসে না। কিন্তু কেন? সেই উত্তর অবশেষে পাওয়া গেল। সুইজারল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অফ বেজেল- এর একটি গবেষণার প্রতিবেদন অনুযায়ী, পুরুষ ও নারীদের মস্তিষ্কে কিছু পার্থক্য থাকে। যার জন্য পুরুষরা নারীদের মতো অনুভূতিহীন ও আবেগপ্রবণ হন না। অনেক পুরুষের মধ্যে তো কোনো আবেগ বা অন্যের প্রতি শ্রদ্ধাও থাকে না।

কার আবেগ বেশি নারী না পুরুষের? এই আলোচনা অনেকেই করে থাকেন। কিন্তু আমরা জানি না মস্তিষ্কের সংযোগকারী বিভিন্ন স্নায়ুর পার্থক্যের কারণেই মানুষের আবেগগত আচরণের পার্থক্য হয়। কিছু মানুষ বেশি আবেগী হয় এবং কিছু মানুষের ভেতর আবেগ কম দেখা যায়।

যে কোনো নারীদের চাইতে পুরুষদের আবেগের ভিন্নতা অনেক। ব্যস্ততা বা সংসারের চাপে নয়, মস্তিষ্কের গঠনের কারণে ছেলেদের হৃদয়ে কম আবেগ থাকে। গবেষণা করে আরো দেখা গেছে, শুধু আবেগ নয় মস্তিষ্কের গঠনের ভিন্নতার কারণে উদাসীন হওয়ার প্রবণতাও পুরুষদের বেশি।

অপরের প্রতি সহানুভূতির অভাব ও অন্যের অনুভূতির গুরুত্ব না দেয়া আবেগহীন-উদাসীনতার উদাহরণ হিসেবে ধরা যায়। এমন কি পুরুষের অপরাধ বোধও নারীর তুলনায় অনেক কম হয়। গবেষণা অনুযায়ী, মস্তিষ্কের যে অংশ অন্য ব্যক্তির আবেগ এবং অনুভূতি বোঝার সঙ্গে জড়িত ছেলেদের সেই অংশে অ্যান্টেরিয়র ইন্সুলা বা গ্রে ম্যাটারের ঘনত্ব বেশি থাকে।

তাই ছেলেরা আবেগ বর্জিত আচরণ বেশি করে। তবে নারীদের ক্ষেত্রে তা কিন্তু একেবারেই প্রযোজ্য নয়। অন্যদিকে বাড়ন্ত ছেলেদের মধ্যে তুলনামূলক ভাবে অ্যান্টেরিয়র ইনসুলা বা ধূষর কোষের সংখ্যা বেশি থাকে। মস্তিষ্কে এই ধূষর কোষের মাধ্যমেই অন্যের দুঃখে মানুষ সহানুভূতিশীল হয়।

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পুরুষদের মস্তিষ্কে এই ধূষর কোষের সংখ্যা কমতে থাকে। তবুও তা নারীদের তুলনায় অনেক কম হয়। মূলত মস্তিষ্কের গঠনই নির্ধারণ করে সেই মানুষটির আবেগ, অনুভূতি কেমন হবে।

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -আবুল কালাম আজাদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক

ঢাকা সাব-এডিটরস কাউন্সিল

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০,০১৯১১৪৯০৫০৫

Design & Developed BY ThemesBazar.Com