টাকার অভাবে কান্না করা মেয়েটি এখন পুরুষের স্বপ্নের নায়িকা

খুব যে অভাবী ঘরে জন্মেছেন তা কিন্তু নয়। মধ্যবিত্ত পরিবারেই জন্ম ও মানুষ। শিক্ষাও পেয়েছেন ভালো। নিজের কর্ম জীবনটাও শুরু করতে পেরেছিলেন বেশ চমৎকার সম্ভাবনা নিয়ে। তবুও তাকে অভাবের দিন পার করতে হয়েছে। হতাশায় কাঁদতে হয়েছে দিনে রাতে।

বলছি বলিউড অভিনেত্রী পরিণীতি চোপড়ার কথা। ২০১৩ সালেই তার সিনেমার অভিষেক। পরপর বেশ কয়টি সিনেমায় নাম লেখান তিনি।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার বোন হিসেবে পরিচিতিটা পেয়েছিলেন দ্রুত। যশ রাজ চোপড়ার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানে কাজ করার অভিজ্ঞতা তাকে সহজ করে দিয়েছিলো সিনেমায় ভালো করার।

তবু কিছু ভুল সিদ্ধান্ত তাকে ব্যাকফুটে নিয়ে গিয়েছিলো। ফেলে দিয়েছিলো অনিশ্চিত জীবনের মুখে। পরিণীতির ভাষায়, ‘২০১৪ সালের শেষ থেকে গোটা ২০১৫ সাল। খুব খারাপ কেটেছিল আমার জীবনে। আমার দুটি ছবি কিল দিল এবং দাওয়াত-ই-ইশক একেবারেই কাজ করেনি।

হঠাৎ করেই দেখলাম হাতে টাকা নেই। তখন একে তো প্রেম ভাঙার যন্ত্রণা, অন্যদিকে নিজের বাড়ি কেনায় অনেক টাকা চলে গিয়েছিল। জীবনে পজিটিভ কিছুই ছিল না যেন। খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলাম। কারও সঙ্গে কথা বলতাম না, দেখা করতাম না। সারাদিন নিজেকে ঘরে বন্দি করে কাঁদতাম।

মন ভাল করতে নিজেই নিজের সাথে কথা বলতাম। টিভি দেখতাম, ঘুমাতাম… জম্বির মতো হয়ে গিয়েছিলাম যেন। ফিল্মি ডিপ্রেসড মেয়ের মতো হয়ে গিয়েছিলাম। বারবার অসুখে পড়ছিলাম। ৬ মাস মিডিয়ার থেকে নিজেকে এক্কেবারে দূরে রেখেছিলাম। দিনে অন্তত ১০ বার কাঁদতাম।’

তবে সময়ের চাকা ঘুরতে বেশি সময় লাগেনি পরিণীতির। ২০১৬ থেকে নিজেকে আমূল বদলে নেন এই নায়িকা। রূপ আর গ্ল্যামারে মাতিয়ে রেখেছেন হিন্দি সিনেমার রঙিন দুনিয়া। কোটি পুরুষের কাছে আরাধ্য এখন পরিণীতি, স্বপ্নের নায়িকাও। অনেক নায়কই একজন ভালো অভিনেত্রী হিসেবে পরিণীতির জুটি হতে অপেক্ষায় থাকেন।

সর্বশেষ অক্ষয় কুমারের সঙ্গে ‘খেসারি’ চলচ্চিত্র দিয়ে সাফল্য পেয়েছেন তিনি। হাতে আছে আরও বেশ কিছু চলচ্চিত্র। সেগুলোও তার ক্যারিয়ারে বসন্তের হাওয়া দেবে বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।জাগোনিউজ

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» নতুন খোলামেলা ভিডিওতে উত্তাপ ছড়াচ্ছেন নায়লা নাঈম

» পায়ুপথে ইয়াবা বহন, শাহজালালে যাত্রী গ্রেফতার

» রাজধানীর বনশ্রীতে গৃহপরিচারিকা গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা

» স্বর্ণ জয়ে ইতিহাস গড়লো বাংলাদেশ

» এবার মাদারীপুরের বাঘটাকে ধরবো: এমপি নিক্সন

» ‘কৃষকরাই সব চেয়ে অবহেলিত, কৃষি খাত এখনো অলাভজনক’

» জিয়া বেঁচে থাকলে তারও ফাঁসি হতো: শেখ সেলিম

» ২২ ডিআইজি ও অতিরিক্ত ডিআইজিকে বদলি

» ডিএফপি’র নিয়োগ পরীক্ষা ১৩ ডিসেম্বর

» সম্রাট-আরমানসহ ১০ জনের সম্পদ ক্রোক হচ্ছে

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...
,

টাকার অভাবে কান্না করা মেয়েটি এখন পুরুষের স্বপ্নের নায়িকা

খুব যে অভাবী ঘরে জন্মেছেন তা কিন্তু নয়। মধ্যবিত্ত পরিবারেই জন্ম ও মানুষ। শিক্ষাও পেয়েছেন ভালো। নিজের কর্ম জীবনটাও শুরু করতে পেরেছিলেন বেশ চমৎকার সম্ভাবনা নিয়ে। তবুও তাকে অভাবের দিন পার করতে হয়েছে। হতাশায় কাঁদতে হয়েছে দিনে রাতে।

বলছি বলিউড অভিনেত্রী পরিণীতি চোপড়ার কথা। ২০১৩ সালেই তার সিনেমার অভিষেক। পরপর বেশ কয়টি সিনেমায় নাম লেখান তিনি।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার বোন হিসেবে পরিচিতিটা পেয়েছিলেন দ্রুত। যশ রাজ চোপড়ার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানে কাজ করার অভিজ্ঞতা তাকে সহজ করে দিয়েছিলো সিনেমায় ভালো করার।

তবু কিছু ভুল সিদ্ধান্ত তাকে ব্যাকফুটে নিয়ে গিয়েছিলো। ফেলে দিয়েছিলো অনিশ্চিত জীবনের মুখে। পরিণীতির ভাষায়, ‘২০১৪ সালের শেষ থেকে গোটা ২০১৫ সাল। খুব খারাপ কেটেছিল আমার জীবনে। আমার দুটি ছবি কিল দিল এবং দাওয়াত-ই-ইশক একেবারেই কাজ করেনি।

হঠাৎ করেই দেখলাম হাতে টাকা নেই। তখন একে তো প্রেম ভাঙার যন্ত্রণা, অন্যদিকে নিজের বাড়ি কেনায় অনেক টাকা চলে গিয়েছিল। জীবনে পজিটিভ কিছুই ছিল না যেন। খাওয়া দাওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলাম। কারও সঙ্গে কথা বলতাম না, দেখা করতাম না। সারাদিন নিজেকে ঘরে বন্দি করে কাঁদতাম।

মন ভাল করতে নিজেই নিজের সাথে কথা বলতাম। টিভি দেখতাম, ঘুমাতাম… জম্বির মতো হয়ে গিয়েছিলাম যেন। ফিল্মি ডিপ্রেসড মেয়ের মতো হয়ে গিয়েছিলাম। বারবার অসুখে পড়ছিলাম। ৬ মাস মিডিয়ার থেকে নিজেকে এক্কেবারে দূরে রেখেছিলাম। দিনে অন্তত ১০ বার কাঁদতাম।’

তবে সময়ের চাকা ঘুরতে বেশি সময় লাগেনি পরিণীতির। ২০১৬ থেকে নিজেকে আমূল বদলে নেন এই নায়িকা। রূপ আর গ্ল্যামারে মাতিয়ে রেখেছেন হিন্দি সিনেমার রঙিন দুনিয়া। কোটি পুরুষের কাছে আরাধ্য এখন পরিণীতি, স্বপ্নের নায়িকাও। অনেক নায়কই একজন ভালো অভিনেত্রী হিসেবে পরিণীতির জুটি হতে অপেক্ষায় থাকেন।

সর্বশেষ অক্ষয় কুমারের সঙ্গে ‘খেসারি’ চলচ্চিত্র দিয়ে সাফল্য পেয়েছেন তিনি। হাতে আছে আরও বেশ কিছু চলচ্চিত্র। সেগুলোও তার ক্যারিয়ারে বসন্তের হাওয়া দেবে বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।জাগোনিউজ

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, সাবেক ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

১১২৫ পূর্ব মনিপুর , মিরপুর -২ ঢাকা -১২১৬

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com