চাঁদা না দিলে ক্রাইম রিপোর্ট— নাসিরাবাদ থেকে গ্রেপ্তার ভুয়া সাংবাদিক

ডেস্ক রিপোর্ : চাঁদা না দিলেই হবে ক্রাইম রিপোর্ট— এমন হুমকি দিয়ে মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে গিয়ে পাঁচলাইশ পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হলো কথিত সাংবাদিক। চট্টগ্রাম প্রতিদিন

জানা গেছে, চট্টগ্রাম নগরীর নাসিরাবাদ হাউজিং সোসাইটির ৩ নম্বর রোডের ৭ নম্বর বাড়ির বাসিন্দা মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফা কামালের বাসস্থানে সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদা দাবি করতে গিয়ে জিয়াউল হক জিয়া (৩৫) বছরের এক যুবক গ্রেপ্তার হয়েছেন। শনিবার (৯ নভেম্বর) রাত সাড়ে বারোটায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

৭ নম্বর বাড়ির নিচতলার বাসিন্দা মোস্তফা কামাল বলেন, ‘৭ নভেম্বর আমি বাসায় ছিলাম না। তখন জিয়াউল হক জিয়া নামে একজন নিজেকে ক্রাইম পেট্রোল নিউজ ২৪ ডটকমের ক্রাইম রিপোর্টার পরিচয় দিয়ে আমার বাসায় প্রবেশ করে। তখন আমার স্ত্রী ছিল বাসায়। জিয়া নামের সেই কথিত সাংবাদিক তখন আমার স্ত্রীকে ভয় দেখায় যে সে অনেক বড় ক্রাইম রিপোর্টার। আমাকে নিয়ে সে অনেক বড় ক্রাইম রিপোর্ট করে দিবে। এতে আমি ফেঁসে যাবো। এসব ভয় দেখালে আমার স্ত্রী ভয় পেয়ে ওর হাতে থাকা পাঁচশো টাকা দেন। জিয়া তার একটা ভিজিটিং কার্ড দিয়ে বলে যায় যে আমি যেনো তার সাথে কথা বলি তা না হলে অনেক বড় ক্ষতি হয়ে যাবে আমার। পরে আমি বাসায় ফিরলে আমার স্ত্রী কান্নারত অবস্থায় আমায় এসব খুলে বলে। তারপর ৮ নভেম্বর প্রদত্ত নম্বরে কল করলে সে বলে আমার সাথে দেখা করতে চায়। দেখা না করলে আমার অনেক ক্ষতি করবে। তখন আমিও বলি আচ্ছা আপনি বাসায় আসেন। তখন তিনি রাত ১০ টার সময় আমার বাসায় আসেন। বাসায় আসলে আমার সন্দেহ হলে কৌশলে দারোয়ানকে গেইট বন্ধ করে দিতে বলি এবং পাশ্ববর্তী কিছু লোকজনকে ডেকে আনি। পাঁচলাইশ থানায় খবর দিলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে জিয়া জানায় তার সাথে কোর্ট বিল্ডিংয়ের ফারুক নামে একজন আছে যে তাকে এভাবে অনেক টাকা আদায় করার পরামর্শ দিয়েছে। রাত সাড়ে ১২ টা নাগাদ পুলিশ এসে তাকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায়।

তিনি আরো বলেন, ‘জানি না এই জিয়া আসলে কোনো সাংবাদিক কি না। আর যদি সাংবাদিক হয়েও থাকে তাহলে আমাদের মতো সাধারণ মানুষকে এভাবে হেনস্তা করলে আমরা কই যাবো?’

এ নিয়ে পাঁচলাইশ থানার ওসি আবুল কাশেম ভুঁইয়ার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে জিয়াউল হক জিয়াকে গ্রেপ্তার করি। তার কাছে সাংবাদিক পরিচয়ে একটি কার্ডও রয়েছে। সে ভুয়া না আসল সাংবাদিক কেবল সেটার ভিত্তিতে তাকে আমরা গ্রেপ্তার করিনি। এই ঘটনার সাথে জড়িত ফারুক কে বা এ ঘটনায় তার কোনো যোগসূত্র আছে কিনা তা তদন্ত করছি।

তাকে চাঁদাবাজির মামলা দিয়ে কোর্টে চালান করে দেয়া হয়েছে বলে জানান ওসি।

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» হবিগঞ্জে হাইব্রিড হীরা-২ নকল বীজ ধানের কারখানা আবিস্কার ॥ বিপুল পরিমাণ নকল বীজ,প্যাকেট জব্ধ ও ক্যামিকেল ॥ গুদাম সীলগালা

» ঠিকাদার ও দালাল  কতৃক নেয়া লক্ষ্মীপুরে বিদ্যুৎ গ্রাহকদের অতিরিক্ত টাকা ফেরত দিতে বাধ্য হলেন 

» বর্তমান সরকার মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে : ইউপি চেয়ারম্যান মনি

» ৮ ঘণ্টা ভোগান্তির পর ঢাকা-চট্টগ্রাম-সিলেট মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক

» বাংলা চলচ্চিত্রের মাধ্যমে বিশ্ববাজার দখল করার লক্ষ্য নিয়ে সরকার এগোচ্ছে

» অকুপেন্সি সনদ না থাকলে আইনি ব্যবস্থা

» স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বসছেন পণ্যবাহী যানের মালিক-শ্রমিকরা

» সাগিরা মোর্শেদ হত্যা: আরও ৬০ দিন সময় পেলো পিবিআই

» মণিরামপুর উপজেলার রেশমা খাতুন ৪র্থ বার মত শ্রেষ্ঠ শিক্ষিকা নির্বাচিত

» স্ট্রেট ব্যাংকিং সেবা চালু করলো এনআরবি ব্যাংক-এসএসএল

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...
,

চাঁদা না দিলে ক্রাইম রিপোর্ট— নাসিরাবাদ থেকে গ্রেপ্তার ভুয়া সাংবাদিক

ডেস্ক রিপোর্ : চাঁদা না দিলেই হবে ক্রাইম রিপোর্ট— এমন হুমকি দিয়ে মুক্তিযোদ্ধার বাড়িতে গিয়ে পাঁচলাইশ পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হলো কথিত সাংবাদিক। চট্টগ্রাম প্রতিদিন

জানা গেছে, চট্টগ্রাম নগরীর নাসিরাবাদ হাউজিং সোসাইটির ৩ নম্বর রোডের ৭ নম্বর বাড়ির বাসিন্দা মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফা কামালের বাসস্থানে সাংবাদিক পরিচয়ে চাঁদা দাবি করতে গিয়ে জিয়াউল হক জিয়া (৩৫) বছরের এক যুবক গ্রেপ্তার হয়েছেন। শনিবার (৯ নভেম্বর) রাত সাড়ে বারোটায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

৭ নম্বর বাড়ির নিচতলার বাসিন্দা মোস্তফা কামাল বলেন, ‘৭ নভেম্বর আমি বাসায় ছিলাম না। তখন জিয়াউল হক জিয়া নামে একজন নিজেকে ক্রাইম পেট্রোল নিউজ ২৪ ডটকমের ক্রাইম রিপোর্টার পরিচয় দিয়ে আমার বাসায় প্রবেশ করে। তখন আমার স্ত্রী ছিল বাসায়। জিয়া নামের সেই কথিত সাংবাদিক তখন আমার স্ত্রীকে ভয় দেখায় যে সে অনেক বড় ক্রাইম রিপোর্টার। আমাকে নিয়ে সে অনেক বড় ক্রাইম রিপোর্ট করে দিবে। এতে আমি ফেঁসে যাবো। এসব ভয় দেখালে আমার স্ত্রী ভয় পেয়ে ওর হাতে থাকা পাঁচশো টাকা দেন। জিয়া তার একটা ভিজিটিং কার্ড দিয়ে বলে যায় যে আমি যেনো তার সাথে কথা বলি তা না হলে অনেক বড় ক্ষতি হয়ে যাবে আমার। পরে আমি বাসায় ফিরলে আমার স্ত্রী কান্নারত অবস্থায় আমায় এসব খুলে বলে। তারপর ৮ নভেম্বর প্রদত্ত নম্বরে কল করলে সে বলে আমার সাথে দেখা করতে চায়। দেখা না করলে আমার অনেক ক্ষতি করবে। তখন আমিও বলি আচ্ছা আপনি বাসায় আসেন। তখন তিনি রাত ১০ টার সময় আমার বাসায় আসেন। বাসায় আসলে আমার সন্দেহ হলে কৌশলে দারোয়ানকে গেইট বন্ধ করে দিতে বলি এবং পাশ্ববর্তী কিছু লোকজনকে ডেকে আনি। পাঁচলাইশ থানায় খবর দিলে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে জিয়া জানায় তার সাথে কোর্ট বিল্ডিংয়ের ফারুক নামে একজন আছে যে তাকে এভাবে অনেক টাকা আদায় করার পরামর্শ দিয়েছে। রাত সাড়ে ১২ টা নাগাদ পুলিশ এসে তাকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায়।

তিনি আরো বলেন, ‘জানি না এই জিয়া আসলে কোনো সাংবাদিক কি না। আর যদি সাংবাদিক হয়েও থাকে তাহলে আমাদের মতো সাধারণ মানুষকে এভাবে হেনস্তা করলে আমরা কই যাবো?’

এ নিয়ে পাঁচলাইশ থানার ওসি আবুল কাশেম ভুঁইয়ার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে জিয়াউল হক জিয়াকে গ্রেপ্তার করি। তার কাছে সাংবাদিক পরিচয়ে একটি কার্ডও রয়েছে। সে ভুয়া না আসল সাংবাদিক কেবল সেটার ভিত্তিতে তাকে আমরা গ্রেপ্তার করিনি। এই ঘটনার সাথে জড়িত ফারুক কে বা এ ঘটনায় তার কোনো যোগসূত্র আছে কিনা তা তদন্ত করছি।

তাকে চাঁদাবাজির মামলা দিয়ে কোর্টে চালান করে দেয়া হয়েছে বলে জানান ওসি।

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

বিশেষ প্রতিনিধি:মাকসুদা লিসা

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com