ওয়াসার পানিতে জীবাণু-মল: পরিশোধনে কী পদক্ষেপ জানতে চায় আদালত?

রাজধানীর সায়েদাবাদ ও চাঁদনীঘাটের পানিতে (আইসিডিডিআরবি, বুয়েট এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের পরীক্ষায়) মিলেছে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া। হাই কোর্টের নির্দেশে গঠিত এ সংক্রান্ত কমিটির প্রতিবেদনে এই তথ্য পাওয়া যায়। আজ রবিবার হাইকোর্টে এ প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। এরপর ঢাকা ওয়াসার সরবরাহ করা পানিতে মল ও জীবাণুর অস্তিত্ব পাওয়ার ঘটনায় কী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে, তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।

আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। আগামী ২৪ জুলাই এ বিষয়ে শুনানির দিন ঠিক করেছেন আদালত। হাইকোর্টের বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালতে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু।

রিটকারী আইনজীবী মো. তানভীর আহমেদ আদালতে উপস্থিত ছিলেন। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটির প্রতিবেদনটি দাখিল করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৩৪টি নমুনার মধ্যে ৮টিতে মিলেছে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া। সেই সঙ্গে কিছু কিছু এলাকার ওয়াসার পানিতেও পাওয়া গেছে মলের জীবাণু। পানির মান নিয়ে রাজধানীবাসীর ক্ষোভ বেশ পুরনো। ওয়াসা বার বার তাদের পানি সুপেয় দাবি করলেও তা সন্তুষ্ট করতে পারেনি। এমন বাস্তবতায় গেল ২১ মে ঢাকার ৩৪ জায়গার পানি পরীক্ষার নির্দেশ দেয় হাই কোর্ট। এজন্য আইসিডিডিআরবি, বুয়েটের ব্যুরো অব রিসার্চ, টেস্টিং অ্যান্ড কনসোলেশন ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের সমন্বয়ে গঠন করে দেওয়া হয় একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি। ওইদিন আদেশে হাই কোর্ট চারটি উৎস (বুড়িগঙ্গা, শীতলক্ষ্যা, ভূগর্ভস্থ ও ভূমিস্থ), ১০টি বিতরণ জোন (যা মডস জোন নামে পরিচিত) এবং গ্রাহকদের অভিযোগের ভিত্তিতে ১০টি ঝুঁকিপূর্ণ ও দৈবচয়নের ভিত্তিতে ১০টি স্থান থেকে নমুনা সংগ্রহ করতে বলেছে। সম্প্রতি কমিটি তাদের প্রতিবেদন অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়ে দাখিল করেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, আটটি নমুনায় মিলেছে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া। রয়েছে মলের জীবাণুও। সবচেয়ে বেশি খারাপ অবস্থা সায়েদাবাদ ও চাঁদনীঘাটে।

শুকনো মৌসুমে পাওয়া যায় উচ্চ মাত্রার অ্যামোনিয়া। ক্ষতিকর এসব ব্যাকটেরিয়া রোধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে প্রতিবেদনে। ঢাকার অন্য এলাকার পানিতে কোনো ধরনের দূষণ আছে কিনা তা খুঁজে বের করার পরামর্শও দিয়েছে কমিটি।

বিডি-প্রতিদিন

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» ভারতে কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে নিষিদ্ধ হল মোবাইল

» রাবি শিক্ষার্থীর ওপর দুর্বৃত্তদের হামলা, প্রতিবাদে মহাসড়ক অবরোধ

» মতপ্রকাশের স্বাধীনতা সীমিত বলেই নৃশংস ঘটনা ঘটছে

» নতুন মিশনে পপি

» নিষিদ্ধ জালে মাছ শিকার

» শাপলার বিকি বিল

» জুড়ীর গৌরীপুর সড়কের কাজে অনিয়মের অভিযোগ

» কুলাউড়া সদর ইউনিয়ন দেড় যুগেও চালু হয়নি নিজস্ব ভবন

» প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ ও প্রতিবেদকের বক্তব্য

» জমি দখল করাই তাদের কাজ

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...
,

ওয়াসার পানিতে জীবাণু-মল: পরিশোধনে কী পদক্ষেপ জানতে চায় আদালত?

রাজধানীর সায়েদাবাদ ও চাঁদনীঘাটের পানিতে (আইসিডিডিআরবি, বুয়েট এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের পরীক্ষায়) মিলেছে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া। হাই কোর্টের নির্দেশে গঠিত এ সংক্রান্ত কমিটির প্রতিবেদনে এই তথ্য পাওয়া যায়। আজ রবিবার হাইকোর্টে এ প্রতিবেদন দাখিল করা হয়। এরপর ঢাকা ওয়াসার সরবরাহ করা পানিতে মল ও জীবাণুর অস্তিত্ব পাওয়ার ঘটনায় কী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে, তা জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।

আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে এ বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। আগামী ২৪ জুলাই এ বিষয়ে শুনানির দিন ঠিক করেছেন আদালত। হাইকোর্টের বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালতে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু।

রিটকারী আইনজীবী মো. তানভীর আহমেদ আদালতে উপস্থিত ছিলেন। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের গঠিত বিশেষজ্ঞ কমিটির প্রতিবেদনটি দাখিল করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৩৪টি নমুনার মধ্যে ৮টিতে মিলেছে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া। সেই সঙ্গে কিছু কিছু এলাকার ওয়াসার পানিতেও পাওয়া গেছে মলের জীবাণু। পানির মান নিয়ে রাজধানীবাসীর ক্ষোভ বেশ পুরনো। ওয়াসা বার বার তাদের পানি সুপেয় দাবি করলেও তা সন্তুষ্ট করতে পারেনি। এমন বাস্তবতায় গেল ২১ মে ঢাকার ৩৪ জায়গার পানি পরীক্ষার নির্দেশ দেয় হাই কোর্ট। এজন্য আইসিডিডিআরবি, বুয়েটের ব্যুরো অব রিসার্চ, টেস্টিং অ্যান্ড কনসোলেশন ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীব বিজ্ঞান বিভাগের সমন্বয়ে গঠন করে দেওয়া হয় একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি। ওইদিন আদেশে হাই কোর্ট চারটি উৎস (বুড়িগঙ্গা, শীতলক্ষ্যা, ভূগর্ভস্থ ও ভূমিস্থ), ১০টি বিতরণ জোন (যা মডস জোন নামে পরিচিত) এবং গ্রাহকদের অভিযোগের ভিত্তিতে ১০টি ঝুঁকিপূর্ণ ও দৈবচয়নের ভিত্তিতে ১০টি স্থান থেকে নমুনা সংগ্রহ করতে বলেছে। সম্প্রতি কমিটি তাদের প্রতিবেদন অ্যাটর্নি জেনারেল কার্যালয়ে দাখিল করেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, আটটি নমুনায় মিলেছে ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া। রয়েছে মলের জীবাণুও। সবচেয়ে বেশি খারাপ অবস্থা সায়েদাবাদ ও চাঁদনীঘাটে।

শুকনো মৌসুমে পাওয়া যায় উচ্চ মাত্রার অ্যামোনিয়া। ক্ষতিকর এসব ব্যাকটেরিয়া রোধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার সুপারিশ করা হয়েছে প্রতিবেদনে। ঢাকার অন্য এলাকার পানিতে কোনো ধরনের দূষণ আছে কিনা তা খুঁজে বের করার পরামর্শও দিয়েছে কমিটি।

বিডি-প্রতিদিন

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন, উপশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০

Design & Developed BY ThemesBazar.Com