আদালতের সংবাদ প্রকাশে গণমাধ্যমকে শতর্ক করল হাইকোর্ট

আদালতের সংবাদ প্রকাশে গণমাধ্যমকে আরও সতর্ক থাকতে বলেছেন হাইকোর্ট। প্রটোকল নিয়ে কয়েকটি অনলাইন পোর্টালে প্রতিবেদন নিয়ে করা রিটের শুনানিতে এমন মন্তব্য করেন আদালত। এ সময় আদালত বলেন, সাংবাদিকদের প্রতি আমাদের অনেক শ্রদ্ধা। সাংবাদিকরা উচ্চ মর্যাদার অধিকারী। রাষ্ট্র ও সমাজের মুখপাত্র হিসেবে সাংবাদিকদের কাছে আরও দায়িত্বশীলতা প্রত্যাশা করি।

একইসঙ্গে, সাংবিধানিক পদে থাকায় রাষ্ট্রীয় পদমর্যাদাক্রম অনুসারে নবম ক্রমিকে থাকা সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের প্রটোকল দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। প্রত্যেক জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও প্রটোকলের দায়িত্বে থাকা সংশ্লিষ্টদের এ দায়িত্ব পালন করতে বলা হয়েছে। আদালত আদেশে বলেছেন, প্রটোকল নিয়ে সংবাদ প্রকাশে গণমাধ্যমকে আরও সতর্ক হতে হবে।

একটি রিটের নিষ্পত্তি করে বুধবার (৭ আগস্ট) হাইকোর্টের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলী সমন্বয়ে গঠিত অবকাশকালীন দ্বৈত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী একরামুল হক টুটুল।

আইনজীবী একরামুল হক টুটুল বলেন, ‘একজন বিচারপতির প্রটোকল নিয়ে কিছু অনলাইন প্রতিবেদন করেছিল। প্রতিবেদনগুলো চ্যালেঞ্জ করে রিট করা হলে আদালত এই আদেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি আদালত বলেছেন, প্রটোকল নিয়ে সংবাদ প্রকাশে গণমাধ্যমকে আরও সতর্ক হতে হবে।’

গত বুধবার (৩১ জুলাই) মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ির এক নম্বর ফেরিঘাটে যুগ্ম সচিবের জন্য তিন ঘণ্টা ফেরি দাঁড়িয়ে থাকলে স্কুলছাত্র তিতাস ঘোষের মৃত্যু হয়। তার মৃত্যুতে ক্ষতিপূরণ চেয়ে করা রিটে হাইকোর্ট বলেন, ‘রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী ছাড়া কেউ ভিআইপি নয়, বাকিরা সবাই রাষ্ট্রের কর্মচারী।’

এরপর হাইকোর্টের একজন বিচারপতি প্রটোকল চাইলে গত ২ আগস্ট একটি অনলাইনে ‘রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রী ছাড়া কেউ ভিআইপি নয়, আদেশের পর ভিআইপি প্রটোকল চাইলেন বিচারপতি’, বেসরকারি এক টেলিভিশন চ্যানেলে ‘ডিসির কাছে ভিআইপি প্রটোকল চাইলেন বিচারপতি’, অপর এক অনলাইনে‘হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞার পরও ভিআইপি প্রটোকল চাইলেন বিচারপতি’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। এ ছাড়া বরিশালের স্থানীয় দুটি অনলাইন পত্রিকায় এ-সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। এসব পত্রিকার প্রতিবেদন সংযুক্ত করে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের প্রটোকল নিয়ে প্রতিবেদন তৈরিতে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা রিটে চ্যালেঞ্জ করে আজ বুধবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আইনজীবী মো. শাহিনুর রহমান রিট আবেদনটি করেন। রিটে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ও প্রেস কাউন্সিলের সচিবকে বিবাদী করা হয়।

রিটের যুক্তিতে বলা হয়েছে, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা সাংবিধানিক পদধারী। রাষ্ট্রীয় পদমর্যাদাক্রমে বিচারপতিরা ৯ নম্বর ক্রমিকে রয়েছেন। হাইকোর্ট সাংবিধানিক পদের প্রটোকলের ওপর কোনো রকম নিষেধাজ্ঞা দেয়নি। প্রটোকল নিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদন ভিত্তিহীন। সাংবিধানিক পদধারী যারা, তারা তাদের চাকরি অনুসারে প্রটোকল পান, তাদের প্রটোকল না দিতে সরকারের কোনো কর্তৃপক্ষকে হাইকোর্ট নির্দেশ দেননি। কোনো রকম ভিত্তি ছাড়া এ ধরনের প্রতিবেদন প্রকাশ করা মর্যাদাহানিকর।

চাকরির সুবাদে সুপ্রিম কোর্টেও বিচারপতিরা আচরণ বিধি অনুসরণ করেন। যদি তাদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তা না দেয়া হয় তাহলে শপথ অনুযায়ী তাদের কর্তব্য পালন বিঘ্নিত হবে। এ ধরনের মর্যাদাহানিকর প্রতিবেদনের কারণে সুপ্রিম কোর্টের মর্যাদা ক্ষুণ্ন হবে।

রিট আবেদনে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির প্রটোকল নিয়ে প্রতিবেদন তৈরি থেকে ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়াকে বিরত রাখতে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা প্রশ্নে রুল জারির আরজি করা হয়।

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



» ‘ভিসির নির্দেশে’ গোপালগঞ্জে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা

» অতিরিক্ত মেকআপে রয়েছে স্বাস্থ্য-ঝুঁকির আশঙ্কা!

» দরুদ শরিফের অসামান্য বরকত

» লুটেরা ভয়ে আছে, জনগণ স্বস্তিতে

» কফ-কাশির নেপথ্য কারণ

» চকবাজারের যুবলীগ নেতা টিনু গ্রেফতার

» শখ আবার আড়ালে

» টেন্ডার-চাঁদাবাজিতে খালেদের পুরো পরিবার

» সাদা পোশাকে গ্রেপ্তার আতঙ্ক নিরাপত্তা চেয়ে সিলেটে ৫৬ সাংবাদিকের জিডি

» ২ কর্মকর্তা লাপাত্তা

উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০,০১৯১১৪৯০৫০৫

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
পরীক্ষামূলক প্রচার...
,

আদালতের সংবাদ প্রকাশে গণমাধ্যমকে শতর্ক করল হাইকোর্ট

আদালতের সংবাদ প্রকাশে গণমাধ্যমকে আরও সতর্ক থাকতে বলেছেন হাইকোর্ট। প্রটোকল নিয়ে কয়েকটি অনলাইন পোর্টালে প্রতিবেদন নিয়ে করা রিটের শুনানিতে এমন মন্তব্য করেন আদালত। এ সময় আদালত বলেন, সাংবাদিকদের প্রতি আমাদের অনেক শ্রদ্ধা। সাংবাদিকরা উচ্চ মর্যাদার অধিকারী। রাষ্ট্র ও সমাজের মুখপাত্র হিসেবে সাংবাদিকদের কাছে আরও দায়িত্বশীলতা প্রত্যাশা করি।

একইসঙ্গে, সাংবিধানিক পদে থাকায় রাষ্ট্রীয় পদমর্যাদাক্রম অনুসারে নবম ক্রমিকে থাকা সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের প্রটোকল দিতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। প্রত্যেক জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার ও প্রটোকলের দায়িত্বে থাকা সংশ্লিষ্টদের এ দায়িত্ব পালন করতে বলা হয়েছে। আদালত আদেশে বলেছেন, প্রটোকল নিয়ে সংবাদ প্রকাশে গণমাধ্যমকে আরও সতর্ক হতে হবে।

একটি রিটের নিষ্পত্তি করে বুধবার (৭ আগস্ট) হাইকোর্টের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি মোহাম্মদ আলী সমন্বয়ে গঠিত অবকাশকালীন দ্বৈত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী একরামুল হক টুটুল।

আইনজীবী একরামুল হক টুটুল বলেন, ‘একজন বিচারপতির প্রটোকল নিয়ে কিছু অনলাইন প্রতিবেদন করেছিল। প্রতিবেদনগুলো চ্যালেঞ্জ করে রিট করা হলে আদালত এই আদেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি আদালত বলেছেন, প্রটোকল নিয়ে সংবাদ প্রকাশে গণমাধ্যমকে আরও সতর্ক হতে হবে।’

গত বুধবার (৩১ জুলাই) মাদারীপুরের কাঁঠালবাড়ির এক নম্বর ফেরিঘাটে যুগ্ম সচিবের জন্য তিন ঘণ্টা ফেরি দাঁড়িয়ে থাকলে স্কুলছাত্র তিতাস ঘোষের মৃত্যু হয়। তার মৃত্যুতে ক্ষতিপূরণ চেয়ে করা রিটে হাইকোর্ট বলেন, ‘রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী ছাড়া কেউ ভিআইপি নয়, বাকিরা সবাই রাষ্ট্রের কর্মচারী।’

এরপর হাইকোর্টের একজন বিচারপতি প্রটোকল চাইলে গত ২ আগস্ট একটি অনলাইনে ‘রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রী ছাড়া কেউ ভিআইপি নয়, আদেশের পর ভিআইপি প্রটোকল চাইলেন বিচারপতি’, বেসরকারি এক টেলিভিশন চ্যানেলে ‘ডিসির কাছে ভিআইপি প্রটোকল চাইলেন বিচারপতি’, অপর এক অনলাইনে‘হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞার পরও ভিআইপি প্রটোকল চাইলেন বিচারপতি’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। এ ছাড়া বরিশালের স্থানীয় দুটি অনলাইন পত্রিকায় এ-সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। এসব পত্রিকার প্রতিবেদন সংযুক্ত করে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিদের প্রটোকল নিয়ে প্রতিবেদন তৈরিতে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা রিটে চ্যালেঞ্জ করে আজ বুধবার হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আইনজীবী মো. শাহিনুর রহমান রিট আবেদনটি করেন। রিটে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব ও প্রেস কাউন্সিলের সচিবকে বিবাদী করা হয়।

রিটের যুক্তিতে বলা হয়েছে, সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতিরা সাংবিধানিক পদধারী। রাষ্ট্রীয় পদমর্যাদাক্রমে বিচারপতিরা ৯ নম্বর ক্রমিকে রয়েছেন। হাইকোর্ট সাংবিধানিক পদের প্রটোকলের ওপর কোনো রকম নিষেধাজ্ঞা দেয়নি। প্রটোকল নিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদন ভিত্তিহীন। সাংবিধানিক পদধারী যারা, তারা তাদের চাকরি অনুসারে প্রটোকল পান, তাদের প্রটোকল না দিতে সরকারের কোনো কর্তৃপক্ষকে হাইকোর্ট নির্দেশ দেননি। কোনো রকম ভিত্তি ছাড়া এ ধরনের প্রতিবেদন প্রকাশ করা মর্যাদাহানিকর।

চাকরির সুবাদে সুপ্রিম কোর্টেও বিচারপতিরা আচরণ বিধি অনুসরণ করেন। যদি তাদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তা না দেয়া হয় তাহলে শপথ অনুযায়ী তাদের কর্তব্য পালন বিঘ্নিত হবে। এ ধরনের মর্যাদাহানিকর প্রতিবেদনের কারণে সুপ্রিম কোর্টের মর্যাদা ক্ষুণ্ন হবে।

রিট আবেদনে সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতির প্রটোকল নিয়ে প্রতিবেদন তৈরি থেকে ইলেকট্রনিক ও প্রিন্ট মিডিয়াকে বিরত রাখতে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা প্রশ্নে রুল জারির আরজি করা হয়।

Facebook Comments
Share

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



উপদেষ্টা – আনোয়ার হোসেন জীবন

উপদেষ্টা – মো: মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, ঢাকা মহানগর উত্তরঃ (দপ্তর সম্পাদক)

উপদেষ্টা -মাকসুদা লিসা

সম্পাদক ও প্রকাশক :মো সেলিম আহম্মেদ

ভারপ্রাপ্ত,সম্পাদক : শেখ মোঃ আতাহার হোসেন সুজন

ব্যাবস্থাপনা সম্পাদকঃ মো: শফিকুল ইসলাম আরজু

নির্বাহী সম্পাদকঃ আনিসুল হক বাবু

সহযোগী সম্পাদকঃ মোঃ ফারুক হোসেন

বার্তা সম্পাদক :এ.এইচ.এম.শাহ্জাহান

 

 

 

 

ই-মেইল : dhakacrimenewsbd@gmail.com

মোবাইল : ০১৫৩৫১৩০৩৫০,০১৯১১৪৯০৫০৫

Design & Developed BY ThemesBazar.Com